সূরা ছাফ্‌ফাত বাংলা উচ্চারণ সহ অনুবাদ,সূরা ছাফ্‌ফাত বাংলা উচ্চারণ, সূরা আল ছাফ্‌ফাত বাংলা তরজমা,সূরা ছাফ্‌ফাত বাংলা তাফসীর, আমল সূরা আল ছাফ্‌ফাত, সকল আমল সূরা আল ছাফ্‌ফাত

0

 

সূরা ছাফ্‌ফাত বাংলা উচ্চারণ সহ অনুবাদ,সূরা ছাফ্‌ফাত বাংলা উচ্চারণ, সূরা আল ছাফ্‌ফাত বাংলা তরজমা,সূরা ছাফ্‌ফাত বাংলা তাফসীর, আমল সূরা আল ছাফ্‌ফাত, সকল আমল সূরা আল ছাফ্‌ফাত

৩৭ . আছ ছাফ্‌ফাত - ( الصّافّات ) | সারিবদ্ধভাবে দাঁড়ানো ফিরিশতাগণ

মাক্কী, মোট আয়াতঃ ১৮২


بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَـٰنِ الرَّحِيمِ


وَالصّٰٓفّٰتِ صَفًّا ۙ


ওয়াসসাফফা-তি সাফফা-।


Mufti Taqi Usmani

(I swear) by those who stand in rows,


মুফতী তাকী উসমানী

শপথ তাদের, ১ যারা সারিবদ্ধ হয়ে দাঁড়ায়। ২


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

শপথ তাদের যারা সারিবদ্ধ হয়ে দাঁড়ানো,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

শপথ তাদের যারা সারিবদ্ধভাবে দণ্ডায়মান


মাওলানা জহুরুল হক

ভেবে দেখো তাদের যারা কাতারে কাতারে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে রয়েছে,


তাফসীরঃ

১. নিজের কোন কথাকে সত্য প্রমাণ করার জন্য আল্লাহ তাআলার শপথ করার দরকার পড়ে না, কিন্তু তা সত্ত্বেও কুরআন মাজীদে তিনি বিভিন্ন বস্তুর শপথ করেছেন। মুফাসসিরগণ বলেন, শপথ হচ্ছে আরবী ভাষালঙ্কারের একটি বিশেষ শৈলী। এর দ্বারা কথা শক্তিশালী হয় এবং এর ফলে কথায় আছর সৃষ্টি হয়। দ্বিতীয়ত যেসব জিনিসের শপথ করা হয়েছে, লক্ষ্য করলে দেখা যায়, তা সেই বিষয়বস্তুর সপক্ষে প্রমাণ হয়ে থাকে, যার উল্লেখ শপথের পর করা হয়।


২. অধিকাংশ তাফসীরবিদের মত অনুযায়ী এর দ্বারা ফেরেশতাদের কথা বোঝানো হয়েছে, যারা আল্লাহ তাআলার ইবাদতকালে বা আল্লাহ তাআলার আদেশ শোনার জন্য সারিবদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়ে থাকে। কিন্তু আয়াতে ফেরেশতাদের নাম নেওয়া হয়নি। সম্ভবত এর কারণ এই যে, এর দ্বারা শিক্ষা দেওয়া হচ্ছে, কোন সমষ্টিগত কাজের সময় বিশৃঙ্খলরূপে একত্র হওয়া আল্লাহ তাআলার পছন্দ নয়। বরং এরূপ ক্ষেত্রে সারিবদ্ধ হয়ে নিয়ম-শৃঙ্খলার সাথে দাঁড়ালে সেটাই আল্লাহ তাআলা পছন্দ করেন। এ কারণেই নামাযেও সারিবদ্ধ হয়ে দাঁড়ানোর তাকীদ রয়েছে। জিহাদের সময় ব্যুহ রচনার গুরুত্ব তো সর্বজনবিদিত।



فَالزّٰجِرٰتِ زَجۡرًا ۙ


ফাঝঝা-জিরা-তি ঝাজরা-।


Mufti Taqi Usmani

then by those who prevent firmly,


মুফতী তাকী উসমানী

তারপর তাদের, যারা কঠোরভাবে বাধা প্রদান করে। ৩


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর ধমকিয়ে ভীতি প্রদর্শনকারীদের,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

ও যারা কঠোর পরিচালক


মাওলানা জহুরুল হক

আর যারা বিতাড়িত করে প্রবল বিতাড়নে,


তাফসীরঃ

৩. অর্থাৎ সেই ফেরেশতাগণ যারা শয়তানদেরকে ঊর্ধ্বজগতে প্রবেশ ও দুষ্কর্ম করতে বাধা প্রদান করে।



فَالتّٰلِیٰتِ ذِکۡرًا ۙ


ফাত্তা-লিয়া-তি যিকরা-।


Mufti Taqi Usmani

then by those who recite the dhikr,


মুফতী তাকী উসমানী

তারপর তাদের, যারা ‘যিকর’-এর তেলাওয়াত করে। ৪


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর মুখস্থ আবৃত্তিকারীদের-


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং যারা ‘যিকির’ আবৃত্তিতে রত-


মাওলানা জহুরুল হক

আর যারা স্মারকগ্রন্থ পাঠ করে!


তাফসীরঃ

৪. এর দ্বারা কুরআন মাজীদের তেলাওয়াতও বোঝানো হতে পারে এবং আল্লাহ তাআলার যিকিরে রত থাকাও। কুরআন মাজীদের এক নাম যিকর (উপদেশবাণী)। সূরার প্রথম তিন আয়াতে বর্ণিত গুণগুলি ফেরেশতাদের। এর ভেতর ইবাদত-বন্দেগীর সবগুলো পদ্ধতি এসে গেছে। অর্থাৎ সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আল্লাহ তাআলার ইবাদত করা, তাগুত ও শয়তানী শক্তির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা এবং আল্লাহ তাআলার কালাম তেলাওয়াত করা ও তার যিকিরে মশগুল থাকা। এ সবের শপথ করে বলা হয়েছে, সত্য মাবুদ কেবলই আল্লাহ তাআলা। তাঁর কোন শরীক নেই এবং তাঁর সন্তান-সন্ততির কোন প্রয়োজন নেই। ফেরেশতাদের এসব গুণের শপথ করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, তোমরা যদি ফেরেশতাদের এসব অবস্থার ভেতর চিন্তা কর তবে অবশ্যই বুঝতে পারবে তারা সকলে আল্লাহ তাআলার বন্দেগীতে লিপ্ত আছে। আল্লাহ তাআলার সঙ্গে তাদের সম্পর্ক পিতা-পুত্রীর নয়; বরং আবেদ ও মাবুদের।



اِنَّ اِلٰـہَکُمۡ لَوَاحِدٌ ؕ

(ads2)

(getButton) #text=(আল কোরআন বাংলা অনুবাদ সহ এক সাথে ) #icon=(link) #color=(#f5f507)

ইন্না ইলা-হাকুম লাওয়া-হিদ।


Mufti Taqi Usmani

surely your God is but One,


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই তোমাদের মাবুদ একই।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

নিশ্চয় তোমাদের মাবুদ এক।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

নিশ্চয়ই তোমাদের ইলাহ্ এক,


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ তোমাদের উপাস্য মাত্র একজন,



رَبُّ السَّمٰوٰتِ وَالۡاَرۡضِ وَمَا بَیۡنَہُمَا وَرَبُّ الۡمَشَارِقِ ؕ


রাব্বুছ ছামা-ওয়া-তি ওয়াল আরদিওয়ামা-বাইনাহুমা-ওয়া রাব্বুল মাশা-রিক।


Mufti Taqi Usmani

the Lord of the heavens and the earth and what is between them, and Lord of the points of sunrise.


মুফতী তাকী উসমানী

যিনি আকাশমণ্ডলী ও পৃথিবী এবং এর মধ্যবর্তী সমস্ত কিছুর মালিক এবং তিনি মালিক নক্ষত্ররাজি উদয়স্থলেরও।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তিনি আসমান সমূহ, যমীনও এতদুভয়ের মধ্যবর্তী সবকিছুর পালনকর্তা এবং পালনকর্তা উদয়াচলসমূহের।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

যিনি আকাশমণ্ডলী ও পৃথিবী এবং এদের অন্তর্বর্তী সমস্ত কিছুর প্রভু এবং প্রভু সকল উদয়স্থলের।


মাওলানা জহুরুল হক

যিনি মহাকাশমন্ডলী ও পৃথিবীর এবং এদের উভয়ের মধ্যবর্তী সমস্ত কিছুর প্রভু, আর যিনি উদয়স্থল সমূহেরও প্রভু,



اِنَّا زَیَّنَّا السَّمَآءَ الدُّنۡیَا بِزِیۡنَۃِۣ الۡکَوَاکِبِ ۙ


ইন্না-ঝাইয়ান্নাছছামাআদ্দুনইয়া-বিঝীনাতিনিল কাওয়া-কিব।


Mufti Taqi Usmani

Verily, We have decorated the nearest sky with an adornment, the stars,


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই আমি নিকটবর্তী আকাশকে সৌন্দর্যমণ্ডিত করেছি (বিভিন্ন) নকশা দ্বারা অর্থাৎ নক্ষত্রমণ্ডলী দ্বারা।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

নিশ্চয় আমি নিকটবর্তী আকাশকে তারকারাজির দ্বারা সুশোভিত করেছি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি নিকটবর্তী আকাশকে নক্ষত্ররাজির সুষমা দিয়ে সুশোভিত করেছি,


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ আমরা নিকটবর্তী আকাশকে তারকারাজির শোভা দিয়ে সুশোভিত করেছি, --


তাফসীরঃ

৫. এর দ্বারা মহাকাশে একক বা গুচ্ছাকারে নক্ষত্ররাজির যে বিভিন্ন নকশা ও আকৃতি লক্ষ করা যায় সেদিকে ইঙ্গিত করা হয়েছে। পরিষ্কার আকাশে খালি চোখেও তা দেখা যায়। আর শক্তিশালী দূরবীনের সাহায্যে তো সে অপরূপ শোভা দেখে মুগ্ধ-মোহিত দর্শক মনের অজান্তে বলে ওঠে, হে মহান স্রষ্টা! তুমি এসব অহেতুক সৃষ্টি করনি। প্রকাশ থাকে যে, আয়াতের এ তরজমা করা হয়েছে এ হিসেবে যে, الكواكب শব্দটি زينة থেকে بدل হয়েছে। কোনও কোনও পাঠে بزينة الكواكب কে ইযাফতের সাথে পড়া হয়। সে হিসেবে তরজমা হবে আমি নিকটবর্তী আকাশকে সৌন্দর্যমণ্ডিত করেছি নক্ষত্ররাজির শোভা দ্বারা। বিস্তারিত দেখুন ‘আল-কাশশাফ’। -অনুবাদক



وَحِفۡظًا مِّنۡ کُلِّ شَیۡطٰنٍ مَّارِدٍ ۚ


ওয়া হিফজাম মিন কুল্লি শাইতা-নিম মা-রিদ।


Mufti Taqi Usmani

and (have made them) a security against every rebellious devil.


মুফতী তাকী উসমানী

এবং প্রত্যেক দুষ্ট (শয়তান) থেকে হেফাজতের মাধ্যম বানিয়েছি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং তাকে সংরক্ষিত করেছি প্রত্যেক অবাধ্য শয়তান থেকে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং রক্ষা করেছি প্রত্যেক বিদ্রোহী শয়তান হতে।


মাওলানা জহুরুল হক

আর প্রতিরক্ষা প্রত্যেক বিদ্রোহাচারী শয়তান থেকে।



لَا یَسَّمَّعُوۡنَ اِلَی الۡمَلَاِ الۡاَعۡلٰی وَیُقۡذَفُوۡنَ مِنۡ کُلِّ جَانِبٍ ٭ۖ


লা ইয়াছছাম্মা‘ঊনা ইলাল মালাইল আ‘লা-ওয়া ইউকযাফূনা মিন কুল্লি জা-নিব।


Mufti Taqi Usmani

They cannot listen to the Upper Realm and are hit from every side


মুফতী তাকী উসমানী

তারা ঊর্ধ্ব জগতের কথাবার্তা শুনতে পারে না এবং সকল দিক থেকে তাদের উপর মার আসে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

ওরা উর্ধ্ব জগতের কোন কিছু শ্রবণ করতে পারে না এবং চার দিক থেকে তাদের প্রতি উল্কা নিক্ষেপ করা হয়।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

ফলে এরা ঊর্ধ্ব জগতের কিছু শোনে করতে পারে না এবং এদের প্রতি নিক্ষিপ্ত হয় সকল দিক হতে-


মাওলানা জহুরুল হক

তারা কান পাততে পারে না ঊর্ধ্ব এলাকার দিকে, আর তাদের প্রতি নিক্ষেপ করা হয় সব দিক থেকে, --



دُحُوۡرًا وَّلَہُمۡ عَذَابٌ وَّاصِبٌ ۙ


দুহূ রাও ওয়ালাহুম ‘আযা-বুন ওয়া-সিব।


Mufti Taqi Usmani

to be driven off, and for them there is a lasting punishment;


মুফতী তাকী উসমানী

তাদেরকে করা হয় বিতাড়িত এবং (আখেরাতে) তাদের জন্য আছে স্থায়ী শাস্তি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

ওদেরকে বিতাড়নের উদ্দেশে। ওদের জন্যে রয়েছে বিরামহীন শাস্তি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

বিতাড়নের জন্যে এবং এদের জন্যে আছে অবিরাম শাস্তি।


মাওলানা জহুরুল হক

বিতাড়িত, আর তাদের জন্য রয়েছে নিরবচ্ছিন্ন শাস্তি, --


১০


اِلَّا مَنۡ خَطِفَ الۡخَطۡفَۃَ فَاَتۡبَعَہٗ شِہَابٌ ثَاقِبٌ


ইল্লা-মান খাতিফাল খাতফাতা ফাআতবা‘আহূশিহা-বুন ছাকিব।


Mufti Taqi Usmani

however, if one snatches a little bit, he is pursued by a bright flame.


মুফতী তাকী উসমানী

তবে কেউ কোন কিছু ছোঁ মেরে নিয়ে যেতে চাইলে জ্বলন্ত উল্কাপিণ্ড তার পশ্চাদ্ধাবন করে। ৬


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তবে কেউ ছোঁ মেরে কিছু শুনে ফেললে জ্বলন্ত উল্কাপিন্ড তার পশ্চাদ্ধাবন করে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তবে কেউ হঠাৎ কিছু শুনে ফেলিলে জ্বলন্ত উল্কাপিণ্ড তার পশ্চাদ্ধাবন করে।


মাওলানা জহুরুল হক

সে ব্যতীত যে ছিনিয়ে নেয় একটুকুন ছিনতাই, কিন্তু তাকে অনুসরণ করে একটি জ্বলন্ত অগ্নিশিখা।


তাফসীরঃ

৬. এ সম্পর্কে সূরা হিজর (১৫ : ১৬, ১৭)-এর টীকায় বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। সেখানে দ্রষ্টব্য।


১১


فَاسۡتَفۡتِہِمۡ اَہُمۡ اَشَدُّ خَلۡقًا اَمۡ مَّنۡ خَلَقۡنَا ؕ اِنَّا خَلَقۡنٰہُمۡ مِّنۡ طِیۡنٍ لَّازِبٍ


ফাছতাফতিহিম আহুম আশাদ্দুখাল কান আম্মান খালাকনা- ইন্না-খালাকনা-হুম মিন তীনিল লা-ঝিব।


Mufti Taqi Usmani

Now ask them, “Are they stronger in the formation of their bodies, or those (other beings) that We have created?” Certainly, We did create them from sticky clay.


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং তাদেরকে (অর্থাৎ কাফেরদেরকে) জিজ্ঞেস কর, তাদেরকে সৃষ্টি করা বেশি কঠিন, না আমার অন্যান্য মাখলুককে? ৭ আমি তো তাদেরকে সৃষ্টি করেছি আঠাল কাদা হতে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আপনি তাদেরকে জিজ্ঞেস করুন, তাদেরকে সৃষ্টি করা কঠিনতর, না আমি অন্য যা সৃষ্টি করেছি? আমিই তাদেরকে সৃষ্টি করেছি এঁটেল মাটি থেকে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এদেরকে জিজ্ঞাসা কর, এরা সৃষ্টিতে দৃঢ়তর, না আমি অন্য যা কিছু সৃষ্টি করেছি তা ? এদেরকে আমি সৃষ্টি করেছি আঠাল মৃত্তিকা হতে।


মাওলানা জহুরুল হক

সুতরাং তাদের জিজ্ঞাসা করো, -- গঠনে তারা কি বেশী বলিষ্ঠ না যাদের আমরা সৃষ্টি করেছি? নিঃসন্দেহ তাদের আমরা সৃষ্টি করেছি আঠালো কাদা থেকে।


তাফসীরঃ

৭. অর্থাৎ আসমান, যমীন ও চন্দ্র-সূর্যের সৃজন তাদের সৃজন অপেক্ষা বেশি কঠিন। আল্লাহ তাআলা যখন সেই কঠিন মাখলুকসমূহকেই অতি সহজে নাস্তি থেকে অস্তিতে আনয়ন করেছেন, তখন কাদা দ্বারা সৃষ্ট মানুষকে একবার মৃত্যু দানের পর পুনরায় জীবিত করে তোলা তার পক্ষে মুশকিল হবে কেন?


১২


بَلۡ عَجِبۡتَ وَیَسۡخَرُوۡنَ ۪


বাল ‘আজিবতা ওয়া ইয়াছখারূন।


Mufti Taqi Usmani

But you wonder (at their denial), and they mock (at the idea of an Hereafter).


মুফতী তাকী উসমানী

(হে রাসূল!) তুমি তো (তাদের কথায়) বিস্ময়বোধ করছ, কিন্তু তারা করছে বিদ্রূপ।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

বরং আপনি বিস্ময় বোধ করেন আর তারা বিদ্রুপ করে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তুমি তো বিস্ময় বোধ করছো, আর এরা করছে বিদ্রুপ।


মাওলানা জহুরুল হক

বস্তুতঃ তুমি তো তাজ্জব হচ্ছো, আর তারা করছে মস্করা।


১৩


وَاِذَا ذُکِّرُوۡا لَا یَذۡکُرُوۡنَ ۪


ওয়া ইযা-যুক্কিরূলা-ইয়াযকুরূন।


Mufti Taqi Usmani

And when any advice is given to them, they pay no heed to it.


মুফতী তাকী উসমানী

তাদেরকে যখন উপদেশ দেওয়া হয়, তখন তারা উপদেশ গ্রহণ করে না।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যখন তাদেরকে বোঝানো হয়, তখন তারা বোঝে না।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং যখন এদেরকে উপদেশ দেওয়া হয় এরা তা গ্রহণ করে না।


মাওলানা জহুরুল হক

আর যখন তাদের স্মরণ করিয়ে দেওয়া হয় তারা মনোযোগ দেয় না,


১৪


وَاِذَا رَاَوۡا اٰیَۃً یَّسۡتَسۡخِرُوۡنَ ۪


ওয়া ইযা-রাআও আ-য়াতাই ইয়াছতাছখিরূন।


Mufti Taqi Usmani

And when they see a sign, they make fun of it,


মুফতী তাকী উসমানী

আর যখন কোন নিদর্শন দেখে, তখন ব্যঙ্গ করে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা যখন কোন নিদর্শন দেখে তখন বিদ্রূপ করে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা কোন নিদর্শন দেখলে উপহাস করে


মাওলানা জহুরুল হক

আর যখন তারা কোনো নিদর্শন দেখতে পায় তারা ঠাট্টাবিদ্রূপ করে,


১৫


وَقَالُوۡۤا اِنۡ ہٰذَاۤ اِلَّا سِحۡرٌ مُّبِیۡنٌ ۚۖ


ওয়া কা-লূ ইন হা-যাইল্লা-ছিহরু মুবীন।


Mufti Taqi Usmani

and say, “This is nothing but an open magic.


মুফতী তাকী উসমানী

তারা বলে, এটা এক প্রকাশ্য যাদু ছাড়া কিছুই নয়।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং বলে, কিছুই নয়, এযে স্পষ্ট যাদু।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং বলে, ‘এটা তো এক সুস্পষ্ট জাদু ব্যতীত আর কিছুই নয়।’


মাওলানা জহুরুল হক

আর বলে -- "এটি স্পষ্ট জাদু বৈ তো নয়",


১৬


ءَاِذَا مِتۡنَا وَکُنَّا تُرَابًا وَّعِظَامًا ءَاِنَّا لَمَبۡعُوۡثُوۡنَ ۙ


আইযা-মিতনা-ওয়া কুন্না-তুরাবাওঁ ওয়া ‘ইজা-মান আইন্না-লামাব‘ঊছূন।


Mufti Taqi Usmani

Is it when we have died and become dust and bones, that we shall be raised again,


মুফতী তাকী উসমানী

তবে কি আমরা মরে মাটি ও অস্থিতে পরিণত হয়ে যাওয়ার পরও আমাদেরকে পুনরায় জীবিত করা হবে?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমরা যখন মরে যাব, এবং মাটি ও হাড়ে পরিণত হয়ে যাব, তখনও কি আমরা পুনরুত্থিত হব?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘আমরা যখন মরে যাব এবং মৃত্তিকা ও অস্থিতে পরিণত হব, তখনও কি আমাদেরকে উত্থিত করা হবে ?


মাওলানা জহুরুল হক

কী! যখন আমরা মারা যাব এবং ধূলোমাটি ও হাড়গোড় হয়ে যাব তখন কি আমরা ঠিকঠিকই পুনরুত্থিত হব?


১৭


اَوَاٰبَآؤُنَا الۡاَوَّلُوۡنَ ؕ


আওয়াআ-বাউনাল আওওয়ালূন।


Mufti Taqi Usmani

and even our fathers of aforetime?”


মুফতী তাকী উসমানী

এমন কি পূর্বেকার আমাদের বাপ-দাদাদেরকেও?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমাদের পিতৃপুরুষগণও কি?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘এবং আমাদের পূর্বপুরুষদেরকেও ?’


মাওলানা জহুরুল হক

আর কি পুরাকালের আমাদের পিতৃপুরুষরাও?


১৮


قُلۡ نَعَمۡ وَاَنۡتُمۡ دَاخِرُوۡنَ ۚ


কুল না‘আম ওয়া আনতুম দা-খিরূন।


Mufti Taqi Usmani

Say, “Yes, and you shall be disgraced (too)!”


মুফতী তাকী উসমানী

বলে দাও, হ্যাঁ এবং তোমরা লাঞ্ছিতও হবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

বলুন, হ্যাঁ এবং তোমরা হবে লাঞ্ছিত।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

বল, ‘হাঁ, এবং তোমরা হবে লাঞ্ছিত।’


মাওলানা জহুরুল হক

তুমি বলো -- "হাঁ, আর তোমরা লাঞ্ছিত হবে।"


১৯


فَاِنَّمَا ہِیَ زَجۡرَۃٌ وَّاحِدَۃٌ فَاِذَا ہُمۡ یَنۡظُرُوۡنَ


ফাইন্নামা-হিয়া ঝাজরাতুওঁ ওয়া-হিদাতুন ফাইযা-হুম ইয়ানজু রূন।


Mufti Taqi Usmani

So, it will be only a single castigating call, and all of a sudden they will begin to see.


মুফতী তাকী উসমানী

ব্যস, তা তো একটি মাত্র মহানাদ হবে, আর অমনি তারা (যত সব বীভৎস দৃশ্য) দেখতে শুরু করবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

বস্তুতঃ সে উত্থান হবে একটি বিকট শব্দ মাত্র-যখন তারা প্রত্যক্ষ করতে থাকবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তা একটি মাত্র প্রচণ্ড শব্দ-আর তখনই এরা প্রত্যক্ষ করবে।


মাওলানা জহুরুল হক

তখন সেটি কিন্তু একটিমাত্র মহাগর্জন হবে, তখন দেখো! তারা চেয়ে থাকবে।


২০


وَقَالُوۡا یٰوَیۡلَنَا ہٰذَا یَوۡمُ الدِّیۡنِ


ওয়া-কা-লূইয়া-ওয়াইলানা-হা-যা-ইয়াওমুদ্দীন।


Mufti Taqi Usmani

And they will be saying, “Woe to us; this is the Day of Retribution.”


মুফতী তাকী উসমানী

এবং বলবে, হায়, আমাদের দুর্ভোগ! এটা তো হিসাব-নিকাশের দিন।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং বলবে, দুর্ভাগ্য আমাদের! এটাই তো প্রতিফল দিবস।

(ads1)

(getButton) #text=(আল কোরআন বাংলা অনুবাদ সহ এক সাথে ) #icon=(link) #color=(#f5f507)

ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং এরা বলবে, ‘দুর্ভোগ আমাদের! এটাই তো কর্মফল দিবস।’


মাওলানা জহুরুল হক

আর তারা বলবে -- "হায় ধিক্‌, আমাদের! এটিই তো বিচারের দিন!"


২১


ہٰذَا یَوۡمُ الۡفَصۡلِ الَّذِیۡ کُنۡتُمۡ بِہٖ تُکَذِّبُوۡنَ ٪


হা-যা-ইয়াওমুল ফাসলিল্লাযী কুনতুম বিহী তুকাযযিবূন।


Mufti Taqi Usmani

(It will be said to them,) “This is the Day of Judgment that you used to deny.”


মুফতী তাকী উসমানী

(জী হ্যাঁ!) এটাই সেই মীমাংসার দিন, যাকে তোমরা অবিশ্বাস করতে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

বলা হবে, এটাই ফয়সালার দিন, যাকে তোমরা মিথ্যা বলতে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এটাই ফয়সালার দিন যা তোমরা অস্বীকার করতে।


মাওলানা জহুরুল হক

এইটিই ফয়সালা করার দিন যেটি সন্বন্ধে তোমরা মিথ্যা আখ্যা দিতে।


২২


اُحۡشُرُوا الَّذِیۡنَ ظَلَمُوۡا وَاَزۡوَاجَہُمۡ وَمَا کَانُوۡا یَعۡبُدُوۡنَ ۙ


উহশুরুল্লাযীনা জালামূওয়া আঝওয়া-জাহুম ওয়ামা-কা-নূইয়া‘বুদূন।


Mufti Taqi Usmani

(It will be said to the angels,) “Muster all those who were unjust, and their fellows, and whatever they used to worship


মুফতী তাকী উসমানী

(ফেরেশতাদেরকে বলা হবে,) যারা জুলুম করেছিল, তাদেরকে ঘেরাও করে নিয়ে এসো এবং তাদের সঙ্গীদেরকেও এবং তারা যাদের ইবাদত করত তাদেরকেও।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

একত্রিত কর গোনাহগারদেরকে, তাদের দোসরদেরকে এবং যাদের এবাদত তারা করত।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

ফেরেশতাদেরকে বলা হবে, ‘একত্র কর জালিম ও এদের সহচরগণকে এবং এদেরকে যাদের ‘ইবাদত করত তারা-


মাওলানা জহুরুল হক

"যারা অনাচার করেছিল তাদের একত্র করো, আর তাদের সহচরদের, আর তাদেরও যাদের তারা উপাসনা করত --


২৩


مِنۡ دُوۡنِ اللّٰہِ فَاہۡدُوۡہُمۡ اِلٰی صِرَاطِ الۡجَحِیۡمِ ٙ


মিন দূনিল্লা-হি ফাহদূহুম ইলা-সিরা-তিল জাহীম।


Mufti Taqi Usmani

other than Allah, and show them the way to Jahannam ,


মুফতী তাকী উসমানী

আল্লাহকে ছেড়ে, তারপর তাদেরকে জাহান্নামের পথ দেখাও।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আল্লাহ ব্যতীত। অতঃপর তাদেরকে পরিচালিত কর জাহান্নামের পথে,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আল্লাহ্ র পরিবর্তে এবং এদেরকে পরিচালিত কর জাহান্নামের পথে,


মাওলানা জহুরুল হক

"আল্লাহ্‌কে বাদ দিয়ে, তারপর তাদের পরিচালিত করো দুযখের পথে।


২৪


وَقِفُوۡہُمۡ اِنَّہُمۡ مَّسۡئُوۡلُوۡنَ ۙ


ওয়াকিফূহুম ইন্নাহুম মাছঊলূন।


Mufti Taqi Usmani

and stop them (for a while,) for they are to be asked some questions.”


মুফতী তাকী উসমানী

এবং তাদেরকে একটু দাঁড় করাও। কেননা তাদেরকে জিজ্ঞেস করা হবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং তাদেরকে থামাও, তারা জিজ্ঞাসিত হবে;


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘এরপর এদেরকে থামাও, কারণ এদেরকে প্রশ্ন করা হবে :


মাওলানা জহুরুল হক

"আর তাদের থামাও, তারা অবশ্যই জিজ্ঞাসিত হবে,


২৫


مَا لَکُمۡ لَا تَنَاصَرُوۡنَ


মা-লাকুম লা-তানা-সারূন।


Mufti Taqi Usmani

(Then they will be asked, “What is wrong with you that you do not help each other?”


মুফতী তাকী উসমানী

তোমাদের কী হল যে, একে অন্যকে সাহায্য করছ না?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমাদের কি হল যে, তোমরা একে অপরের সাহায্য করছ না?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘তোমাদের কী হল যে, তোমরা একে অপরের সাহায্য করছো না ?’


মাওলানা জহুরুল হক

তোমাদের কি হল, তোমরা পরস্পরকে সাহায্য করছ না?


২৬


بَلۡ ہُمُ الۡیَوۡمَ مُسۡتَسۡلِمُوۡنَ


বাল হুমুল ইয়াওমা মুছতাছলিমূন।


Mufti Taqi Usmani

On the contrary, that day all of them will have totally surrendered.


মুফতী তাকী উসমানী

বরং আজ তারা সকলে মাথা নত করে দাঁড়িয়ে আছে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

বরং তারা আজকের দিনে আত্নসমর্পণকারী।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

বস্তুত সেই দিন এরা আত্মসমর্পণ করবে


মাওলানা জহুরুল হক

বস্তুতঃ সেদিন তারা আ‌ত্মসমর্পিত হবে।


২৭


وَاَقۡبَلَ بَعۡضُہُمۡ عَلٰی بَعۡضٍ یَّتَسَآءَلُوۡنَ


ওয়া আকবালা বা‘দুহুম ‘আলা-বা‘দিইঁ ইয়াতাছাআলূন।


Mufti Taqi Usmani

And some of them (the followers of their chiefs) will turn to others (the chiefs), asking questions from one another.


মুফতী তাকী উসমানী

তারা একে অন্যের অভিমুখী হয়ে পরস্পরে সওয়াল-জওয়াব করবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা একে অপরের দিকে মুখ করে পরস্পরকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং এরা একে অপরের সামনাসামনি হয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করবে-


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাদের কেউ কেউ অন্যদের দিকে এগিয়ে যাবে পরস্পরকে প্রশ্ন করে --


২৮


قَالُوۡۤا اِنَّکُمۡ کُنۡتُمۡ تَاۡتُوۡنَنَا عَنِ الۡیَمِیۡنِ


কা-লূইন্নাকুম কুনতুম তা’তূনানা-‘আনিল ইয়ামীন।


Mufti Taqi Usmani

They (the followers) will say, “You were the ones who used to come to (mislead) us forcefully.”


মুফতী তাকী উসমানী

(অধীনস্থরা তাদের নেতৃবর্গকে) বলবে, তোমরাই তো অত্যন্ত শক্তিমানরূপে আমাদের কাছে আসতে। ৮


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

বলবে, তোমরা তো আমাদের কাছে ডান দিক থেকে আসতে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা বলবে, ‘তোমরা তো তোমাদের শক্তি নিয়ে আমাদের নিকট আসতে।’


মাওলানা জহুরুল হক

তারা বলবে -- "তোমরাই তো নিশ্চয়ই আমাদের কাছে আসতে ডান দিকে থেকে।"


তাফসীরঃ

৮. অর্থাৎ আমাদের উপর চাপ সৃষ্টি করতে যেন আমরা কিছুতেই ঈমান না আনি। (আরবীতে اليمين শব্দটি শক্তি ও ক্ষমতা অর্থেও ব্যবহৃত হয়।)


২৯


قَالُوۡا بَلۡ لَّمۡ تَکُوۡنُوۡا مُؤۡمِنِیۡنَ ۚ


কা-লূবাল লাম তাকূনূমু’মিনীন।


Mufti Taqi Usmani

They (the chiefs) will say, “On the contrary, you yourselves were not believers.


মুফতী তাকী উসমানী

তারা বলবে, না, বরং তোমরা নিজেরাই ঈমান আনার ছিলে না।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা বলবে, বরং তোমরা তো বিশ্বাসীই ছিলে না।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তারা বলবে, তোমরা তো বিশ্বাসীই ছিলে না,


মাওলানা জহুরুল হক

তারা বলবে -- "না, তোমরা তো বিশ্বাসীই ছিলে না,


৩০


وَمَا کَانَ لَنَا عَلَیۡکُمۡ مِّنۡ سُلۡطٰنٍ ۚ بَلۡ کُنۡتُمۡ قَوۡمًا طٰغِیۡنَ


ওয়ামা-কা-না লানা-‘আলাইকুম মিন ছুলতা-নিন বাল কুনতুম কাওমান তা-গীন।


Mufti Taqi Usmani

We had no authority over you at all, but you yourselves were a transgressing people.


মুফতী তাকী উসমানী

আর তোমাদের উপর আমাদের কোন আধিপত্যও ছিল না। বস্তুত তোমরা নিজেরাই ছিলে এক অবাধ্য সম্প্রদায়।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং তোমাদের উপর আমাদের কোন কতৃত্ব ছিল না, বরং তোমরাই ছিলে সীমালংঘনকারী সম্প্রদায়।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘এবং তোমাদের ওপর আমাদের কোন কর্তৃত্ব ছিল না ; বস্তুত তোমরাই ছিলে সীমালংঘনকারী সম্প্রদায়।


মাওলানা জহুরুল হক

"আর তোমাদের উপরে আমাদের কোনো আধিপত্য ছিল না, বরং তোমরাই ছিলে উচ্ছৃঙ্খল লোক।


৩১


فَحَقَّ عَلَیۡنَا قَوۡلُ رَبِّنَاۤ ٭ۖ اِنَّا لَذَآئِقُوۡنَ


ফাহাক্কা ‘আলাইনা-কাওলুরাব্বিনা ইনা-লাযাইকূন।


Mufti Taqi Usmani

So, the word of our Lord has come true against us. Indeed, we have to taste (the punishment).


মুফতী তাকী উসমানী

ফলে আমাদের উপর আমাদের প্রতিপালকের একথা সাব্যস্ত হয়ে গেছে যে, আমাদের সকলকেই শাস্তিভোগ করতে হবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমাদের বিপক্ষে আমাদের পালনকর্তার উক্তিই সত্য হয়েছে। আমাদেরকে অবশই স্বাদ আস্বাদন করতে হবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘আমাদের বিরুদ্ধে আমাদের প্রতিপালকের কথা সত্য হয়েছে, আমাদেরকে অবশ্যই শাস্তি আস্বাদন করতে হবে।


মাওলানা জহুরুল হক

"সেজন্যে আমাদের বিরুদ্ধে আমাদের প্রভুর বাণী সত্য প্রতিপন্ন হয়েছে, আমরা নিশ্চয়ই আস্বাদন করতে যাচ্ছি।


৩২


فَاَغۡوَیۡنٰکُمۡ اِنَّا کُنَّا غٰوِیۡنَ


ফাআগওয়াইনা-কুম ইন্না-কুন্না-গা-বীন।


Mufti Taqi Usmani

We did misguide you, (because) we were ourselves erroneous”.


মুফতী তাকী উসমানী

ফলে আমরা তোমাদেরকে বিভ্রান্ত করেছি আর আমরা নিজেরাও ছিলাম বিভ্রান্ত। ৯


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমরা তোমাদেরকে পথভ্রষ্ট করেছিলাম। কারণ আমরা নিজেরাই পথভ্রষ্ট ছিলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘আমরা তোমাদেরকে বিভ্রান্ত করেছিলাম, কারণ আমরা নিজেরাও ছিলাম বিভ্রান্ত।’


মাওলানা জহুরুল হক

বস্তুত আমরা তোমাদের বিপথে নিয়েছিলাম, কেননা আমরা নিজেরাই বিপথগামী ছিলাম।


তাফসীরঃ

৯. অর্থাৎ আমরা নিজেরা যেহেতু বিভ্রান্ত ছিলাম, তাই আমরা তোমাদেরকে বিভ্রান্ত করেছিলাম ঠিক, কিন্তু আমরা বিভ্রান্ত করেছি বলে তোমরা কুফর করতে বাধ্য হয়ে যাওনি। তোমরা নিজেরা বিপথগামী না হলে তোমাদের উপর আমাদের জোর খাটত না।


৩৩


فَاِنَّہُمۡ یَوۡمَئِذٍ فِی الۡعَذَابِ مُشۡتَرِکُوۡنَ


ফাইন্নাহুম ইয়াওমাইযিন ফিল ‘আযা-বি মুশতারিকূন।


Mufti Taqi Usmani

So, that day, they will share each other in punishment.


মুফতী তাকী উসমানী

মোটকথা সে দিন শাস্তিতে তারা সকলে একে অন্যের শরীক হবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা সবাই সেদিন শান্তিতে শরীক হবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা সকলেই সেই দিন শাস্তির শরীক হবে।


মাওলানা জহুরুল হক

সুতরাং সেইদিন তারা নিশ্চয়ই শাস্তিতে একে অন্যের শরিক হবে।


৩৪


اِنَّا کَذٰلِکَ نَفۡعَلُ بِالۡمُجۡرِمِیۡنَ


ইন্না-কাযা-লিকা নাফ‘আলুবিলমুজরিমীন।


Mufti Taqi Usmani

This is how We deal with the criminals.


মুফতী তাকী উসমানী

আমরা অপরাধীদের সাথে এ রকমই করে থাকি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অপরাধীদের সাথে আমি এমনি ব্যবহার করে থাকি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

অপরাধীদের প্রতি আমি এইরূপই করে থাকি।


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ এইরূপই আমরা অপরাধীদের প্রতি করে থাকি।


৩৫


اِنَّہُمۡ کَانُوۡۤا اِذَا قِیۡلَ لَہُمۡ لَاۤ اِلٰہَ اِلَّا اللّٰہُ ۙ  یَسۡتَکۡبِرُوۡنَ ۙ


ইন্নাহুম কা-নূইযা-কীলা লাহুম লাইলা-হা ইল্লাল্লা-হু ইয়াছতাকবিরূন।


Mufti Taqi Usmani

They were those to whom when it was said: “There is no god but Allah”, they waxed proud,


মুফতী তাকী উসমানী

তাদের অবস্থা তো ছিল এই যে, তাদেরকে যখন বলা হত, আল্লাহ ছাড়া কোন মাবুদ নেই, তখন তারা অহমিকা প্রদর্শন করত।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাদের যখন বলা হত, আল্লাহ ব্যতীত কোন উপাস্য েনই, তখন তারা ঔদ্ধত্য প্রদর্শন করত।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এদেরকে ‘আল্লাহ্ ব্যতীত কোন ইলাহ্ নেই’ বলা হলে এরা অহংকার করত


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ যখন তাদের বলা হতো -- 'আল্লাহ্ ছাড়া অন্য উপাস্য নেই’, তখন তারা হামবড়াই করত,


৩৬


وَیَقُوۡلُوۡنَ اَئِنَّا لَتَارِکُوۡۤا اٰلِہَتِنَا لِشَاعِرٍ مَّجۡنُوۡنٍ ؕ


ওয়া ইয়াকূলূনা আইন্না-লাতা-রিকূআ-লিহাতিনা-লিশা-‘ইরিম মাজনূন।


Mufti Taqi Usmani

and used to say, “Are we really to leave our gods because of an insane poet?”


মুফতী তাকী উসমানী

এবং বলত, আমরা কি এমন নাকি যে, এক উন্মাদ কবির কারণে আপন উপাস্যদেরকে পরিত্যাগ করব?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং বলত, আমরা কি এক উম্মাদ কবির কথায় আমাদের উপাস্যদেরকে পরিত্যাগ করব।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং বলত, ‘আমরা কি এক উন্মাদ কবির কথায় আমাদের ইলাহ্গণকে বর্জন করব ?’


মাওলানা জহুরুল হক

আর তারা বলত -- "কী! আমরা কি আমাদের উপাস্যদের সত্যিই ত্যাগ করব একজন পাগলা কবির কারণে?"


৩৭


بَلۡ جَآءَ بِالۡحَقِّ وَصَدَّقَ الۡمُرۡسَلِیۡنَ


বাল জাআ বিলহাক্কিওয়া সাদ্দাকাল মুরছালীন।


Mufti Taqi Usmani

No, he has come with Truth and has confirmed all the messengers (of Allah).


মুফতী তাকী উসমানী

অথচ সে (অর্থাৎ মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) সত্য নিয়ে এসেছিল এবং সে অন্যান্য রাসূলগণেরও সমর্থন করেছিল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

না, তিনি সত্যসহ আগমন করেছেন এবং রসূলগণের সত্যতা স্বীকার করেছেন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

বরং সে তো সত্য নিয়ে এসেছে এবং সে রাসূলদেরকে সত্য বলে স্বীকার করেছে।


মাওলানা জহুরুল হক

বস্তুত তিনি সত্য নিয়ে এসেছেন, আর রসূলগণকে তিনি সত্য প্রতিপন্ন করেছেন।


৩৮


اِنَّکُمۡ لَذَآئِقُوا الۡعَذَابِ الۡاَلِیۡمِ ۚ


ইন্নাকুম লাযাইকু ল ‘আযা-বিল আলীম।


Mufti Taqi Usmani

Surely you have to taste the painful punishment,-


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং (তাদেরকে বলা হবে), তোমাদের সকলকে মর্মন্তুদ শাস্তির মজা ভোগ করতেই হবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমরা অবশ্যই বেদনাদায়ক শাস্তি আস্বাদন করবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তোমরা অবশ্যই মর্মন্তুদ শাস্তির আস্বাদ গ্রহণ করবে।


মাওলানা জহুরুল হক

তোমরা নিশ্চয়ই মর্মন্তুদ শাস্তি আস্বাদন করতেই যাচ্ছ,


৩৯


وَمَا تُجۡزَوۡنَ اِلَّا مَا کُنۡتُمۡ تَعۡمَلُوۡنَ ۙ


ওয়া মা-তুজঝাওনা ইল্লা-মা-কুনতুম তা‘মালূন।


Mufti Taqi Usmani

And you will be recompensed for nothing but for what you used to do-


মুফতী তাকী উসমানী

আর তোমাদেরকে কেবল তোমাদের কৃতকর্মেরই প্রতিফল দেওয়া হবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমরা যা করতে, তারই প্রতিফল পাবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং তোমরা যা করতে তারই প্রতিফল পাবে-


মাওলানা জহুরুল হক

আর তোমাদের প্রতিদান দেওয়া হবে না তোমরা যা করতে তা ব্যতীত, --


৪০


اِلَّا عِبَادَ اللّٰہِ الۡمُخۡلَصِیۡنَ


ইল্লা-‘ইবাদাল্লা-হিল মুখলাসীন।


Mufti Taqi Usmani

unlike Allah’s chosen servants.


মুফতী তাকী উসমানী

তবে আল্লাহর মনোনীত বান্দাগণ ব্যতিক্রম।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তবে তারা নয়, যারা আল্লাহর বাছাই করা বান্দা।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তবে তারা নয় যারা আল্লাহ্ র একনিষ্ঠ বান্দা।


মাওলানা জহুরুল হক

আল্লাহ্‌র নিষ্ঠাবান বান্দারা ব্যতীত।


৪১


اُولٰٓئِکَ لَہُمۡ رِزۡقٌ مَّعۡلُوۡمٌ ۙ


উলাইকা লাহুম রিঝকুম মা‘লূম।


Mufti Taqi Usmani

Those are the people for whom there is a known provision,


মুফতী তাকী উসমানী

তাদের জন্য আছে স্থিরীকৃত রিযক


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাদের জন্যে রয়েছে নির্ধারিত রুযি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তাদের জন্যে আছে নির্ধারিত রিযিক-


মাওলানা জহুরুল হক

এরাই -- এদের জন্য রয়েছে সুপরিচিত রিযেক,


৪২


فَوَاکِہُ ۚ  وَہُمۡ مُّکۡرَمُوۡنَ ۙ


ফাওয়া-কিহু ওয়া হুম মুকরামূন।


Mufti Taqi Usmani

the fruits; and they will be honored


মুফতী তাকী উসমানী

ফলমূল আর তাদেরকে করা হবে সম্মানিত।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

ফল-মূল এবং তারা সম্মানিত।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

ফলমূল; আর তারা হবে সম্মানিত,


মাওলানা জহুরুল হক

ফলমূল, আর তারা হবে সম্মানিত --


৪৩


فِیۡ جَنّٰتِ النَّعِیۡمِ ۙ


ফী জান্না-তিন না‘ঈম।


Mufti Taqi Usmani

in Gardens of Bliss


মুফতী তাকী উসমানী

নি‘আমতপূর্ণ উদ্যানে


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

নেয়ামতের উদ্যানসমূহ।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সুখদ-কাননে


মাওলানা জহুরুল হক

আনন্দময় উদ্যানে,


৪৪


عَلٰی سُرُرٍ مُّتَقٰبِلِیۡنَ


‘আলা-ছুরুরিম মুতাকা-বিলীন।


Mufti Taqi Usmani

facing each other on couches.


মুফতী তাকী উসমানী

তারা উঁচু আসনে সামনা-সামনি বসা থাকবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

মুখোমুখি হয়ে আসনে আসীন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তারা মুখামুখি হয়ে আসনে আসীন হবে।


মাওলানা জহুরুল হক

তখতের উপরে মুখোমুখি হয়ে রইবে।


৪৫


یُطَافُ عَلَیۡہِمۡ بِکَاۡسٍ مِّنۡ مَّعِیۡنٍۭ ۙ


ইউতা-ফু‘আলাইহিম বিকা’ছিম মিম মা‘ঈন।


Mufti Taqi Usmani

They will be served with a cup from a flowing drink,


মুফতী তাকী উসমানী

তাদেরকে ঘুরে ঘুরে পরিবেশন করা হবে এমন স্বচ্ছ সুরাপাত্র


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাদেরকে ঘুরে ফিরে পরিবেশন করা হবে স্বচ্ছ পানপাত্র।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তাদেরকে ঘুরে ঘুরে পরিবেশন করা হবে বিশুদ্ধ সুরাপূর্ণ পাত্রে।


মাওলানা জহুরুল হক

তাদের কাছে ঘুরে ফিরে পরিবেশন করা হবে নির্মল ফোয়ারা থেকে এক শরবতের পাত্র, --


৪৬


بَیۡضَآءَ لَذَّۃٍ لِّلشّٰرِبِیۡنَ ۚۖ


বাইদাআ লাযযাতিল লিশশা-রিবীন।


Mufti Taqi Usmani

(that will be) white (and) delicious for those who drink.


মুফতী তাকী উসমানী

যা হবে সাদা রংয়ের, পানকারীদের জন্য সুস্বাদু।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

সুশুভ্র, যা পানকারীদের জন্যে সুস্বাদু।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

শুভ্র উজ্জ্বল, যা হবে পানকারীদের জন্যে সুস্বাদু।


মাওলানা জহুরুল হক

সাদা সুস্বাদু পানকারীদের জন্য।


৪৭


لَا فِیۡہَا غَوۡلٌ وَّلَا ہُمۡ عَنۡہَا یُنۡزَفُوۡنَ


লা-ফীহা-গাওলুওঁ ওয়ালা-হুম ‘আনহা-ইউনঝাফূন।


Mufti Taqi Usmani

There will be no headache therein, nor will they be intoxicated with it,


মুফতী তাকী উসমানী

তাতে মাথা ঘুরবে না এবং তাতে তারা হবে না মাতাল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাতে মাথা ব্যথার উপাদান নেই এবং তারা তা পান করে মাতালও হবে না।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এতে ক্ষতিকর কিছু থাকবে না এবং এতে তারা মাতালও হবে না,


মাওলানা জহুরুল হক

এতে মাথাব্যথা নেই, আর তারা এ থেকে মাতালও হবে না।


৪৮


وَعِنۡدَہُمۡ قٰصِرٰتُ الطَّرۡفِ عِیۡنٌ ۙ


ওয়া ‘ইনদাহুম কা-সিরা-তুত্তারফি ‘ঈন।


Mufti Taqi Usmani

and by their side there will be females restricting their gazes (to their husbands), having pretty big eyes,


মুফতী তাকী উসমানী

তাদের কাছে থাকবে ডাগর চোখের নারী, যাদের দৃষ্টি (আপন-আপন স্বামীতে) থাকবে নিবদ্ধ। ১০


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাদের কাছে থাকবে নত, আয়তলোচনা তরুণীগণ।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তাদের সঙ্গে থাকবে আনতনয়না, আয়তলোচনা হূরীগণ।


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাদের কাছে থাকবে সলাজ-নম্র আয়তলোচন, --


তাফসীরঃ

১০. এ আয়াতসমূহে যে নারীদের ছবি আঁকা হয়েছে, তারা হল জান্নাতের হুর। তাদের দৃষ্টি আপন-আপন স্বামীতেই আবদ্ধ থাকবে। অন্য কারও দিকে তারা চোখ তুলে তাকাবে না। আয়াতের আরও একটি ব্যাখ্যা আছে। কোন কোন মুফাসসির বলেন, তারা (এমনি তো অকল্পনীয় রূপসী হবেই, তাছাড়াও) আপন-আপন স্বামীদের চোখে এতটাই সুন্দরী হবে যে, তারা তাদের অন্য কোন নারীর দিকে আকৃষ্টই হতে দেবে না।


৪৯


کَاَنَّہُنَّ بَیۡضٌ مَّکۡنُوۡنٌ


কাআন্নাহুন্না বাইদুম মাকনূন।


Mufti Taqi Usmani

as if they were eggs hidden (under feathers, protected from pollution).


মুফতী তাকী উসমানী

(তাদের নিখুঁত অস্তিত্ব এমন) যেন তারা (ধুলোবালি হতে) লুকিয়ে রাখা ডিম।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যেন তারা সুরক্ষিত ডিম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তারা যেন সুরক্ষিত ডিম্ব।


মাওলানা জহুরুল হক

যেন তারা সুরক্ষিত ডিম।


৫০


فَاَقۡبَلَ بَعۡضُہُمۡ عَلٰی بَعۡضٍ یَّتَسَآءَلُوۡنَ


ফাআকবালা বা‘দুহুম ‘আলা-বা‘দিইঁ ইয়াতাছাআলূন।


Mufti Taqi Usmani

Then they will turn to each other asking questions mutually.


মুফতী তাকী উসমানী

অতঃপর জান্নাতবাসীগণ একে অন্যের সামনা-সামনি হয়ে পরস্পরকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর তারা একে অপরের দিকে মুখ করে জিজ্ঞাসাবাদ করবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তারা একে অপরের সামনাসামনি হয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করবে।


মাওলানা জহুরুল হক

তখন তাদের কেউ কেউ অন্যদের দিকে এগিয়ে যাবে পরস্পরকে জিজ্ঞাসাবাদ করে।


৫১


قَالَ قَآئِلٌ مِّنۡہُمۡ اِنِّیۡ کَانَ لِیۡ قَرِیۡنٌ ۙ


কা-লা কা-ইলুম মিনহুম ইন্নী কা-না লী কারীন।


Mufti Taqi Usmani

A speaker from them will say, “I had a companion (in the worldly life)


মুফতী তাকী উসমানী

তাদের এক বক্তা বলবে, আমার ছিল এক সাথী,


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাদের একজন বলবে, আমার এক সঙ্গী ছিল।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তাদের কেউ বলবে, ‘আমার ছিল এক সঙ্গী;


মাওলানা জহুরুল হক

তাদের মধ্যে কোনো এক বক্তা বলবে -- "আমার অবশ্য এক বন্ধু ছিল,


৫২


یَّقُوۡلُ اَئِنَّکَ لَمِنَ الۡمُصَدِّقِیۡنَ


ইয়াকূ লুআইন্নাকা লামিনাল মুসাদ্দিকীন।


Mufti Taqi Usmani

who used to say (to me), “Are you one of those who believe?


মুফতী তাকী উসমানী

সে (আমাকে) বলত, সত্যিই কি তুমি তাদের একজন, যারা (আখেরাতের জীবনকে) সত্য মনে করে?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

সে বলত, তুমি কি বিশ্বাস কর যে,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘সে বলত, ‘তুমি কি এতে বিশ্বাসী যে,


মাওলানা জহুরুল হক

"সে বলত, 'তুমি কি নিশ্চয়ই সমর্থনকারীদের মধ্যেকার?


৫৩


ءَاِذَا مِتۡنَا وَکُنَّا تُرَابًا وَّعِظَامًا ءَاِنَّا لَمَدِیۡنُوۡنَ


আইযা-মিতনা-ওয়া কুন্না-তুরা-বাওঁ ওয়া ‘ইজা-মান আইন্না-লামাদীনূন।


Mufti Taqi Usmani

Is it when we have died and become dust and bones? Is it true that we are going to be recompensed (for our deeds)?”


মুফতী তাকী উসমানী

আমরা যখন মরে মাটি ও অস্থিতে পরিণত হবো, তখন কি বাস্তবিকই আমাদেরকে (আমাদের কৃতকর্মের) প্রতিফল দেওয়া হবে?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমরা যখন মরে যাব এবং মাটি ও হাড়ে পরিণত হব, তখনও কি আমরা প্রতিফল প্রাপ্ত হব?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘আমরা যখন মরে যাব এবং আমরা মৃত্তিকা ও অস্থিতে পরিণত হব তখনও কি আমাদেরকে প্রতিফল দেওয়া হবে?’


মাওলানা জহুরুল হক

কী! যখন আমরা মরে যাব এবং ধূলোমাটি ও হাড়গোড় হয়ে যাব, তখন কি আমরা ঠিকঠিকই প্রতিফল ভোগ করব’?


৫৪


قَالَ ہَلۡ اَنۡتُمۡ مُّطَّلِعُوۡنَ


কা-লা হাল আনতুম মুত্তালি‘ঊন।


Mufti Taqi Usmani

He (the speaker) will say (to other people in Paradise) “Would you like to have a look (at Jahannam to find out what happened to that companion of mine)?”


মুফতী তাকী উসমানী

সেই জান্নাতী (অন্য জান্নাতীদেরকে) বলবে, তোমরা কি উকি মেরে (আমার সেই সাথীকে) দেখতে চাও?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আল্লাহ বলবেন, তোমরা কি তাকে উকি দিয়ে দেখতে চাও?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আল্লাহ্ বলবেন, ‘তোমরা কি তাকে দেখতে চাও ?’


মাওলানা জহুরুল হক

সে বলবে -- "তোমরা কি উঁকি দিয়ে দেখবে?"


৫৫


فَاطَّلَعَ فَرَاٰہُ فِیۡ سَوَآءِ الۡجَحِیۡمِ


ফাত্তালা‘আ ফারাআ-হু ফী ছাওয়াইল জাহীম।


Mufti Taqi Usmani

So he will look and will see him in the middle of Jahannam.


মুফতী তাকী উসমানী

তারপর সে নিজে (জাহান্নামে) উঁকি মারবে, তখন সে তাকে দেখতে পাবে জাহান্নামের মাঝখানে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অপর সে উকি দিয়ে দেখবে এবং তাকে জাহান্নামের মাঝখানে দেখতে পাবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরপর সে ঝুঁকিয়া দেখবে এবং একে দেখতে পাবে জাহান্নামের মধ্যস্থলে;


মাওলানা জহুরুল হক

তখন সে উঁকি দেবে আর ওকে দুযখের কেন্দ্রস্থলে দেখতে পাবে।


৫৬


قَالَ تَاللّٰہِ اِنۡ کِدۡتَّ لَتُرۡدِیۡنِ ۙ


কা-লা তাল্লা-হি ইন কিত্তা লাতুরদীন।


Mufti Taqi Usmani

He (the speaker) will say (to his companion seen in Jahannam ), “By Allah, you were going almost to ruin me.


মুফতী তাকী উসমানী

সে (তাকে) বলবে, আল্লাহর কসম! তুমি তো আমাকে একেবারেই বরবাদ করে দিচ্ছিলে!


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

সে বলবে, আল্লাহর কসম, তুমি তো আমাকে প্রায় ধ্বংসই করে দিয়েছিলে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

বলবে, ‘আল্লাহ্ র কসম! তুমি তো আমাকে প্রায় ধ্বংসই করেছিলে,


মাওলানা জহুরুল হক

সে বলবে -- "আল্লাহ্‌র কসম! তুমি তো আমাকে প্রায় ধ্বংস করেছিলে,


৫৭


وَلَوۡلَا نِعۡمَۃُ رَبِّیۡ لَکُنۡتُ مِنَ الۡمُحۡضَرِیۡنَ


ওয়া লাওলা-নি‘মাতুরাববী লাকুনতুমিনাল মুহদারীন।


Mufti Taqi Usmani

But for the favor of my Lord, I would have been among those produced for punishment.”


মুফতী তাকী উসমানী

আমার প্রতিপালকের অনুগ্রহ না থাকলে অন্যদের সাথে আমিও ধৃত হতাম।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমার পালনকর্তার অনুগ্রহ না হলে আমিও যে গ্রেফতারকৃতদের সাথেই উপস্থিত হতাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘আমার প্রতিপালকের অনুগ্রহ না থাকলে আমিও তো হাযিরকৃত ব্যক্তিদের মধ্যে শামিল হতাম।


মাওলানা জহুরুল হক

আর আমার প্রভুর অনুগ্রহ যদি না থাকত তবে আমিও নিশ্চয় উপস্থিতদের অন্তর্ভুক্ত হতাম।


৫৮


اَفَمَا نَحۡنُ بِمَیِّتِیۡنَ ۙ


আফামা-নাহনু বিমাইয়িতীন।


Mufti Taqi Usmani

(Then the speaker will address other people of Paradise in delight and wonder, saying,) “Are we not then to die anymore


মুফতী তাকী উসমানী

(তারপর সে আনন্দাতিশয্যে তার জান্নাতী সঙ্গীদেরকে বলবে) আচ্ছা, আমাদের কি আর মৃত্যু নেই,


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এখন আমাদের আর মৃত্যু হবে না।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘আমাদের তো আর মৃত্যু হবে না


মাওলানা জহুরুল হক

"তবে কি আমরা মরতে যাচ্ছি না, --


৫৯


اِلَّا مَوۡتَتَنَا الۡاُوۡلٰی وَمَا نَحۡنُ بِمُعَذَّبِیۡنَ


ইল্লা-মাওতাতানাল ঊলা-ওয়ামা-নাহনুবিমু‘আযযাবীন।


Mufti Taqi Usmani

beyond our first death, nor are we going to be punished?”


মুফতী তাকী উসমানী

আমাদের প্রথমে যে মৃত্যু এসেছিল সেটি ছাড়া? এবং আমাদের শাস্তিও হবে না?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমাদের প্রথম মৃত্যু ছাড়া এবং আমরা শাস্তি প্রাপ্তও হব না।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘প্রথম মৃত্যুর পর এবং আমাদেরকে শাস্তিও দেওয়া হবে না!’


মাওলানা জহুরুল হক

"আমাদের প্রথমবারের মৃত্যু ব্যতীত, আর আমরা শাস্তি পেতে যাচ্ছি না।


৬০


اِنَّ ہٰذَا لَہُوَ الۡفَوۡزُ الۡعَظِیۡمُ


ইন্না হা-যা-লাহুওয়াল ফাওঝুল ‘আজীম।


Mufti Taqi Usmani

This is, indeed, the great achievement.


মুফতী তাকী উসমানী

প্রকৃতপক্ষে এটাই মহা সাফল্য।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

নিশ্চয় এই মহা সাফল্য।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এটা তো মহাসাফল্য।


মাওলানা জহুরুল হক

নিশ্চয়ই এই -- এটিই তো মহাসাফল্য!


৬১


لِمِثۡلِ ہٰذَا فَلۡیَعۡمَلِ الۡعٰمِلُوۡنَ


লিমিছলি হা-যা-ফাল ইয়া‘মালিল ‘আ-মিলূন।


Mufti Taqi Usmani

For this kind (of achievement), all workers must work.


মুফতী তাকী উসমানী

এ রকম সাফল্যের জন্যই আমলকারীদের আমল করা উচিত।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এমন সাফল্যের জন্যে পরিশ্রমীদের পরিশ্রম করা উচিত।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এইরূপ সাফল্যের জন্যে সাধকদের উচিত সাধনা করা,


মাওলানা জহুরুল হক

এর অনুরূপ অবস্থার জন্য তবে কর্মীরা কাজ করে যাক।


৬২


اَذٰلِکَ خَیۡرٌ نُّزُلًا اَمۡ شَجَرَۃُ الزَّقُّوۡمِ


আযা-লিকা খাইরুন নুঝুলান আম শাজারাতুঝ ঝাককূম।


Mufti Taqi Usmani

Is that (blissful Paradise) better for hospitality or the tree of zaqqūm ?


মুফতী তাকী উসমানী

বল তো, এই আতিথেয়তা উত্তম, না যাক্কুম গাছ?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এই কি উত্তম আপ্যায়ন, না যাক্কুম বৃক্ষ?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আপ্যায়নের জন্যে কি এটাই শ্রেয় না যাক্কুম বৃক্ষ ?


মাওলানা জহুরুল হক

এইটিই অধিক ভাল আপ্যায়ন, না যাক্কুম গাছ?


৬৩


اِنَّا جَعَلۡنٰہَا فِتۡنَۃً لِّلظّٰلِمِیۡنَ


ইন্না-জা‘আলনা-হা-ফিতনাতাল লিজ্জা-লিমীন।


Mufti Taqi Usmani

We have made it a test for the unjust.


মুফতী তাকী উসমানী

আমি সে গাছকে জালেমদের জন্য এক পরীক্ষার বিষয় বানিয়ে দিয়েছি। ১১


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি যালেমদের জন্যে একে বিপদ করেছি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

জালিমদের জন্যে আমি এটা সৃষ্টি করেছি পরীক্ষাস্বরূপ,


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ আমরা এটিকে সৃষ্টি করেছি দুরাচারীদের জন্য পরীক্ষা স্বরূপ।


তাফসীরঃ

১১. কুরআন মাজীদ যখন জানাল, জাহান্নামে যাক্কুম গাছ থাকবে এবং তা হবে জাহান্নামবাসীদের খাদ্য, কাফেরগণ তা শুনে হাসি-ঠাট্টা শুরু করে দিল। তারা বলতে লাগল, আগুনের মধ্যে গাছ থাকবে কি করে? আল্লাহ তাআলা বলছেন, যাক্কুম গাছের কথা উল্লেখ করে কাফেরদেরকে একটা পরীক্ষার মধ্যে ফেলা হচ্ছে। দেখা হচ্ছে, তারা আল্লাহ তাআলার কথাকে সত্য বলে বিশ্বাস করে, না তাকে মিথ্যা বলে উড়িয়ে দেয়।


৬৪


اِنَّہَا شَجَرَۃٌ تَخۡرُجُ فِیۡۤ اَصۡلِ الۡجَحِیۡمِ ۙ


ইন্নাহা-শাজারাতুন তাখ রুজুফীআসলিল জাহীম।


Mufti Taqi Usmani

It is a tree that comes forth in the bottom of Jahannam.


মুফতী তাকী উসমানী

বস্তুত সেটি এমন গাছ, যা জাহান্নামের তলদেশ থেকে উদগত হয়।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এটি একটি বৃক্ষ, যা উদগত হয় জাহান্নামের মূলে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এই বৃক্ষ উদ্গত হয় জাহান্নামের তলদেশ হতে,


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ এটি এমন এক গাছ যা দুযখের তলায় --


৬৫


طَلۡعُہَا کَاَنَّہٗ رُءُوۡسُ الشَّیٰطِیۡنِ


তাল‘উহা-কাআন্নাহূরুঊছুশশায়া-তীন।


Mufti Taqi Usmani

Its fruits are like the heads of devils.


মুফতী তাকী উসমানী

তার মোচা এমন, যেন তা শয়তানদের মাথা। ১২


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এর গুচ্ছ শয়তানের মস্তকের মত।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এটার মোচা যেন শয়তানের মাথা


মাওলানা জহুরুল হক

এর ফলফসল যেন শয়তানদের মুন্ডু।


তাফসীরঃ

১২. এর এক তরজমা করা হয়েছে শয়তানের মাথা। এ কারণেই কেউ কেউ বলেন, আমরা যাকে ফনিমনসা গাছ বলি সেটাই হল যাক্কুম গাছ।


৬৬


فَاِنَّہُمۡ لَاٰکِلُوۡنَ مِنۡہَا فَمَالِـُٔوۡنَ مِنۡہَا الۡبُطُوۡنَ ؕ


ফাইন্নাহুম লাআ-কিলূনা মিনহা-ফামা-লিঊনা মিনহাল বুতূন।


Mufti Taqi Usmani

So, they have to eat from it and have to fill their bellies with it.


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং জাহান্নামবাসীগণ তা থেকেই খাবে এবং তা দ্বারাই পেট ভরবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

কাফেররা একে ভক্ষণ করবে এবং এর দ্বারা উদর পূর্ণ করবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

অবশ্যই এরা এটা হতে ভক্ষণ করবে এবং উদর পূর্ণ করবে এটা দিয়ে।


মাওলানা জহুরুল হক

তারা তখন নিশ্চয় এ থেকে আহার করবে আর এর দ্বারা পেট ভর্তি করবে।


৬৭


ثُمَّ اِنَّ لَہُمۡ عَلَیۡہَا لَشَوۡبًا مِّنۡ حَمِیۡمٍ ۚ


ছু ম্মা ইন্না লাহুম ‘আলাইহা- লাশাওবাম মিন হামীম।


Mufti Taqi Usmani

Then they will have, on top of it, a mixture made of boiling water.


মুফতী তাকী উসমানী

তদুপরি তারা পাবে ফুটন্ত পানির মিশ্রণ। ১৩


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তদুপরি তাদেরকে দেয়া হবে। ফুটন্ত পানির মিশ্রণ,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তদুপরি এদের জন্যে থাকবে ফুটন্ত পানির মিশ্রণ।


মাওলানা জহুরুল হক

তারপর অবশ্য তাদের জন্য এর উপরে থাকবে ফুটন্ত জলের পানীয়।


তাফসীরঃ

১৩. অর্থাৎ বিস্বাদ যাক্কুম গাছ, পুঁজ ইত্যাদির সাথে থাকবে গরম পানি মেশানো।


৬৮


ثُمَّ اِنَّ مَرۡجِعَہُمۡ لَا۠اِلَی الۡجَحِیۡمِ


ছু ম্মা ইন্না মারজি‘আহুম লা ইলাল জাহীম।


Mufti Taqi Usmani

Then, their final return is to the Fire.


মুফতী তাকী উসমানী

তারপর তাদের প্রত্যাবর্তন হবে সেই জাহান্নামেরই দিকে। ১৪


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর তাদের প্রত্যাবর্তন হবে জাহান্নামের দিকে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আর এদের গন্তব্য হবে অবশ্যই প্রজ্বলিত অগ্নির দিকে।


মাওলানা জহুরুল হক

তারপর নিশ্চয়ই তাদের প্রত্যাবর্তনস্থল হবে ভয়ঙ্কর আগুনের প্রতি।


তাফসীরঃ

১৪. অর্থাৎ এত কিছু শাস্তি ভোগের পরও তারা যে জাহান্নাম থেকে বের হতে পারবে তা নয়; বরং কোথাও ফিরবে তো সেই জাহান্নামেই ফিরবে। জাহান্নামই হবে তাদের অনন্তকালীন নিবাস।


৬৯


اِنَّہُمۡ اَلۡفَوۡا اٰبَآءَہُمۡ ضَآلِّیۡنَ ۙ


ইন্নাহুম আলফাও আ-বাআহুম দাল্লীন।


Mufti Taqi Usmani

They found their fathers on the wrong path.


মুফতী তাকী উসমানী

তারা তাদের বাপ-দাদাদেরকে পেয়েছিল বিপথগামীরূপে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা তাদের পূর্বপুরুষদেরকে পেয়েছিল বিপথগামী।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা এদের পিতৃপুরুষগণকে পেয়েছিল বিপথগামী।


মাওলানা জহুরুল হক

তারা আলবৎ তাদের পিতৃপুরুষদের পথভ্রষ্টরূপেই পেয়েছিল,


৭০


فَہُمۡ عَلٰۤی اٰثٰرِہِمۡ یُہۡرَعُوۡنَ


ফাহুম ‘আলাআ-ছা-রিহিম ইউহরা‘ঊন।


Mufti Taqi Usmani

So, they used to run in their footsteps.


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং তারা লাফিয়ে লাফিয়ে তাদেরই পদছাপ ধরে চলতে থাকে। ১৫


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর তারা তদের পদাংক অনুসরণে তৎপর ছিল।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং তাদের পদাঙ্ক অনুসরণে ধাবিত হয়েছিল।


মাওলানা জহুরুল হক

তাই তারা তাদের পদচিহ্নের অন্ধ অনুসরণ করেছিল,


তাফসীরঃ

১৫. ‘লাফিয়ে-লাফিয়ে চলা’-এর দ্বারা ইশারা করা হয়েছে যে, তারা স্বেচ্ছায়-সানন্দে পূর্বসুরীদের পথ অনুসরণ করেছিল। নিজেদের বুদ্ধি-বিবেককেও কাজে লাগায়নি এবং নবী-রাসূলদের কথায়ও কর্ণপাত করেনি।


৭১


وَلَقَدۡ ضَلَّ قَبۡلَہُمۡ اَکۡثَرُ الۡاَوَّلِیۡنَ ۙ


ওয়া লাকাদ দাল্লা কাবলাহুম আকছারুল আওওয়ালীন।


Mufti Taqi Usmani

Most of the earlier ones (too) had gone astray before them.


মুফতী তাকী উসমানী

তাদের পূর্ববর্তীদের অধিকাংশও পথভ্রষ্ট হয়েছিল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাদের পূর্বেও অগ্রবর্তীদের অধিকাংশ বিপথগামী হয়েছিল।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এদের পূর্বেও পূর্ববর্তীদের অধিকাংশ বিপথগামী হয়েছিল,


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাদের আগে অধিকাংশ পূর্ববর্তীরা বিপথে গিয়েছিল,


৭২


وَلَقَدۡ اَرۡسَلۡنَا فِیۡہِمۡ مُّنۡذِرِیۡنَ


ওয়া লাকাদ আরছালনা-ফীহিম মুনযিরীন।


Mufti Taqi Usmani

We did send warners among them.


মুফতী তাকী উসমানী

আমি তো তাদের কাছে সতর্ককারী (রাসূল)দেরকে পাঠিয়েছিলাম।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি তাদের মধ্যে ভীতি প্রদর্শনকারী প্রেরণ করেছিলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং আমি এদের মধ্যে সতর্ককারী প্রেরণ করেছিলাম।


মাওলানা জহুরুল হক

অথচ আমরা তাদের মধ্যে ইতিপূর্বে সতর্ককারীদের পাঠিয়েছিলাম,


৭৩


فَانۡظُرۡ کَیۡفَ کَانَ عَاقِبَۃُ الۡمُنۡذَرِیۡنَ ۙ


ফানজু র কাইফা কা-না ‘আ-কিবাতুল মুনযারীন।


Mufti Taqi Usmani

So look, how was the end of those warned -


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং দেখে নাও, যাদেরকে সতর্ক করা হয়েছিল তাদের পরিণাম কী হয়েছে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতএব লক্ষ্য করুন, যাদেরকে ভীতিপ্রদর্শণ করা হয়েছিল, তাদের পরিণতি কি হয়েছে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সুতরাং লক্ষ্য কর যাদেরকে সতর্ক করা হয়েছিল, তাদের পরিণাম কী হয়েছিল!


মাওলানা জহুরুল হক

সুতরাং চেয়ে দেখো কেমন হয়েছিল সতর্কীকৃতদের পরিণাম,


৭৪


اِلَّا عِبَادَ اللّٰہِ الۡمُخۡلَصِیۡنَ ٪


ইল্লা-‘ইবা-দাল্লা-হিল মুখলাসীন।


Mufti Taqi Usmani

except Allah’s chosen servants.


মুফতী তাকী উসমানী

তবে আল্লাহর মনোনীত বান্দাগণ (নিরাপদ ছিল)।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তবে আল্লাহর বাছাই করা বান্দাদের কথা ভিন্ন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তবে আল্লাহ্ র একনিষ্ঠ বান্দাদের কথা স্বতন্ত্র।


মাওলানা জহুরুল হক

শুধু আল্লাহ্‌র খাস বান্দাদের ব্যতীত।


৭৫


وَلَقَدۡ نَادٰىنَا نُوۡحٌ فَلَنِعۡمَ الۡمُجِیۡبُوۡنَ ۫ۖ


ওয়ালা কাদ না-দা-না-নূহুন ফালানি‘মাল মুজীবূন।


Mufti Taqi Usmani

And NūH did call Us (for help after he was disappointed with his people), so (We accepted his prayer, as) We are the best to respond.


মুফতী তাকী উসমানী

নূহ আমাকে ডেকেছিল (লক্ষ করে দেখ), আমি কত উত্তম সাড়াদানকারী।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আর নূহ আমাকে ডেকেছিল। আর কি চমৎকারভাবে আমি তার ডাকে সাড়া দিয়েছিলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

নূহ্ আমাকে আহ্বান করেছিল, আর আমি কত উত্তম সাড়াদানকারী।


মাওলানা জহুরুল হক

আর ইতিপূর্বে অবশ্য নূহ আমাদের আহ্বান করেছিলেন, আর আমরা কত উত্তম উত্তরদাতা।


৭৬


وَنَجَّیۡنٰہُ وَاَہۡلَہٗ مِنَ الۡکَرۡبِ الۡعَظِیۡمِ ۫ۖ


ওয়া নাজ্জাইনা-হু ওয়া আহলাহূমিনাল কারবিল ‘আজীম।


Mufti Taqi Usmani

And We delivered him and his family from the great agony,


মুফতী তাকী উসমানী

আমি তাকে ও তার পরিবারবর্গকে নাজাত দিয়েছিলাম মহাসংকট থেকে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি তাকে ও তার পরিবারবর্গকে এক মহাসংকট থেকে রক্ষা করেছিলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তাকে এবং তার পরিবারবর্গকে আমি উদ্ধার করেছিলাম মহাসংকট হতে।


মাওলানা জহুরুল হক

আর আমরা তাঁকে ও তাঁর পরিজনকে ভীষণ সংকট থেকে উদ্ধার করেছিলাম,


৭৭


وَجَعَلۡنَا ذُرِّیَّتَہٗ ہُمُ الۡبٰقِیۡنَ ۫ۖ


ওয়া জা‘আলনা- যুররিইইয়াতাহূহুমুল বাকীন।


Mufti Taqi Usmani

and made his progeny the sole survivors (from the Deluge).


মুফতী তাকী উসমানী

আর আমি তার বংশধরকেই (দুনিয়ায়) বাকি রেখেছি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং তার বংশধরদেরকেই আমি অবশিষ্ট রেখেছিলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তার বংশধরদেরকেই আমি বিদ্যমান রেখেছি বংশপরম্পরায়,


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাঁর সন্তান-সন্ততিকে আমরা বানিয়েছিলাম প্রকৃত টিকে থাকা দল,


৭৮


وَتَرَکۡنَا عَلَیۡہِ فِی الۡاٰخِرِیۡنَ ۫ۖ


ওয়া তারাকনা-‘আলাইহি ফিল আ-খিরীন।


Mufti Taqi Usmani

And We left for him (a word of praise) among the later people, (that is):


মুফতী তাকী উসমানী

পরবর্তীদের মধ্যে তার সম্পর্কে এই ঐতিহ্য চালু করেছি


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি তার জন্যে পরবর্তীদের মধ্যে এ বিষয় রেখে দিয়েছি যে,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি এটা পরবর্তীদের স্মরণে রেখেছি।


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাঁর জন্য পরবর্তীদের মধ্যে আমরা রেখেছিলাম --


৭৯


سَلٰمٌ عَلٰی نُوۡحٍ فِی الۡعٰلَمِیۡنَ


ছালা-মুন ‘আলা-নূহিন ফিল ‘আ-লামীন।


Mufti Taqi Usmani

Salām be on NūH among (the people of) all the worlds.


মুফতী তাকী উসমানী

(যে, তারা বলবে), জগদ্বাসীদের মধ্যে নূহের প্রতি সালাম (শান্তি বর্ষিত হোক)।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

বিশ্ববাসীর মধ্যে নূহের প্রতি শান্তি বর্ষিত হোক।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সমগ্র বিশ্বের মধ্যে নূহের প্রতি শান্তি বর্ষিত হোক!


মাওলানা জহুরুল হক

সমগ্র বিশ্বজগতের মধ্যে নূহের প্রতি সালাম!


৮০


اِنَّا کَذٰلِکَ نَجۡزِی الۡمُحۡسِنِیۡنَ


ইন্না-কাযা-লিকা নাজঝিল মুহছিনীন।


Mufti Taqi Usmani

Certainly, this is how We reward those who are good in their deeds.


মুফতী তাকী উসমানী

আমি সৎকর্মশীলদেরকে এভাবেই পুরস্কৃত করে থাকি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি এভাবেই সৎকর্ম পরায়নদেরকে পুরস্কৃত করে থাকি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এইভাবেই আমি সৎকর্মপরায়ণদেরকে পুরস্কৃত করে থাকি,


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ এইভাবেই আমরা সৎকর্মশীলদের প্রতিদান দিয়ে থাকি।


৮১


اِنَّہٗ مِنۡ عِبَادِنَا الۡمُؤۡمِنِیۡنَ


ইন্নাহূমিন ‘ইবা-দিনাল মু’মিনীন।


Mufti Taqi Usmani

He was one of Our believing servants.


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই সে আমার মুমিন বান্দাদের অন্তর্ভুক্ত ছিল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

সে ছিল আমার ঈমানদার বান্দাদের অন্যতম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সে ছিল আমার মু’মিন বান্দাদের অন্যতম।


মাওলানা জহুরুল হক

তিনি অবশ্যই আমাদের বিশ্বাসী বান্দাদের অন্তর্ভুক্ত ছিলেন।


৮২


ثُمَّ اَغۡرَقۡنَا الۡاٰخَرِیۡنَ


ছু ম্মা আগরাকনাল আ-খারীন।


Mufti Taqi Usmani

Then, we drowned others.


মুফতী তাকী উসমানী

অতঃপর আমি অন্যদেরকে পানিতে নিমজ্জিত করি। ১৬


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর আমি অপরাপর সবাইকে নিমজ্জত করেছিলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

অন্য সকলকে আমি নিমজ্জিত করেছিলাম।


মাওলানা জহুরুল হক

আর আমরা অন্যান্যদের ডুবিয়ে দিয়েছিলাম।


তাফসীরঃ

১৬. হযরত নূহ আলাইহিস সালাম ও তার কওমের ঘটনা বিস্তারিতভাবে সূরা হুদে (১১ : ৩৬) গত হয়েছে।


৮৩


وَاِنَّ مِنۡ شِیۡعَتِہٖ لَاِبۡرٰہِیۡمَ ۘ


ওয়া ইন্না মিন শী‘আতিহী লাইবরা-হীম।


Mufti Taqi Usmani

And certainly one of his adherents was Ibrāhīm.


মুফতী তাকী উসমানী

এবং তারই অনুগামীদের অন্তর্ভুক্ত ছিল ইবরাহীমও।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আর নূহ পন্থীদেরই একজন ছিল ইব্রাহীম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আর ইব্রাহীম তো তার অনুগামীদের অন্তর্ভুক্ত।


মাওলানা জহুরুল হক

আর নিশ্চয়ই তাঁর পশ্চাদবর্তীদের মধ্যে ছিলেন ইব্রাহীম।


৮৪


اِذۡ جَآءَ رَبَّہٗ بِقَلۡبٍ سَلِیۡمٍ


ইযজাআ রাব্বাহূবিকালবিন ছালীম।


Mufti Taqi Usmani

(Remember) when he came to his Lord with a pure heart,


মুফতী তাকী উসমানী

যখন সে তার প্রতিপালকের কাছে উপস্থিত হয়েছিল বিশুদ্ধ অন্তরে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যখন সে তার পালনকর্তার নিকট সুষ্ঠু চিত্তে উপস্থিত হয়েছিল,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

স্মরণ কর, সে তার প্রতিপালকের নিকট উপস্থিত হয়েছিল বিশুদ্ধচিত্তে;


মাওলানা জহুরুল হক

স্মরণ কর! তিনি তাঁর প্রভুর কাছে এসেছিলেন বিশুদ্ধ চিত্ত নিয়ে, --


৮৫


اِذۡ قَالَ لِاَبِیۡہِ وَقَوۡمِہٖ مَاذَا تَعۡبُدُوۡنَ ۚ


ইযকা-লা লিআবীহি ওয়া কাওমিহী মা-যা-তা‘বুদূন।


Mufti Taqi Usmani

when he said to his father and his people, “What is that which you worship?


মুফতী তাকী উসমানী

যখন সে তার পিতা ও তার সম্প্রদায়কে বলল, তোমরা কোন জিনিসের ইবাদত করছ?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যখন সে তার পিতা ও সম্প্রদায়কে বলেছিলঃ তোমরা কিসের উপাসনা করছ?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

যখন সে তার পিতা ও তার সম্প্রদায়কে জিজ্ঞাসা করেছিল, ‘তোমরা কিসের পূজা করছো ?


মাওলানা জহুরুল হক

যখন তাঁর পিতৃপুরুষকে ও তাঁর স্বজাতিকে তিনি বলেছিলেন -- "তোমরা কিসের উপাসনা করছ?


৮৬


اَئِفۡکًا اٰلِہَۃً دُوۡنَ اللّٰہِ تُرِیۡدُوۡنَ ؕ


আইফকান আ-লিহাতান দূনাল্লা-হি তুরীদূন।


Mufti Taqi Usmani

Do you wish (to have) fallacious gods other than Allah?


মুফতী তাকী উসমানী

তোমরা কি আল্লাহকে ছেড়ে অলীক উপাস্যদেরকে কামনা করছ?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমরা কি আল্লাহ ব্যতীত মিথ্যা উপাস্য কামনা করছ?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘তোমরা কি আল্লাহ্ র পরিবর্তে অলীক ইলাহ্গুলিকে চাও ?


মাওলানা জহুরুল হক

"তোমরা আল্লাহকে বাদ দিয়ে কি এক মিথ্যা উপাস্যকেই কামনা কর?


৮৭


فَمَا ظَنُّکُمۡ بِرَبِّ الۡعٰلَمِیۡنَ


ফমা-জান্নুকুম বিরাব্বিল ‘আ-লামীন।


Mufti Taqi Usmani

Then, what do you think about the Lord of the worlds?”


মুফতী তাকী উসমানী

তো যেই সত্তা সমস্ত জগতের প্রতিপালক তার সম্পর্কে তোমাদের কী ধারণা?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

বিশ্বজগতের পালনকর্তা সম্পর্কে তোমাদের ধারণা কি?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘জগতসমূহের প্রতিপালক সম্বন্ধে তোমাদের ধারণা কী ?’


মাওলানা জহুরুল হক

তাহলে বিশ্বজগতের প্রভু সন্বন্ধে কী তোমাদের ধারণা?


৮৮


فَنَظَرَ نَظۡرَۃً فِی النُّجُوۡمِ ۙ


ফানাজারা নাজরাতান ফিননুজূম।


Mufti Taqi Usmani

Then, he cast a look at the stars,


মুফতী তাকী উসমানী

এর (কিছুকাল) পর সে তারকারাজির দিকে একবার তাকাল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর সে একবার তারকাদের প্রতি লক্ষ্য করল।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরপর সে তারকারাজির দিকে একবার তাকাল


মাওলানা জহুরুল হক

তারপর তারকারাজির দিকে তিনি একনজর তাকালেন,


৮৯


فَقَالَ اِنِّیۡ سَقِیۡمٌ


ফাকা-লা ইন্নী ছাকীম।


Mufti Taqi Usmani

and then said, “I feel indisposed”


মুফতী তাকী উসমানী

এবং বলল, আমি অসুস্থ। ১৭


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং বললঃ আমি পীড়িত।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং বলল, ‘আমি অসুস্থ।’


মাওলানা জহুরুল হক

তখন তিনি বললেন -- "আমি যারপর নাই বিরক্ত!"


তাফসীরঃ

১৭. হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালামকে তার কওমের লোকজন এক মেলায় নিয়ে যেতে চাচ্ছিল। এক তো তিনি সে মেলায় শরীক হতে চাচ্ছিলেন না, দ্বিতীয়ত তার অভিপ্রায় ছিল, যখন লোকজন সব মেলায় চলে যাবে এবং মন্দির খালি হয়ে যাবে, তখন সেই সুযোগে তিনি মূর্তিগুলি ভেঙ্গে ফেলবেন, যাতে তারা যাদেরকে উপাস্য বানিয়ে রেখেছে, তাদের অসহায়ত্ব নিজ চোখে দেখে নেয়। তাই তিনি অসুস্থ থাকার ওজর দেখালেন। হতে পারে তখন বাস্তবিকই তার মন-মেজাজ ভালো ছিল না। কিংবা তিনি বোঝাতে চাচ্ছিলেন, তোমাদের কুফর ও শিরক দেখে রূহানীভাবে আমি অসুস্থ হয়ে পড়েছি।


৯০


فَتَوَلَّوۡا عَنۡہُ مُدۡبِرِیۡنَ


ফাতওয়াল্লাও ‘আনহু মুদবিরীন।


Mufti Taqi Usmani

So they went away from him, turning their backs.


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং তারা পৃষ্ঠ ঘুরিয়ে তার কাছ থেকে চলে গেল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর তারা তার প্রতি পিঠ ফিরিয়ে চলে গেল।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরপর এরা তাকে পশ্চাতে রেখে চলে গেল।


মাওলানা জহুরুল হক

সুতরাং তারা তাঁর কাছ থেকে বিমুখ হয়ে ফিরে গেল।


৯১


فَرَاغَ اِلٰۤی اٰلِہَتِہِمۡ فَقَالَ اَلَا تَاۡکُلُوۡنَ ۚ


ফারা-গা ইলাআ-লিহাতিহিম ফাকা-লা আলা-তা’কুলূন।


Mufti Taqi Usmani

And he made his way to their ‘gods’ and said to them, “Why would you not eat?


মুফতী তাকী উসমানী

তারপর সে তাদের (হাতেগড়া) উপাস্যদের (অর্থাৎ মূর্তিদের) কাছে ঢুকে পড়ল এবং (তাদেরকে) বলল, তোমরা যে খাচ্ছ না?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর সে তাদের দেবালয়ে, গিয়ে ঢুকল এবং বললঃ তোমরা খাচ্ছ না কেন?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

পরে সে সন্তর্পণে এদের দেবতাগুলির নিকট গেল এবং বলল, ‘তোমরা খাদ্য গ্রহণ করছো না কেন ?’


মাওলানা জহুরুল হক

তারপর তিনি তাদের উপাস্যদের কাছে ফিরে গেলেন এবং বললেন -- "তোমরা খাও না কেন?


৯২


مَا لَکُمۡ لَا تَنۡطِقُوۡنَ


মা-লাকুম লা-তানতিকূন।


Mufti Taqi Usmani

What is wrong with you that you do not speak?”


মুফতী তাকী উসমানী

কী ব্যাপার, তোমরা কথা বলছ না যে?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমাদের কি হল যে, কথা বলছ না?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘তোমাদের কী হয়েছে যে, তোমরা কথা বল না ?’


মাওলানা জহুরুল হক

তোমাদের কী হয়েছে যে তোমরা কথা বলছ না?


৯৩


فَرَاغَ عَلَیۡہِمۡ ضَرۡبًۢا بِالۡیَمِیۡنِ


ফারা-গা ‘আলাইহিম দারবাম বিলইয়ামীন।


Mufti Taqi Usmani

Then he attacked them striking with his right hand.


মুফতী তাকী উসমানী

অতঃপর সবলে আঘাত হানতে তাদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর সে প্রবল আঘাতে তাদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ল।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরপর সে এদের ওপর সবলে আঘাত হানিল।


মাওলানা জহুরুল হক

কাজেই তিনি তাদের উপরে লাফিয়ে পড়লেন ডানহাতে আঘাত করে।


৯৪


فَاَقۡبَلُوۡۤا اِلَیۡہِ یَزِفُّوۡنَ


ফাআকবালূইলাইহি ইয়াঝিফফূন।


Mufti Taqi Usmani

Then, they (the idolaters) came to him rushing.


মুফতী তাকী উসমানী

অনন্তর তারা (কওমের লোকজন) তার কাছে দৌড়ে আসল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তখন লোকজন তার দিকে ছুটে এলো ভীত-সন্ত্রস্ত পদে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তখন ঐ লোকগুলি তার দিকে ছুটে এলো।


মাওলানা জহুরুল হক

তখন তারা তাঁর দিকে ছুটে এল হতবুদ্ধি হয়ে।


৯৫


قَالَ اَتَعۡبُدُوۡنَ مَا تَنۡحِتُوۡنَ ۙ


কা-লা আতা‘বুদূনা মা-তানহিতূন।


Mufti Taqi Usmani

He said, “Do you worship what is carved by yourselves,


মুফতী তাকী উসমানী

ইবরাহীম বলল, তোমরা কি নিজেরা যা বানাও তার পূজা কর?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

সে বললঃ তোমরা স্বহস্ত নির্মিত পাথরের পূজা কর কেন?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সে বলল, ‘তোমরা নিজেরা যাদেরকে খোদাই করে নির্মাণ কর তোমরা কি তাদেরই পূজা কর ?


মাওলানা জহুরুল হক

তিনি বললেন -- "তোমরা কি তার উপাসনা কর যা তোমরা কেটে বানাও,


৯৬


وَاللّٰہُ خَلَقَکُمۡ وَمَا تَعۡمَلُوۡنَ


ওয়াল্লা-হু খালাকাকুম ওয়ামা-তা‘মালূন।


Mufti Taqi Usmani

while Allah has created you and what you make?”


মুফতী তাকী উসমানী

অথচ আল্লাহ সৃষ্টি করেছেন তোমাদেরকে এবং তোমরা যা-কিছু তৈরি কর তাদেরকেও।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অথচ আল্লাহ তোমাদেরকে এবং তোমরা যা নির্মাণ করছ সবাইকে সৃষ্টি করেছেন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘প্রকৃতপক্ষে আল্লাহ্ই সৃষ্টি করেছেন তোমাদেরকে এবং তোমরা যা তৈরি কর তাও।’


মাওলানা জহুরুল হক

অথচ আল্লাহ্ তোমাদের সৃষ্টি করেছেন আর তোমরা যা তৈরি কর তাও?


৯৭


قَالُوا ابۡنُوۡا لَہٗ بُنۡیَانًا فَاَلۡقُوۡہُ فِی الۡجَحِیۡمِ


কা-লুবনূলাহূবুনইয়া-নান ফাআলকূহু ফিল জাহীম।


Mufti Taqi Usmani

They said, “Build for him a structure, and throw him into the blazing fire.”


মুফতী তাকী উসমানী

তারা বলল, ইবরাহীমের জন্য একটি ইমারত বানাও এবং তাকে (তার ভেতর) জ্বলন্ত আগুনে নিক্ষেপ কর।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা বললঃ এর জন্যে একটি ভিত নির্মাণ কর এবং অতঃপর তাকে আগুনের স্তুপে নিক্ষেপ কর।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা বলল, ‘এটার জন্যে এক ইমারত নির্মাণ কর, এরপর এটাকে জ্বলন্ত অগ্নিতে নিক্ষেপ কর।’


মাওলানা জহুরুল হক

তারা বললে -- "এর জন্য এক কাঠামো তৈরি কর, তারপর তাকে নিক্ষেপ কর সেই ভয়ঙ্কর আগুনে।"


৯৮


فَاَرَادُوۡا بِہٖ کَیۡدًا فَجَعَلۡنٰہُمُ الۡاَسۡفَلِیۡنَ


ফাআরাদূবিহী কাইদান ফাজা‘আলনা-হুমুল আছফালীন।


Mufti Taqi Usmani

So, they intended to bring harm to him, but We made them the lowest (by frustrating their plan).


মুফতী তাকী উসমানী

এভাবে তারা ইবরাহীমের বিরুদ্ধে এক দূরভিসন্ধি করতে চাইল। কিন্তু আমি তাদেরকে হেয় করে ছাড়লাম। ১৮


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারপর তারা তার বিরুদ্ধে মহা ষড়যন্ত্র আঁটতে চাইল, কিন্তু আমি তাদেরকেই পরাভূত করে দিলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা তার বিরুদ্ধে চক্রান্তের সংকল্প করেছিল; কিন্তু আমি এদেরকে অতিশয় হেয় করে দিলাম।


মাওলানা জহুরুল হক

কাজেই তারা তাঁর বিরুদ্ধে এক চক্রান্ত ফাঁদলো, কিন্তু আমরা তাদের হীন বানিয়ে দিলাম।


তাফসীরঃ

১৮. অর্থাৎ তারা যে আগুন জ্বালিয়েছিল, আল্লাহ তাআলা হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালামের জন্য তা শীতল করে দিলেন। এ ঘটনা বিস্তারিতভাবে সূরা আম্বিয়ায় (২১ : ৩২) চলে গেছে। টীকাসহ দ্রষ্টব্য।


৯৯


وَقَالَ اِنِّیۡ ذَاہِبٌ اِلٰی رَبِّیۡ سَیَہۡدِیۡنِ


ওয়া কা-লা ইন্নী যা-হিবুন ইলা-রাববী ছাইয়াহদীন।


Mufti Taqi Usmani

And he said, “I am going to my Lord. He will show me the way.


মুফতী তাকী উসমানী

ইবরাহীম বলল, আমি আমার প্রতিপালকের কাছে যাচ্ছি। তিনিই আমাকে পথ দেখাবেন। ১৯


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

সে বললঃ আমি আমার পালনকর্তার দিকে চললাম, তিনি আমাকে পথপ্রদর্শন করবেন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সে বলল, ‘আমি আমার প্রতিপালকের দিকে চলিলাম, তিনি আমাকে অবশ্যই সৎপথে পরিচালিত করবেন;


মাওলানা জহুরুল হক

আর তিনি বললেন -- "আমি নিশ্চয়ই আমার প্রভুর দিকে যাত্রাকারী, তিনি আমাকে অচিরেই পরিচালিত করবেন।"


তাফসীরঃ

১৯. হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালামের মূল নিবাস ছিল ইরাক। এ ঘটনার পর তিনি শামে হিজরত করলেন।


১০০


رَبِّ ہَبۡ لِیۡ مِنَ الصّٰلِحِیۡنَ


রাব্বি হাবলী মিনাসসা-লিহীন।


Mufti Taqi Usmani

O my Lord, bless me with a righteous son.”


মুফতী তাকী উসমানী

হে আমার প্রতিপালক! আমাকে এমন পুত্র দান কর, যে হবে সৎলোকদের একজন।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

হে আমার পরওয়ারদেগার! আমাকে এক সৎপুত্র দান কর।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘হে আমার প্রতিপালক! আমাকে এক সৎকর্মপরায়ণ সন্তান দান কর।’


মাওলানা জহুরুল হক

আমার প্রভু! আমার জন্য সৎকর্মীদের থেকে দান করো।


১০১


فَبَشَّرۡنٰہُ بِغُلٰمٍ حَلِیۡمٍ


ফাবাশশারনা-হু বিগুলা-মিন হালীম।


Mufti Taqi Usmani

So, We gave him the good news of a forbearing boy.


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং আমি তাকে এক সহনশীল পুত্রের সুসংবাদ দিলাম। ২০


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

সুতরাং আমি তাকে এক সহনশীল পুত্রের সুসংবাদ দান করলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরপর আমি তাকে এক স্থিরবুদ্ধি পুত্রের সুসংবাদ দিলাম।


মাওলানা জহুরুল হক

সেজন্য আমরা তাঁকে সুসংবাদ দিলাম এক অমায়িক পুত্রসন্তানের।

(ads2)

(getButton) #text=(আল কোরআন বাংলা অনুবাদ সহ এক সাথে ) #icon=(link) #color=(#f5f507)

তাফসীরঃ

২০. এর দ্বারা হযরত ইসমাঈল আলাইহিস সালামকে বোঝানো হয়েছে। [এখান থেকে পরবর্তী আয়াতসমূহ দ্বারা জানা যায়, হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালাম পুত্র সন্তানের জন্য দুআ করেছিলেন, আল্লাহ তাআলা তাঁর দুআ কবুল করেছিলেন এবং সে পুত্রকেই কুরবানীর জন্য পেশ করা হয়েছিল। বর্তমান তাওরাত দ্বারাও প্রমাণ হয় হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালামের দুআর ফলে যে পুত্র জন্ম নিয়েছিলেন, তিনি হযরত ইসমাঈল আলাইহিস সালাম। দুআর ফসল হওয়ার কারণেই তাঁর নাম রাখা হয়েছিল ইসমাঈল। কেননা ইসমাঈল দু’টি শব্দের যৌগিক রূপ। সামা‘ ও ‘ঈল’। ‘সামা’ অর্থ ‘শোনা’ ও ‘ঈল’ অর্থ ‘আল্লাহ’। অর্থাৎ আল্লাহ হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালামের দুআ শুনলেন। তাওরাতে আছে, আল্লাহ তাআলা তাঁকে বললেন, ইসমাঈলের ব্যাপারে আমি তোমার কথা শুনলাম। সুতরাং এ আয়াতসমূহে তাঁর যে পুত্রের কথা বলা হচ্ছে তিনি হযরত ইসহাক নন; বরং হযরত ইসমাঈল। তাছাড়া যবাহর বৃত্তান্ত বর্ণনা করার পর হযরত ইসহাক আলাইহিস সালামের জন্মের সুসংবাদ স্বতন্ত্রভাবে দেওয়া হয়েছে, যেমন সামনে এ সূরাতেই ইরশাদ হয়েছে ‘এবং আমি তাকে সুসংবাদ দিলাম ইসহাকের, যে হবে একজন নবী-নেককারদের অন্তর্ভুক্ত’ (আয়াত-১১২)। এটা নির্দেশ করে ‘আমি তাকে সুসংবাদ দিলাম একজন সহনশীল পুত্রের’ (আয়াত-১০১)-এর দ্বারা যে পুত্রের সুসংবাদ দেওয়া হয়েছে, তিনি ইসহাক ছাড়া অন্য কেউ। তাছাড়া হযরত ইসহাক সম্পর্কে সুসংবাদ দানকালে তাকে নবী বানানোরও সুসংবাদ দেওয়া হয়েছে এবং সূরা হুদে সেই সঙ্গে পৌত্র হযরত ইয়াকুবের জন্মেরও সুসংবাদ রয়েছে। এ অবস্থায় কী করে ধারণা করা যায় যে, যাবীহ (যাকে যবাহের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছিল, তিনি) ছিলেন ইসহাক? তাহলে তো তার অর্থ দাঁড়ায় নবী বানানো ও ইয়াকুবের পিতা হওয়ার আগেই তাকে যবাহ করে দেওয়া হবে। কাজেই এটা অনস্বীকার্য যে, যাবীহ হযরত ইসমাঈল (আ.)-ই, অন্য কেউ নন, যার জন্মের সুসংবাদ দানের সাথে নবী বানানো ও সন্তান দানের সুসংবাদ দেওয়া হয়নি, যদিও পরবর্তীকালে তিনি উভয়ই লাভ করেছিলেন। আর যাবীহ যেহেতু ছিলেন তিনি সে কারণেই তাঁর কুরবানীর স্মারকরূপে কুরবানী দানের প্রথা বরাবর তাঁরই বংশধরদের মধ্যে চলে আসছে এবং আজও এ প্রথা তাঁর রূহানী সন্তান তথা মুসলিমগণই পালন করে যাচ্ছে। বর্তমান তাওরাতে স্পষ্ট আছে, কুরবানীর স্থান ছিল মূরা বা ‘মুরয়া’। ইয়াহুদী ও খ্রিস্টানগণ টেনে কষে এর বিভিন্ন সম্ভাবনা বের করার চেষ্টা করেছে, অথচ এটা অতি পরিষ্কার যে, শব্দটি পবিত্র কাবা সংলগ্ন ‘মারওয়া’কেই নির্দেশ করে...। তাওরাতে আরও আছে, হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালামকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল, তিনি যেন তার একমাত্র পুত্রকে যবাহ করেন। দু’ পুত্রের মধ্যে হযরত ইসমাঈল ছিলেন বড়, ইসহাক ছোট। হযরত ইসমাঈলের বর্তমানে হযরত ইসহাক একমাত্র পুত্র নন যে, আমরা তাকে যাবীহ সাব্যস্ত করব। যবাহকালে হযরত ইসমাঈল ছিলেন হযরত ইবরাহীম (আ.)-এর একমাত্র পুত্র। সুতরাং সর্ব বিচারে তিনিই যাবীহ -অনুবাদক, তাফসীরে উসমানী অবলম্বনে]।


১০২


فَلَمَّا بَلَغَ مَعَہُ السَّعۡیَ قَالَ یٰبُنَیَّ اِنِّیۡۤ اَرٰی فِی الۡمَنَامِ اَنِّیۡۤ اَذۡبَحُکَ فَانۡظُرۡ مَاذَا تَرٰی ؕ قَالَ یٰۤاَبَتِ افۡعَلۡ مَا تُؤۡمَرُ ۫ سَتَجِدُنِیۡۤ اِنۡ شَآءَ اللّٰہُ مِنَ الصّٰبِرِیۡنَ


ফালাম্মা-বালাগা মা‘আহুছ ছা‘ইয়া কা-লা ইয়া-বুনাইইয়া ইন্নীআরা-ফিল মানা-মি আন্নী আযবাহুকা ফানজুর মা-যা-তারা- কা-লা ইয়াআবাতিফ‘আল মা-তু’মারু ছাতাজিদুনীইন শা-আল্লা-হু মিনাসসা-বিরীন।


Mufti Taqi Usmani

Thereafter, when he (the boy) reached an age in which he could work with him, he (Ibrāhīm) said, “O my little son, I have seen in a dream that I am slaughtering you, so consider, what is your opinion?” He said, “O my dear father, do what you have been ordered to do. You will find me, inshā’allah , (if Allah wills) one of those who endure patiently.”


মুফতী তাকী উসমানী

অতঃপর সে পুত্র যখন ইবরাহীমের সাথে চলাফেরা করার উপযুক্ত হল, তখন সে বলল, বাছা! আমি স্বপ্নে দেখছি যে, তোমাকে যবাহ করছি। এবার চিন্তা করে বল, তোমার অভিমত কী। পুত্র বলল, আব্বাজী! আপনাকে যার নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে আপনি সেটাই করুন। ২১ ইনশাআল্লাহ আপনি আমাকে সবরকারীদের একজন পাবেন।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর সে যখন পিতার সাথে চলাফেরা করার বয়সে উপনীত হল, তখন ইব্রাহীম তাকে বললঃ বৎস! আমি স্বপ্নে দেখিযে, তোমাকে যবেহ করছি; এখন তোমার অভিমত কি দেখ। সে বললঃ পিতাঃ! আপনাকে যা আদেশ করা হয়েছে, তাই করুন। আল্লাহ চাহে তো আপনি আমাকে সবরকারী পাবেন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরপর সে যখন তার পিতার সঙ্গে কাজ করার মত বয়সে উপনীত হল তখন ইবরাহীম বলল, ‘বৎস! আমি স্বপ্নে দেখি যে, তোমাকে আমি যবেহ্ করছি, এখন তোমার অভিমত কি বল ?’ সে বলল, ‘হে আমার পিতা! আপনি যা আদিষ্ট হয়েছেন তাই করুন। আল্লাহ্ র ইচ্ছায় আপনি আমাকে ধৈর্যশীল পাবেন।’


মাওলানা জহুরুল হক

তারপর যখন সে তাঁর সঙ্গে কাজ করার যোগ্যতায় উপনীত হল তখন তিনি বললেন -- "হে আমার পুত্রধন! নিঃসন্দেহ আমি স্বপ্নে দেখলাম যে আমি তোমাকে কুরবানি করছি, অতএব ভেবে দেখো -- কী তুমি দেখছো ।" তিনি বললেন -- "হে আমার আব্বা! আপনি তাই করুন যা আপনাকে আদেশ করা হয়েছে। ইন-শা-আল্লাহ্ আপনি এখনি আমাকে পাবেন অধ্যবসায়ীদের অন্তর্ভুক্ত।


তাফসীরঃ

২১. যদিও এটা ছিল এক স্বপ্ন, কিন্তু নবীগণের স্বপ্নও ওহী হয়ে থাকে। তাই হযরত ইসমাঈল আলাইহিস সালাম তাকে আল্লাহ তাআলার আদেশ সাব্যস্ত করলেন।


১০৩


فَلَمَّاۤ اَسۡلَمَا وَتَلَّہٗ لِلۡجَبِیۡنِ ۚ


ফালাম্মাআছলামা-ওয়া তাল্লাহূলিলজাবীন।


Mufti Taqi Usmani

So, (it was a great episode) when both of them submitted themselves (to Allah’s will), and he laid him on his forehead (to slaughter him),


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং (সেটা ছিল এক বিস্ময়কর দৃশ্য) যখন তারা উভয়ে আনুগত্য প্রকাশ করল এবং পিতা পুত্রকে কাত করে শুইয়ে দিল। ২২


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যখন পিতা-পুত্র উভয়েই আনুগত্য প্রকাশ করল এবং ইব্রাহীম তাকে যবেহ করার জন্যে শায়িত করল।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

যখন তারা উভয়ে আনুগত্য প্রকাশ করল এবং ইব্রাহীম তার পুত্রকে কাত করে শায়িত করল,


মাওলানা জহুরুল হক

সুতরাং তাঁরা উভয়ে যখন আ‌ত্মসমর্পণ করলেন এবং তিনি তাঁকে ভূপাতিত করলেন কপালের জন্য,


তাফসীরঃ

২২. পিতা-পুত্র উভয়ে তো নিজেদের পক্ষ থেকে আল্লাহ তাআলার হুকুম তামিল প্রসঙ্গে এটাই ধরে নিয়েছিলেন যে, পিতা পুত্রকে যবাহ করবেন। তাই হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালাম পুত্রকে কাত করে শোয়ালেন, যাতে ছুরি চালানোর সময় চেহারা নজরে না পড়ে, পাছে পুত্র বাৎসল্যে মন টলে যায়।


১০৪


وَنَادَیۡنٰہُ اَنۡ یّٰۤاِبۡرٰہِیۡمُ ۙ


ওয়া না-দাইনা-হু আইঁ ইয়াইবরা-হীম।


Mufti Taqi Usmani

and then We called out to him, “O Ibrāhīm,


মুফতী তাকী উসমানী

আর আমি তাকে ডাক দিয়ে বললাম, হে ইবরাহীম!


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তখন আমি তাকে ডেকে বললামঃ হে ইব্রাহীম,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তখন আমি তাকে আহ্বান করে বললাম, ‘হে ইব্রাহীম!


মাওলানা জহুরুল হক

তখনই আমরা তাঁকে ডেকে বললাম -- "হে ইব্রাহীম!


১০৫


قَدۡ صَدَّقۡتَ الرُّءۡیَا ۚ اِنَّا کَذٰلِکَ نَجۡزِی الۡمُحۡسِنِیۡنَ


কাদ সাদ্দাকতার রু’ইয়া- ইন্না-কাযা-লিকা নাজঝিল মুহছিনীন।


Mufti Taqi Usmani

you did make the dream come true.” This is how We reward those who are good in their deeds.


মুফতী তাকী উসমানী

তুমি স্বপ্নকে সত্যে পরিণত করে দেখিয়েছ। নিশ্চয়ই আমি সৎকর্মশীলদেরকে এভাবেই পুরস্কৃত করে থাকি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তুমি তো স্বপ্নকে সত্যে পরিণত করে দেখালে! আমি এভাবেই সৎকর্মীদেরকে প্রতিদান দিয়ে থাকি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘তুমি তো স্বপ্নাদেশ সত্যই পালন করলে!’-এইভাবেই আমি সৎকর্মপরায়ণদেরকে পুরস্কৃত করে থাকি।


মাওলানা জহুরুল হক

"তুমি তো স্বপ্নাদেশ সত্যই পালন করলে। নিঃসন্দেহ এইভাবেই আমরা সৎকর্মশীলদের পুরস্কার দিয়ে থাকি।


১০৬


اِنَّ ہٰذَا لَہُوَ الۡبَلٰٓـؤُا الۡمُبِیۡنُ


ইন্না হা-যা-লাহুওয়াল বালাউল মুবীন।


Mufti Taqi Usmani

This was indeed a trial that clearly demonstrated (their obedience).


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই এটা ছিল এক স্পষ্ট পরীক্ষা।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

নিশ্চয় এটা এক সুস্পষ্ট পরীক্ষা।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

নিশ্চয়ই এটা ছিল এক স্পষ্ট পরীক্ষা।


মাওলানা জহুরুল হক

নিশ্চয়ই এটি -- এইটিই তো ছিল এক স্পষ্ট পরীক্ষা।


১০৭


وَفَدَیۡنٰہُ بِذِبۡحٍ عَظِیۡمٍ


ওয়া ফাদাইনা-হু বিযিবহিন ‘আজীম।


Mufti Taqi Usmani

And We ransomed him with a great sacrifice,


মুফতী তাকী উসমানী

এবং আমি এক মহান কুরবানীর বিনিময়ে সে শিশুকে মুক্ত করলাম। ২৩


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি তার পরিবর্তে দিলাম যবেহ করার জন্যে এক মহান জন্তু।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি তাকে মুক্ত করলাম এক কুরবানীর বিনিময়ে।


মাওলানা জহুরুল হক

আর আমরা তাঁকে বদলা দিয়েছিলাম এক মহান কুরবানি।


তাফসীরঃ

২৩. পিতা-পুত্র উভয়ে যেহেতু আল্লাহ তাআলার আদেশ পালনের জন্য তাদের এখতিয়ারাধীন সবকিছুই করে ফেলেছিলেন, তাই তাদের পরীক্ষা হয়ে গিয়েছিল। অনন্তর আল্লাহ তাআলা তাঁর কুদরতের এক কারিশমা দেখালেন। ছুরি হযরত ইসমাঈল আলাইহিস সালামের স্থলে একটি দুম্বার উপর চলল। আল্লাহ তাআলা সেটিকে নিজ কুদরতে সেখানে পাঠিয়ে দিয়েছিলেন। হযরত ইসমাঈল আলাইহিস সালাম জীবিত ও নিরাপদ থাকলেন।


১০৮


وَتَرَکۡنَا عَلَیۡہِ فِی الۡاٰخِرِیۡنَ ۖ


ওয়া তারাকনা-‘আলাইহি ফিল আ-খিরীন।


Mufti Taqi Usmani

and We left for him (a word of praise) among the later people,


মুফতী তাকী উসমানী

এবং পরবর্তীদের মধ্যে এই ঐতিহ্য চালু করলাম


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি তার জন্যে এ বিষয়টি পরবর্তীদের মধ্যে রেখে দিয়েছি যে,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি এটা পরবর্তীদের স্মরণে রেখেছি।


মাওলানা জহুরুল হক

আর আমরা তাঁর জন্য পরবর্তীদের মধ্যে রেখেছিলাম --


১০৯


سَلٰمٌ عَلٰۤی اِبۡرٰہِیۡمَ


ছালা-মুন ‘আলাইবরা-হীম।


Mufti Taqi Usmani

(that is,) “Salām be on Ibrāhīm!


মুফতী তাকী উসমানী

যে, (তারা বলবে,) সালাম হোক ইবরাহীমের প্রতি,


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

ইব্রাহীমের প্রতি সালাম বর্ষিত হোক।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

ইব্রাহীমের ওপর শান্তি বর্ষিত হোক!


মাওলানা জহুরুল হক

ইব্রাহীমের প্রতি "সালাম"।


১১০


کَذٰلِکَ نَجۡزِی الۡمُحۡسِنِیۡنَ


কাযা-লিকা নাজঝিল মুহছিনীন।


Mufti Taqi Usmani

This is how We reward those who are good in their deeds.


মুফতী তাকী উসমানী

আমি সৎকর্মশীলদেরকে এভাবেই পুরস্কৃত করে থাকি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এমনিভাবে আমি সৎকর্মীদেরকে প্রতিদান দিয়ে থাকি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এইভাবে আমি সৎকর্মপরায়ণদেরকে পুরস্কৃত করে থাকি।


মাওলানা জহুরুল হক

এইভাবেই আমরা প্রতিদান দিই সৎকর্মশীলদের।


১১১


اِنَّہٗ مِنۡ عِبَادِنَا الۡمُؤۡمِنِیۡنَ


ইন্নাহূমিন ‘ইবা-দিনাল মু’মুনীন।


Mufti Taqi Usmani

Surely, he is among Our believing servants.


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই সে আমার মুমিন বান্দাদের অন্তর্ভুক্ত ছিল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

সে ছিল আমার বিশ্বাসী বান্দাদের একজন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

নিশ্চয়ই সে ছিল আমার মু’মিন বান্দাদের অন্যতম;


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ তিনি ছিলেন আমাদের মুমিন বান্দাদের মধ্যেকার।


১১২


وَبَشَّرۡنٰہُ بِاِسۡحٰقَ نَبِیًّا مِّنَ الصّٰلِحِیۡنَ


ওয়া বাশশারনা-হু বিইছহা-কা নাবিইয়াম মিনাসসা-লিহীন।


Mufti Taqi Usmani

And We gave him the good news of IsHāq (Isaac), a prophet from among the righteous.


মুফতী তাকী উসমানী

আর আমি তাকে সুসংবাদ দিলাম ইসহাকের, যে নেককারদের মধ্যে একজন নবী হবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি তাকে সুসংবাদ দিয়েছি ইসহাকের, সে সৎকর্মীদের মধ্য থেকে একজন নবী।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি তাকে সুসংবাদ দিয়েছিলাম ইস্হাকের, সে ছিল এক নবী, সৎকর্মপরায়ণদের অন্যতম,


মাওলানা জহুরুল হক

আর আমরা তাঁকে সুসংবাদ দিয়েছিলাম ইসহাকের -- একজন নবী সৎপথাবলন্বীদের মধ্যেকার।


১১৩


وَبٰرَکۡنَا عَلَیۡہِ وَعَلٰۤی اِسۡحٰقَ ؕ  وَمِنۡ ذُرِّیَّتِہِمَا مُحۡسِنٌ وَّظَالِمٌ لِّنَفۡسِہٖ مُبِیۡنٌ ٪


ওয়া বা-রাকনা ‘আলাইহিওয়া ‘আলাইছহা-ক ওয়া মিন যুররিইইয়াতিহিমামুহছিনুওঁ ওয়া জা-লিমুল লিনাফছিহী মুবীন।


Mufti Taqi Usmani

And We did bless him, and IsHāq. And among the progeny of both of them, some are good and some are utterly unjust to their own selves.


মুফতী তাকী উসমানী

আমি তার প্রতি বরকত নাযিল করলাম এবং ইসহাকের প্রতিও। তাদের আওলাদের মধ্যে কিছু লোক সৎকর্মশীল এবং কিছু লোক নিজ সত্তার প্রতি প্রকাশ্য জুলুমকারী।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাকে এবং ইসহাককে আমি বরকত দান করেছি। তাদের বংশধরদের মধ্যে কতক সৎকর্মী এবং কতক নিজেদের উপর স্পষ্ট জুলুমকারী।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি তাকে বরকত দান করেছিলাম এবং ইস্হাককেও; তাদের বংশধরদের মধ্যে কতক সৎকর্মপরায়ণ এবং কতক নিজেদের প্রতি স্পষ্ট অত্যাচারী।


মাওলানা জহুরুল হক

আর আমরা আশীর্বাদ বর্ষণ করেছিলাম তাঁর উপরে ও ইসহাকের উপরে। আর তাঁদের দুজনের বংশধরদের মধ্যে থেকে কেউ হচ্ছেন সৎকর্মশীল, আর কেউ হচ্ছে তাদের নিজেদের প্রতি স্পষ্টভাবে অন্যায়াচারী।


১১৪


وَلَقَدۡ مَنَنَّا عَلٰی مُوۡسٰی وَہٰرُوۡنَ ۚ


ওয়া লাকাদ মান্নান্না-‘আলা-মূছা-ওয়া হা-রূন।


Mufti Taqi Usmani

Certainly We bestowed favors upon Mūsā and Hārūn,


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই আমি মূসা ও হারুনের প্রতিও অনুগ্রহ করেছিলাম।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি অনুগ্রহ করেছিলাম মূসা ও হারুনের প্রতি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি অনুগ্রহ করেছিলাম মূসা ও হারূনের প্রতি,


মাওলানা জহুরুল হক

আর নিশ্চয় আমরা মূসা ও হারূনের প্রতি অনুগ্রহ করেই ছিলাম,


১১৫


وَنَجَّیۡنٰہُمَا وَقَوۡمَہُمَا مِنَ الۡکَرۡبِ الۡعَظِیۡمِ ۚ


ওয়া নাজ্জাইনা-হুমা ওয়া কাওমাহুমা-মিনাল কারবিল ‘আজীম।


Mufti Taqi Usmani

and We delivered them and their people from the great agony,


মুফতী তাকী উসমানী

আমি তাদেরকে ও তাদের কওমকে এক মহা সংকট থেকে মুক্তি দিয়েছিলাম।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাদেরকে ও তাদের সম্প্রদায়কে উদ্ধার করেছি মহা সংকট থেকে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং তাদেরকে এবং তাদের সম্প্রদায়কে আমি উদ্ধার করেছিলাম মহাসংকট হতে।


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাঁদের দুজনকে ও তাঁদের লোকদলকে আমরা ভীষণ সংকট থেকে উদ্ধার করেছিলাম।


১১৬


وَنَصَرۡنٰہُمۡ فَکَانُوۡا ہُمُ الۡغٰلِبِیۡنَ ۚ


ওয়া নাসারনা-হু ফাকা-নূহুমুল গা-লিবীন।


Mufti Taqi Usmani

and We helped them, so they became victors,


মুফতী তাকী উসমানী

আর তাদেরকে সাহায্য করেছিলাম, ফলে তারাই হয়েছিল বিজয়ী।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি তাদেরকে সাহায্য করেছিলাম, ফলে তারাই ছিল বিজয়ী।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি সাহায্য করেছিলাম তাদেরকে ফলে তারাই হয়েছিল বিজয়ী।


মাওলানা জহুরুল হক

আর আমরা তাঁদের সাহায্য করেছিলাম, সেজন্য তাঁরা খোদ বিজয়ী হয়েছিলেন।


১১৭


وَاٰتَیۡنٰہُمَا الۡکِتٰبَ الۡمُسۡتَبِیۡنَ ۚ


ওয়া আ-তাইনা-হুমাল কিতা-বাল মুছতাবীন।


Mufti Taqi Usmani

and We gave them the clear book,


মুফতী তাকী উসমানী

আর আমি তাদেরকে এক সুস্পষ্ট কিতাব দিয়েছিলাম।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি উভয়কে দিয়েছিলাম সুস্পষ্ট কিতাব।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি উভয়কে দিয়েছিলাম বিশদ কিতাব।


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাঁদের উভয়কে আমরা দিয়েছিলাম এক স্পষ্ট গ্রন্থ,


১১৮


وَہَدَیۡنٰہُمَا الصِّرَاطَ الۡمُسۡتَقِیۡمَ ۚ


ওয়া হাদাইনা-হুমাসসিরাতাল মুছতাকীম।


Mufti Taqi Usmani

and guided them to the straight path.


মুফতী তাকী উসমানী

আর তাদেরকে প্রদর্শন করেছিলাম সরল পথ।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং তাদেরকে সরল পথ প্রদর্শন করেছিলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং তাদেরকে আমি পরিচালিত করেছিলাম সরল পথে।


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাঁদের উভয়কে আমরা পরিচালিত করেছিলাম সরল-সঠিক পথে,


১১৯


وَتَرَکۡنَا عَلَیۡہِمَا فِی الۡاٰخِرِیۡنَ ۙ


ওয়া তারাকনা-‘আলাইহিমা-ফিল আ-খিরীন।


Mufti Taqi Usmani

And We left for them (a word of praise) among the later people,


মুফতী তাকী উসমানী

আর পরবর্তীদের মধ্যে এই ঐতিহ্য চালু করলাম


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি তাদের জন্যে পরবর্তীদের মধ্যে এ বিষয় রেখে দিয়েছি যে,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি তাদের উভয়কে পরবর্তীদের স্মরণে রেখেছি।


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাদের জন্য আমরা পরবর্তীদের মধ্যে রেখেছিলাম --


১২০


سَلٰمٌ عَلٰی مُوۡسٰی وَہٰرُوۡنَ


ছালা-মুন ‘আলা-মূছা-ওয়া হা-রূন।


Mufti Taqi Usmani

(that is,) Salām be on Mūsā and Hārūn!


মুফতী তাকী উসমানী

যে, (তারা বলবে) সালাম হোক মূসা ও হারুনের প্রতি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

মূসা ও হারুনের প্রতি সালাম বর্ষিত হোক।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

মূসা ও হারূনের প্রতি শান্তি বর্ষিত হোক!


মাওলানা জহুরুল হক

মূসা ও হারূনের প্রতি "সালাম"।


১২১


اِنَّا کَذٰلِکَ نَجۡزِی الۡمُحۡسِنِیۡنَ


ইন্না-কাযা-লিকা নাজঝিল মুহছীনীন।


Mufti Taqi Usmani

This is how We reward those who are good in their deeds.


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই আমি সৎকর্মশীলদেরকে এভাবেই পুরস্কৃত করি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এভাবে আমি সৎকর্মীদেরকে প্রতিদান দিয়ে থাকি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এইভাবে আমি সৎকর্মপরায়ণদেরকে পুরস্কৃত করে থাকি।


মাওলানা জহুরুল হক

এইভাবেই আমরা অবশ্য প্রতিদান দিই সৎকর্মশীলদের।


১২২


اِنَّہُمَا مِنۡ عِبَادِنَا الۡمُؤۡمِنِیۡنَ


ইন্নাহুমা-মিন ‘ইবা-দিনাল মু’মিনীন।


Mufti Taqi Usmani

Surely, both of them were among Our believing servants.


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই তারা ছিল আমার মুমিন বান্দাদের অন্তর্ভুক্ত।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা উভয়েই ছিল আমার বিশ্বাসী বান্দাদের অন্যতম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তারা উভয়েই ছিল আমার মু’মিন বান্দাদের অন্তর্ভুক্ত।


মাওলানা জহুরুল হক

নিশ্চয় তাঁরা ছিলেন আমাদের মুমিন বান্দাদের মধ্যেকার।


১২৩


وَاِنَّ اِلۡیَاسَ لَمِنَ الۡمُرۡسَلِیۡنَ ؕ


ওয়া ইন্না ইলইয়াছা লামিনাল মুরছালীন।


Mufti Taqi Usmani

And surely, Ilyās is one of the messengers.


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই ইলিয়াসও রাসূলগণের অন্তর্ভুক্ত ছিল। ২৪


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

নিশ্চয়ই ইলিয়াস ছিল রসূল।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

ইল্ইয়াসও ছিল রাসূলদের একজন।


মাওলানা জহুরুল হক

আর নিশ্চয়ই ইল্‌য়াস রসূলগণের মধ্যেকার ছিলেন।


তাফসীরঃ

২৪. কুরআন মাজীদ হযরত ইলিয়াস আলাইহিস সালামের বৃত্তান্ত সম্পর্কে বিশদ বর্ণনা দেয়নি। ঐতিহাসিক ও ইসরাঈলী বর্ণনা দ্বারা জানা যায়, হযরত সুলাইমান আলাইহিস সালামের পর বনী ইসরাঈল ব্যাপকভাবে কুফর ও শিরকে লিপ্ত হয়ে পড়লে তাদের হেদায়াতের জন্য হযরত ইলিয়াস আলাইহিস সালামকে পাঠানো হয়। বাইবেলের ‘রাজাবলী’ পুস্তকে আছে, রাজা আখিআবের পত্নী ‘ইযাবীল’ ‘বাল’ নামক এক প্রতিমার পূজা শুরু করেছিল। হযরত ইলিয়াস আলাইহিস সালাম তাকে প্রতিমা পূজা করতে নিষেধ করলেন এবং মুজিযাও দেখালেন। কিন্তু অবাধ্য কওম তাঁর কথা গ্রাহ্য তো করলই না, উপরন্তু তাঁকে হত্যা করার ষড়যন্ত্র আঁটল। আল্লাহ তাআলা তাদের ষড়যন্ত্র ব্যর্থ করে দিয়ে উল্টো তাদের উপর বালা-মুসিবত চাপিয়ে দিলেন। আর হযরত ইলিয়াস আলাইহিস সালামকে নিজের কাছে ডেকে নিলেন। ইসরাঈলী বর্ণনায় আরও আছে, তাকে আসমানে জীবিত তুলে নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু নির্ভরযোগ্য কোন বর্ণনা দ্বারা এটা সমর্থিত নয়। বিস্তারিত দ্র. মাআরিফুল কুরআন।


১২৪


اِذۡ قَالَ لِقَوۡمِہٖۤ اَلَا تَتَّقُوۡنَ


ইযকা-লা লিকাওমিহীআলা-তাত্তাকূন।


Mufti Taqi Usmani

(Remember) when he said to his people: “Do you not fear Allah?


মুফতী তাকী উসমানী

যখন সে নিজ কওমকে বলেছিল, তোমরা কি আল্লাহকে ভয় করো না?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যখন সে তার সম্প্রদায়কে বললঃ তোমরা কি ভয় কর না ?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

স্মরণ কর, সে তার সম্প্রদায়কে বলেছিল, ‘তোমরা কি সাবধান হবে না ?


মাওলানা জহুরুল হক

স্মরণ করো, তিনি তাঁর স্বজাতিকে বলেছিলেন -- "তোমরা কি ধর্মভীরুতা অবলন্বন করবে না?


১২৫


اَتَدۡعُوۡنَ بَعۡلًا وَّتَذَرُوۡنَ اَحۡسَنَ الۡخَالِقِیۡنَ ۙ


আ তাদ‘ঊনা বা‘লাওঁ ওয়া তাযারূনা আহছানাল খা-লিকীন।


Mufti Taqi Usmani

Do you invoke Ba‘l, and ignore the Best of the creators,


মুফতী তাকী উসমানী

তোমরা কি ‘বা‘ল’ (নামক মূর্তি)-এর পূজা করছ এবং পরিত্যাগ করছ শ্রেষ্ঠতম স্রষ্টাকে?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমরা কি বা’আল দেবতার এবাদত করবে এবং সর্বোত্তম স্রষ্টাকে পরিত্যাগ করবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘তোমরা কি বা‘আলকে ডাকবে এবং পরিত্যাগ করবে শ্রেষ্ঠ স্রষ্টা-


মাওলানা জহুরুল হক

"তোমরা কি বা’লকে ডাকবে, আর পরিত্যাগ করবে সৃষ্টিকর্তাদের সর্বশ্রেষ্ঠজনকে,


১২৬


اللّٰہَ رَبَّکُمۡ وَرَبَّ اٰبَآئِکُمُ الۡاَوَّلِیۡنَ


আল্লা-হা রাব্বাকুম ওয়া রাব্বা আ-বাই কুমুল আওওয়ালীন।


Mufti Taqi Usmani

that is, Allah who is your Lord and the Lord of your forefathers?”


মুফতী তাকী উসমানী

সেই আল্লাহকে, যিনি তোমাদের প্রতিপালক এবং তোমাদের বাপ-দাদাদেরও, যারা পূর্বে গত হয়েছে?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যিনি আল্লাহ তোমাদের পালনকর্তা এবং তোমাদের পূর্বপুরুষদের পালনকর্তা?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আল্লাহ্কে, যিনি প্রতিপালক তোমাদের- প্রতিপালক তোমাদের প্রাক্তন পূর্বপুরুষদের ?’


মাওলানা জহুরুল হক

আল্লাহ্‌কে -- তোমাদের প্রভু এবং পূর্বকালীন তোমাদের পিতৃপুরুষদেরও প্রভু?"


১২৭


فَکَذَّبُوۡہُ فَاِنَّہُمۡ لَمُحۡضَرُوۡنَ ۙ


ফাকাযযাবূহু ফাইন্নাহুম লামুহদারূন।


Mufti Taqi Usmani

Then they rejected him. Therefore, they will be arraigned -


মুফতী তাকী উসমানী

তারপর এই হল যে, তারা ইলিয়াসকে মিথ্যাবাদী বলল; এর ফলে তাদেরকে অবশ্যই শাস্তির সম্মুখীন করা হবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর তারা তাকে মিথ্যা প্রতিপন্ন করল। অতএব তারা অবশ্যই গ্রেফতার হয়ে আসবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

কিন্তু এরা তাকে মিথ্যাবাদী বলেছিল, কাজেই এদেরকে অবশ্যই শাস্তির জন্যে উপস্থিত করা হবে।


মাওলানা জহুরুল হক

কিন্তু তারা তাঁর প্রতি মিথ্যারোপ করল, সেজন্য তাদের নিশ্চয়ই হাজির করা হবে,


১২৮


اِلَّا عِبَادَ اللّٰہِ الۡمُخۡلَصِیۡنَ


ইল্লা-‘ইবাদাল্লা-হিল মুখলাসীন।


Mufti Taqi Usmani

except Allah’s chosen servants.


মুফতী তাকী উসমানী

তবে আল্লাহর মনোনীত বান্দাগণ ছাড়া (তারা থাকবে নিরাপদ)।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

কিন্তু আল্লাহ তা’আলার খাঁটি বান্দাগণ নয়।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তবে আল্লাহ্ র একনিষ্ঠ বান্দাদের কথা স্বতন্ত্র।


মাওলানা জহুরুল হক

শুধু আল্লাহ্‌র একনিষ্ঠ বান্দাদের ব্যতীত।


১২৯


وَتَرَکۡنَا عَلَیۡہِ فِی الۡاٰخِرِیۡنَ ۙ


ওয়া তারাকনা-‘আলাইহি ফিল আ-খিরীন।


Mufti Taqi Usmani

And We left for him (a word of praise) among the later people,


মুফতী তাকী উসমানী

আর পরবর্তীদের মধ্যে এই ঐতিহ্য চালু করলাম


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি তার জন্যে পরবর্তীদের মধ্যে এ বিষয়ে রেখে দিয়েছি যে,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি এটা পরবর্তীদের স্মরণে রেখেছি।


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাঁর জন্য আমরা পরবর্তীদের মধ্যে রেখেছিলাম --


১৩০


سَلٰمٌ عَلٰۤی اِلۡ یَاسِیۡنَ


ছালা-মুন ‘আলাইলইয়া-ছীন।


Mufti Taqi Usmani

(that is,) “Salām on Ilyāsīn (Ilyās).


মুফতী তাকী উসমানী

যে, (তারা বলবে) সালাম হোক ইলিয়াসীনের ২৫ প্রতি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

ইলিয়াসের প্রতি সালাম বর্ষিত হোক!


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

ইল্ইয়াসীনের ওপর শান্তি বর্ষিত হোক।


মাওলানা জহুরুল হক

ইল্‌য়াসীনের উপরে "সালাম"।


তাফসীরঃ

২৫. ‘ইলয়াসীন’এটা হযরত ইলিয়াস (আ.)-এর আরেক নাম অথবা এটা ‘ইলিয়াস’-এর বহুবচন। অর্থাৎ ইলিয়াস ও তার অনুসারীগণ -অনুবাদক।


১৩১


اِنَّا کَذٰلِکَ نَجۡزِی الۡمُحۡسِنِیۡنَ


ইন্না-কাযা-লিকা নাজঝিল মুহছিনীন।


Mufti Taqi Usmani

This is how We reward those who are good in their deeds.


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই আমি সৎকর্মশীলদেরকে এভাবেই পুরস্কৃত করে থাকি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এভাবেই আমি সৎকর্মীদেরকে প্রতিদান দিয়ে থাকি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এইভাবে আমি সৎকর্মপরায়ণদেরকে পুরস্কৃত করে থাকি।


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ এইভাবেই আমরা সৎকর্মশীলদের পুরস্কার দিয়ে থাকি।


১৩২


اِنَّہٗ مِنۡ عِبَادِنَا الۡمُؤۡمِنِیۡنَ


ইন্নাহু মিন ‘ইবা-দিনাল মু’মিনীন।


Mufti Taqi Usmani

Surely, he was from among Our believing servants.


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই সে ছিল আমার মুমিন বান্দাদের অন্তর্ভুক্ত।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

সে ছিল আমার বিশ্বাসী বান্দাদের অন্তর্ভূক্ত।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সে তো ছিল আমার মু’মিন বান্দাদের অন্যতম।


মাওলানা জহুরুল হক

তিনি নিশ্চয়ই ছিলেন আমাদের মুমিন বান্দাদের অন্যতম।


১৩৩


وَاِنَّ لُوۡطًا لَّمِنَ الۡمُرۡسَلِیۡنَ ؕ


ওয়া ইন্না লূতাল্লা মিনাল মুরছালীন।


Mufti Taqi Usmani

And surely, LūT is one of the messengers.


মুফতী তাকী উসমানী

নিঃসন্দেহে লূত ছিল রাসূলগণের অন্তর্ভুক্ত।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

নিশ্চয় লূত ছিলেন রসূলগণের একজন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

লূতও ছিল রাসূলদের একজন।


মাওলানা জহুরুল হক

আর অবশ্যই লূত ছিলেন রসূলগণের মধ্যেকার।


১৩৪


اِذۡ نَجَّیۡنٰہُ وَاَہۡلَہٗۤ اَجۡمَعِیۡنَ ۙ


ইযনাজ্জাইনা-হু ওয়া আহলাহূআজমা‘ঈন।


Mufti Taqi Usmani

(Remember) when We saved him and his family, all of them,


মুফতী তাকী উসমানী

যখন আমি তাকে ও তার পরিবারবর্গের সকলকে রক্ষা করেছিলাম (আযাব থেকে)।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যখন আমি তাকেও তার পরিবারের সবাইকে উদ্ধার করেছিলাম;


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি তাকে ও তার পরিবারের সকলকে উদ্ধার করেছিলাম-


মাওলানা জহুরুল হক

স্মরণ কর! তাঁকে ও তাঁর পরিজনকে উদ্ধার করেছিলাম, সব ক’জনকেই --


১৩৫


اِلَّا عَجُوۡزًا فِی الۡغٰبِرِیۡنَ


ইল্লা-‘আজূঝান ফিল গা-বিরীন।


Mufti Taqi Usmani

except an old woman among those remaining behind.


মুফতী তাকী উসমানী

এক বৃদ্ধাকে ছাড়া, যে পশ্চাতে অবস্থানকারীদের অন্তর্ভুক্ত ছিল। ২৬


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

কিন্তু এক বৃদ্ধাকে ছাড়া; সে অন্যান্যদের সঙ্গে থেকে গিয়েছিল।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এক বৃদ্ধা ব্যতীত, যে ছিল পশ্চাতে অবস্থানকারীদের অন্তর্ভুক্ত।


মাওলানা জহুরুল হক

এক বৃদ্ধাকে ব্যতীত, যে ছিল পেছনে রয়ে যাওয়া দলের।


তাফসীরঃ

২৬. এ বৃদ্ধা হল হযরত লূত আলাইহিস সালামের স্ত্রী। শেষ পর্যন্ত সে কাফেরদের সাথেই থাকে এবং তাদের সঙ্গে শাস্তিপ্রাপ্ত হয়। হযরত লূত (আ.)-এর ঘটনা বিস্তারিতভাবে সূরা হুদে (১১ : ৭৭) গত হয়েছে।


১৩৬


ثُمَّ دَمَّرۡنَا الۡاٰخَرِیۡنَ


ছু ম্মা দাম্মার নাল আ-খারীন।


Mufti Taqi Usmani

After that, We destroyed others


মুফতী তাকী উসমানী

তারপর অন্যদেরকে সম্পূর্ণরূপে ধ্বংস করে ফেললাম।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর অবশিষ্টদেরকে আমি সমূলে উৎপাটিত করেছিলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরপর অবশিষ্টদেরকে আমি সম্পূর্ণভাবে ধ্বংস করেছিলাম।


মাওলানা জহুরুল হক

তারপর আমরা অবশিষ্টদের সম্পূর্ণরূপে ধ্বংস করেছিলাম।


১৩৭


وَاِنَّکُمۡ لَتَمُرُّوۡنَ عَلَیۡہِمۡ مُّصۡبِحِیۡنَ


ওয়া ইন্নাকুম লাতামুররূনা ‘আলাইহিম মুসবিহীন।


Mufti Taqi Usmani

and you do pass by them at daybreak


মুফতী তাকী উসমানী

(হে মক্কাবাসীগণ!) তোমরা তো তাদের (বসতিসমূহের) উপর দিয়ে যাতায়াত করে থাক (কখনও) ভোর বেলা।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমরা তোমাদের ধ্বংস স্তুপের উপর দিয়ে গমন কর ভোর বেলায়


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তোমরা তো এদের ধ্বংসাবশেষগুলি অতিক্রম করে থাক সকালে ও


মাওলানা জহুরুল হক

আর নিঃসন্দেহ তোমরা তো তাদের অতিক্রম করে থাক সকালবেলায়,


১৩৮


وَبِالَّیۡلِ ؕ  اَفَلَا تَعۡقِلُوۡنَ ٪


ওয়া বিল্লাইলি আফালা-তা‘কিলূন।


Mufti Taqi Usmani

and by nightfall. Would you still not understand?


মুফতী তাকী উসমানী

এবং (কখনও) রাতের বেলা। ২৭ তা সত্ত্বেও কি তোমরা অনুধাবন করবে না?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং সন্ধ্যায়, তার পরেও কি তোমরা বোঝ না?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সন্ধ্যায়। তবুও কি তোমরা অনুধাবন করবে না ?


মাওলানা জহুরুল হক

এবং রাত্রিকালে। তবুও কি তোমরা বুঝবে না।


তাফসীরঃ

২৭. আরববাসীগণ যখন বাণিজ্য উপলক্ষে শামের সফর করত, তখন হযরত লূত আলাইহিস সালামের কওমকে যেখানে ধ্বংস করা হয়, সেই ধ্বংসপ্রাপ্ত বসতিসমূহের উপর দিয়ে আসা-যাওয়া করত।


১৩৯


وَاِنَّ یُوۡنُسَ لَمِنَ الۡمُرۡسَلِیۡنَ ؕ


ওয়া ইন্না ইঊনুছা লামিনাল মুরছালীন।


Mufti Taqi Usmani

And surely, Yūnus (Jonah) is from among the messengers.


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই ইউনুসও ছিল রাসূলগণের অন্তর্ভুক্ত।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আর ইউনুসও ছিলেন পয়গম্বরগণের একজন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

ইউনুসও ছিল রাসূলদের একজন।


মাওলানা জহুরুল হক

আর নিশ্চয়ই ইউনুস ছিলেন রসূলগণের অন্যতম।


১৪০


اِذۡ اَبَقَ اِلَی الۡفُلۡکِ الۡمَشۡحُوۡنِ ۙ


ইয আবাকা ইলাল ফুলকিল মাশহূন।


Mufti Taqi Usmani

(Remember) when he ran away towards the boat that was already loaded.


মুফতী তাকী উসমানী

যখন পালিয়ে একটি বোঝাই নৌকায় পৌঁছল। ২৮


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যখন পালিয়ে তিনি বোঝাই নৌকায় গিয়ে পৌঁছেছিলেন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

স্মরণ কর, যখন সে পলায়ন করে বোঝাই নৌযানে পৌঁছিল,


মাওলানা জহুরুল হক

স্মরণ করো! তিনি বোঝাই করা জাহাজে গিয়ে উঠেছিলেন।


তাফসীরঃ

২৮. হযরত ইউনুস আলাইহিস সালামের ঘটনা সূরা ইউনুসেও (১০ : ৯৮) সংক্ষেপে চলে গেছে এবং কিছুটা সূরা আম্বিয়ায়ও (২১ : ৮৭)। তিনি ইরাকের ‘নিনেভা’ অঞ্চলে প্রেরিত হয়েছিলেন। তিনি দীর্ঘদিন পর্যন্ত নিজ কওমকে দাওয়াত দিতে থাকেন। কিন্তু কিছুতেই যখন তারা তাঁর কথায় কর্ণপাত করল না, তখন তিনি তাদেরকে সাবধান করে দিলেন, তিন দিনের ভেতরেই তোমাদের উপর আযাব আসবে। কওমের লোক বলাবলি করল, হযরত ইউনুস আলাইহিস সালাম তো কখনও মিথ্যা কথা বলেন না, কাজেই তিনি যদি এলাকা ছেড়ে চলে যান, বুঝবে তিনি সত্য বলেছেন। অতঃপর তিনি আল্লাহ তাআলার হুকুমে বসতি ছেড়ে চলে গেলেন। এদিকে বসতির লোকে যখন দেখল তিনি সেখানে নেই এবং শাস্তির কিছু পূর্বাভাসও নজরে পড়ল, তখন তারা অনুতপ্ত হল ও তাওবা করল। ফলে আল্লাহ তাআলা তাদের আযাব সরিয়ে নিলেন। তাদের তাওবার কথা হযরত ইউনুস আলাইহিস সালামের জানা ছিল না। তিনি যখন দেখলেন তিন দিন গত হওয়ার পরও আযাব আসল না, তখন ভয় পেয়ে গেলেন এবং আশঙ্কা বোধ করলেন এলাকায় ফিরে গেলে কওমের লোক তাকে মিথ্যুক সাব্যস্ত করবে, এমনকি তারা তাকে হত্যাও করে ফেলতে পারে। এই আশঙ্কায় তিনি আল্লাহ তাআলার হুকুম আসার আগেই সাগরের দিকে অগ্রসর হলেন। এলাকায় আর ফিরে আসলেন না। সাগর পার হওয়ার জন্য তিনি একটি নৌকায় চড়লেন। নৌকাটি ছিল যাত্রীতে বোঝাই। তিনি যেহেতু আল্লাহ তাআলার এক মহা মর্যাদাবান নবী, তাই আদেশ পাওয়ার আগেই তাঁর এলাকা ত্যাগ আল্লাহ তাআলার পছন্দ হল না। জানা কথা, বড় মানুষের তুচ্ছ ভুলও ধরা হয়ে থাকে। সুতরাং তাঁকেও ধরা হল। যাত্রী বেশী হওয়ার কারণে নৌকাটি ডুবে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল। কাজেই বোঝা হালকা করার জন্য দরকার পড়েছিল একজনকে নৌকা থেকে ফেলে দেওয়ার। কিন্তু কাকে ফেলা হবে এটা নিষ্পত্তির জন্য লটারী ধরা হল। কয়েক বারই তা ধরা হল, কিন্তু প্রতিবারই নাম উঠছিল হযরত ইউনুস আলাইহিস সালামের। অগত্যা তাকেই পানিতে ফেলে দেওয়া হল। যেখানে ফেলা হয়েছিল আল্লাহ তাআলার হুকুমে সেখানে একটি মাছ তাঁর অপেক্ষায় ছিল। মাছটি সঙ্গে সঙ্গেই তাকে গিলে ফেলল। তিনি কিছুকাল তার পেটে থাকলেন। কোন কোন বর্ণনা দ্বারা জানা যায় তার মেয়াদ ছিল তিন দিন। কোন কোন বর্ণনায় কয়েক ঘণ্টার কথাও বলা হয়েছে, যেমন সূরা আম্বিয়ায় বলা হয়েছে। তিনি মাছের পেটে তাসবীহ পড়ছিলেন لَاۤ اِلٰهَ اِلَّا اَنْتَ سُبْحَانَكَ اِنِّي كُنْتُ مِنَ الظَّالِمِيْنَ ۝ ‘তুমি ছাড়া কোন মাবুদ নেই। তুমি মহান, পবিত্র। নিশ্চয়ই আমি একজন অপরাধী’।


১৪১


فَسَاہَمَ فَکَانَ مِنَ الۡمُدۡحَضِیۡنَ ۚ


ফাছা-হামা ফাকা-না মিনাল মুদ হাদীন।


Mufti Taqi Usmani

Then he participated in drawing lots (to offload one of the passengers) and was the one who was defeated.


মুফতী তাকী উসমানী

অতঃপর সে লটারিতে শরীক হল এবং তাতে পরাভূত হল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর লটারী (সুরতি) করালে তিনি দোষী সাব্যস্ত হলেন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরপর সে লটারীতে যোগদান করল এবং পরাভূত হল।


মাওলানা জহুরুল হক

তাই তিনি লটারী খেলেছিলেন, কিন্তু তিনিই হয়ে গেলেন নিক্ষিপ্তদের একজন।


১৪২


فَالۡتَقَمَہُ الۡحُوۡتُ وَہُوَ مُلِیۡمٌ


ফালতাকামাহুল হূতুওয়া হুওয়া মুলীম।


Mufti Taqi Usmani

Then the fish swallowed him while he was reproaching his own self.


মুফতী তাকী উসমানী

তারপর মাছ তাকে গিলে ফেলল, যখন সে নিজেকে ধিক্কার দিচ্ছিল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর একটি মাছ তাঁকে গিলে ফেলল, তখন তিনি অপরাধী গণ্য হয়েছিলেন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

পরে এক বৃহদাকার মৎস্য তাকে গিলিয়া ফেলিল, তখন সে নিজেকে ধিক্কার দিতে লাগল।


মাওলানা জহুরুল হক

তখন একটি মাছ তাঁকে মুখে তুলে নিল, যদিও তিনি দোষী সাব্যস্ত হয়েছিলেন।


১৪৩


فَلَوۡلَاۤ اَنَّہٗ کَانَ مِنَ الۡمُسَبِّحِیۡنَ ۙ


ফালাওলাআন্নাহূকা-না মিনাল মুছাব্বিহীন।


Mufti Taqi Usmani

Had he not been of those who proclaim Allah’s purity,


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং সে যদি তাসবীহ পাঠকারীদের অন্তর্ভুক্ত না হত


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যদি তিনি আল্লাহর তসবীহ পাঠ না করতেন,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সে যদি আল্লাহ্ র পবিত্রতা ও মহিমা ঘোষণা না করত,


মাওলানা জহুরুল হক

আর তিনি যদি মহিমা জপতপে রত না থাকতেন --


১৪৪


لَلَبِثَ فِیۡ بَطۡنِہٖۤ اِلٰی یَوۡمِ یُبۡعَثُوۡنَ ۚؒ


লালাবিছা ফী বাতনিহীইলা-ইয়াওমি ইউব‘আছূন।


Mufti Taqi Usmani

he would have definitely lived in its belly till the day when the dead will be raised.


মুফতী তাকী উসমানী

তবে মৃতদেরকে পুনর্জীবিত করার দিন পর্যন্ত সে সেই মাছেরই পেটে থাকত।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তবে তাঁকে কেয়ামত দিবস পর্যন্ত মাছের পেটেই থাকতে হত।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তা হলে তাকে উত্থান দিবস পর্যন্ত থাকতে হত এর উদরে।


মাওলানা জহুরুল হক

তাহলে তিনি তার পেটে রয়ে যেতেন পুনরুত্থান দিন পর্যন্ত।


১৪৫


فَنَبَذۡنٰہُ بِالۡعَرَآءِ وَہُوَ سَقِیۡمٌ ۚ


ফানাবাযনা-হু বিল‘আরাই ওয়া হুওয়া ছাকীম।


Mufti Taqi Usmani

Then We cast him ashore in the open while he was ill,


মুফতী তাকী উসমানী

অতঃপর আমি তাকে পীড়িত অবস্থায় একটি উন্মুক্ত প্রান্তরে নিক্ষেপ করলাম। ২৯


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর আমি তাঁকে এক বিস্তীর্ণ-বিজন প্রান্তরে নিক্ষেপ করলাম, তখন তিনি ছিলেন রুগ্ন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরপর ইউনুসকে আমি নিক্ষেপ করলাম এক তৃণহীন প্রান্তরে এবং সে ছিল রুগ্ন।


মাওলানা জহুরুল হক

তারপর আমরা তাঁকে এক বৃক্ষলতা শূন্য উপকূলে ফেলে দিলাম, আর তিনি ছিলেন অসুস্থ।


তাফসীরঃ

২৯. তাসবীহ পাঠের বরকতে আল্লাহ তাআলা মাছকে হুকুম দিলেন যেন হযরত ইউনুস আলাইহিস সালামকে একটি খোলা মাঠের কিনারায় নিয়ে ফেলে দেয়। সুতরাং তাই হল। তখন তিনি অত্যন্ত দুর্বল হয়ে পড়েছিলেন। কোন-কোন বর্ণনায় আছে, তার শরীরে তখন আর কোন পশম বাকি ছিল না। আল্লাহ তাআলা একটি বৃক্ষ উদগত করে তার উপর বিস্তার করে দিলেন। কোন-কোন বর্ণনায় আছে, সেটি ছিল লাউ গাছ। তিনি তার ছায়া লাভ করছিলেন এবং সম্ভবত তার ফলকে তার জন্য ঔষধও বানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। সেই সঙ্গে আল্লাহ তাআলা তাঁর কাছে একটি বকরীও পাঠিয়ে দিলেন। তিনি তার দুধ খেতে থাকেন এবং এক সময় তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে ওঠেন।


১৪৬


وَاَنۡۢبَتۡنَا عَلَیۡہِ شَجَرَۃً مِّنۡ یَّقۡطِیۡنٍ ۚ


ওয়া আমবাতনা ‘আলাইহি শাজারাতাম মিইঁ ইয়াকতীন।


Mufti Taqi Usmani

and We caused a tree of ourds to grow over him.


মুফতী তাকী উসমানী

এবং তার উপর উদগত করলাম একটি লতাযুক্ত গাছ।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি তাঁর উপর এক লতাবিশিষ্ট বৃক্ষ উদগত করলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

পরে আমি তার ওপর এক লাউ গাছ উদ্গত করলাম.


মাওলানা জহুরুল হক

তখন তাঁর উপরে আমরা জন্মিয়েছিলাম লাউজাতীয় গাছ,


১৪৭


وَاَرۡسَلۡنٰہُ اِلٰی مِائَۃِ اَلۡفٍ اَوۡ یَزِیۡدُوۡنَ ۚ


ওয়া আরছালনা-হু ইলা-মিআতি আলফিন আও ইয়াঝীদূন।


Mufti Taqi Usmani

And We had sent him (as messenger) to one hundred thousand, or more.


মুফতী তাকী উসমানী

তাকে রাসূল করে পাঠিয়েছিলাম এক লাখ, বরং তারও কিছু বেশি লোকের কাছে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং তাঁকে, লক্ষ বা ততোধিক লোকের প্রতি প্রেরণ করলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তাকে আমি এক লক্ষ বা ততোধিক লোকের প্রতি প্রেরণ করেছিলাম।


মাওলানা জহুরুল হক

আর আমরা তাঁকে পাঠিয়েছিলাম এক লাখ বা আরো বেশী লোকের কাছে,


১৪৮


فَاٰمَنُوۡا فَمَتَّعۡنٰہُمۡ اِلٰی حِیۡنٍ ؕ


ফাআ-মানূফামাত্তা‘না-হুম ইলা-হীন।


Mufti Taqi Usmani

So, they believed, then, We let them enjoy for a time.


মুফতী তাকী উসমানী

অতঃপর তারা ঈমান এনেছিল। ৩০ ফলে আমি তাদেরকে একটা কাল পর্যন্ত জীবন ভোগ করতে দেই।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা বিশ্বাস স্থাপন করল অতঃপর আমি তাদেরকে নির্ধারিত সময় পর্যন্ত জীবনোপভোগ করতে দিলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং তারা ঈমান এনেছিল; ফলে আমি তাদেরকে কিছুকালের জন্যে জীবনোপভোগ করতে দিলাম।


মাওলানা জহুরুল হক

তখন তারা বিশ্বাস করেছিল, সেজন্য আমরা তাদের উপভোগ করতে দিয়েছিলাম কিছুকালের জন্য।


তাফসীরঃ

৩০. যেমন উপরে বর্ণিত হয়েছে এবং সূরা ইউনুস (১০ : ৯৮)-এও চলে গেছে যে, হযরত ইউনুস আলাইহিস সালামের কওম আযাবের লক্ষণ দেখেই সতর্ক হয়ে গিয়েছিল এবং আযাব আসার আগেই ঈমান এনেছিল। ফলে আল্লাহ তাদের থেকে আযাব সরিয়ে নিয়েছিলেন এবং তারা ঈমান আনার পর কিছুকাল জীবিত ছিল।


১৪৯


فَاسۡتَفۡتِہِمۡ اَلِرَبِّکَ الۡبَنَاتُ وَلَہُمُ الۡبَنُوۡنَ ۙ


ফাছতাফতিহিম আ লিরাব্বিকাল বানা-তুওয়া লাহুমুল বানূন।


Mufti Taqi Usmani

So ask them, “Does your Lord have daughters while they have sons?”


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং তাদেরকে (মক্কার মুশরিকদেরকে) জিজ্ঞেস কর, তোমার প্রতিপালকের জন্যই কি রয়েছে কন্যা সন্তান আর তাদের জন্য পুত্র সন্তান? ৩১


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবার তাদেরকে জিজ্ঞেস করুন, তোমার পালনকর্তার জন্যে কি কন্যা সন্তান রয়েছে এবং তাদের জন্যে কি পুত্র-সন্তান।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এখন এদেরকে জিজ্ঞাসা কর, ‘তোমার প্রতিপালকের জন্যেই কি রয়েছে কন্যা সন্তান এবং এদের জন্যে পুত্র সন্তান ?’


মাওলানা জহুরুল হক

সুতরাং তাদের জিজ্ঞাসা করো -- তোমার প্রভুর জন্য কি কন্যাসন্তান রয়েছে, আর তাদের জন্য পুত্রসন্তান?


তাফসীরঃ

৩১. সূরার শুরুতে বলা হয়েছিল যে, মক্কা মুকাররমার মূর্তিপূজকগণ ফেরেশতাদেরকে আল্লাহ তাআলার কন্যা বলত। এবার তাদের সেই বেহুদা আকীদা খণ্ডন করা হচ্ছে। সেই মূর্তিপূজকরা নিজেদের জন্য কিন্তু কন্যা সন্তান পছন্দ করত না; বরং এতটাই ঘৃণা করত যে, তাদের অনেকে তো কন্যা সন্তানের জন্ম হলে তাকে জ্যান্ত পুতে ফেলত। আল্লাহ তাআলা প্রথমত বলছেন, এটা কেমন বেইনসাফী যে, তোমরা নিজেদের জন্য কন্যা অপছন্দ কর, অথচ আল্লাহ সম্পর্কে বিশ্বাস কর ‘তার কন্যা সন্তান আছে’? তারপর বলেছেন, আল্লাহ তাআলার কোন সন্তানের প্রয়োজন নেই না পুত্র সন্তানের, না কন্যা সন্তানের।


১৫০


اَمۡ خَلَقۡنَا الۡمَلٰٓئِکَۃَ اِنَاثًا وَّہُمۡ شٰہِدُوۡنَ


আম খালাকনাল মালাইকাতা ইনা-ছাওঁ ওয়া হুম শা-হিদূন।


Mufti Taqi Usmani

Or, had We created angels as females while they were witnessing?


মুফতী তাকী উসমানী

নাকি আমি যখন ফেরেশতাদেরকে নারী বানিয়েছিলাম, তখন তারা তা প্রত্যক্ষ করছিল?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

না কি আমি তাদের উপস্থিতিতে ফেরেশতাগণকে নারীরূপে সৃষ্টি করেছি?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

অথবা আমি কি ফেরেশতাদেরকে নারীরূপে সৃষ্টি করেছিলাম, আর এরা প্রত্যক্ষ করছিল ?


মাওলানা জহুরুল হক

অথবা, আমরা কি ফিরিশ্‌তাদের নারীরূপে সৃষ্টি করেছিলাম, আর তারা সাক্ষী ছিল?


১৫১


اَلَاۤ اِنَّہُمۡ مِّنۡ اِفۡکِہِمۡ لَیَقُوۡلُوۡنَ ۙ


আলাইন্নাহুম মিন ইফকিহিম লাইয়াকূলূন।


Mufti Taqi Usmani

Beware! They are the ones who, by way of a lie of theirs, (have the audacity to) say,


মুফতী তাকী উসমানী

মনে রেখ, তারা তাদের মনগড়া কথার কারণে বলে


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

জেনো, তারা মনগড়া উক্তি করে যে,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

দেখ এরা তো মনগড়া কথা বলে যে,


মাওলানা জহুরুল হক

এটি কি নয় যে তারা আলবৎ তাদের মিথ্যা থেকেই তো কথা বলছে, --


১৫২


وَلَدَ اللّٰہُ ۙ وَاِنَّہُمۡ لَکٰذِبُوۡنَ


ওয়ালাদাল্লা-হু ওয়া ইন্নাহুম লাকা-যিবূন।


Mufti Taqi Usmani

“Allah has children” - and they are absolute liars.


মুফতী তাকী উসমানী

আল্লাহর কোন সন্তান আছে। বস্তুত তারা নিশ্চিতভাবেই মিথ্যাবাদী।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আল্লাহ সন্তান জন্ম দিয়েছেন। নিশ্চয় তারা মিথ্যাবাদী।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘আল্লাহ্ সন্তান জন্ম দিয়েছেন!’ এরা নিশ্চয় মিথ্যাবাদী।


মাওলানা জহুরুল হক

আল্লাহ্ জন্ম দিয়েছিলেন? আর তারা তো নিশ্চয়ই মিথ্যাবাদী।


১৫৩


اَصۡطَفَی الۡبَنَاتِ عَلَی الۡبَنِیۡنَ ؕ


আসতাফাল বানা-তি ‘আলাল বানীন।


Mufti Taqi Usmani

Is it that Allah has chosen daughters (for Himself) instead of sons?


মুফতী তাকী উসমানী

আল্লাহ কি পুত্রের পরিবর্তে কন্যাদেরই বেছে নিয়েছেন?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তিনি কি পুত্র-সন্তানের স্থলে কন্যা-সন্তান পছন্দ করেছেন?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তিনি কি পুত্র সন্তানের পরিবর্তে কন্যা সন্তান পছন্দ করতেন ?


মাওলানা জহুরুল হক

তিনি কি কন্যাদের পছন্দ করেছেন পুত্রদের পরিবর্তে?


১৫৪


مَا لَکُمۡ ۟ کَیۡفَ تَحۡکُمُوۡنَ


মা-লাকুম কাইফা তাহকুমূন।


Mufti Taqi Usmani

What is the matter with you? How (arbitrarily) do you judge?


মুফতী তাকী উসমানী

তোমাদের হল কী? তোমরা কেমন বিচার করছ?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমাদের কি হল? তোমাদের এ কেমন সিন্ধান্ত?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তোমাদের কী হয়েছে, তোমরা কিরূপ বিচার কর ?


মাওলানা জহুরুল হক

তোমাদের কি হয়েছে? কিভাবে তোমরা বিচার করো?


১৫৫


اَفَلَا تَذَکَّرُوۡنَ ۚ


আফালা-তাযাক্কারূন।


Mufti Taqi Usmani

Then, is it that you do not think about it?


মুফতী তাকী উসমানী

তোমরা কি এতটুকুও অনুধাবন কর না?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমরা কি অনুধাবন কর না?

(ads1)

(getButton) #text=(আল কোরআন বাংলা অনুবাদ সহ এক সাথে ) #icon=(link) #color=(#f5f507)

ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তবে কি তোমরা উপদেশ গ্রহণ করবে না ?


মাওলানা জহুরুল হক

তোমরা কি তবে মনোযোগ দেবে না?


১৫৬


اَمۡ لَکُمۡ سُلۡطٰنٌ مُّبِیۡنٌ ۙ


আম লাকুম ছুলতা-নুম মুবীন।


Mufti Taqi Usmani

Or, is it that there is some open authority with you?


মুফতী তাকী উসমানী

না কি তোমাদের কাছে সুস্পষ্ট কোন প্রমাণ আছে?


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

না কি তোমাদের কাছে সুস্পষ্ট কোন দলীল রয়েছে?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তোমাদের কী সুস্পষ্ট দলীল-প্রমাণ আছে ?


মাওলানা জহুরুল হক

নাকি তোমাদের কাছে কোনো স্পষ্ট দলিল-প্রমাণ রয়েছে?


১৫৭


فَاۡتُوۡا بِکِتٰبِکُمۡ اِنۡ کُنۡتُمۡ صٰدِقِیۡنَ


ফা’তূবিকিতা-বিকুম ইন কুনতুম সা-দিকীন।


Mufti Taqi Usmani

Then bring your book, if you are truthful.


মুফতী তাকী উসমানী

তবে নিয়ে এসো তোমাদের সেই কিতাব যদি তোমরা সত্যবাদী হও।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমরা সত্যবাদী হলে তোমাদের কিতাব আন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তোমরা সত্যবাদী হলে তোমাদের কিতাব উপস্থিত কর।


মাওলানা জহুরুল হক

তেমন হলে তোমাদের গ্রন্থ নিয়ে এস, যদি তোমরা সত্যবাদী হও।


১৫৮


وَجَعَلُوۡا بَیۡنَہٗ وَبَیۡنَ الۡجِنَّۃِ نَسَبًا ؕ  وَلَقَدۡ عَلِمَتِ الۡجِنَّۃُ اِنَّہُمۡ لَمُحۡضَرُوۡنَ ۙ


ওয়াজা‘আলূবাইনাহূওয়া বাইনাল জিন্নাতি নাছাবাওঁ ওয়ালাকাদ ‘আলিমাতিল জিন্নাতু ইন্নাহুম লামুহদারূন।


Mufti Taqi Usmani

And they have made up between Him (Allah) and the Jinns some kinship, while the Jinns already know that they are bound to be seized.-


মুফতী তাকী উসমানী

তারা আল্লাহ ও জিনদের মধ্যেও বংশীয় সম্পর্ক স্থির করেছে। ৩২ অথচ স্বয়ং জিনরোও জানে, তাদেরকে অপরাধীরূপে হাজির করা হবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা আল্লাহ ও জ্বিনদের মধ্যে সম্পর্ক সাব্যস্ত করেছে, অথচ জ্বিনেরা জানে যে, তারা গ্রেফতার হয়ে আসবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা আল্লাহ্ ও জিন জাতির মধ্যে আত্মীয়তার সম্পর্ক স্থির করেছে, অথচ জিনেরা জানে তাদেরকেও নিশ্চয়ই উপস্থিত করা হবে শাস্তির জন্যে।


মাওলানা জহুরুল হক

আর তারা তাঁর মধ্যে ও জিনদের মধ্যে একটা সম্পর্ক দাঁড় করিয়েছে। আর জিনরা তো জেনেই ফেলেছে যে তাদের অবশ্যই উপস্থাপিত করা হবে।


তাফসীরঃ

৩২. এর দ্বারা মুশরিকদের আরেকটি বেহুদা বিশ্বাস খণ্ডন করা হয়েছে। তারা বলত, জিনদের যারা সর্দার, তাদের কন্যাগণ হল ফেরেশতাদের মা’, যেন তারা আল্লাহ তাআলার স্ত্রী নাউযুবিল্লাহ।


১৫৯


سُبۡحٰنَ اللّٰہِ عَمَّا یَصِفُوۡنَ ۙ


ছুবহা-নাল্লা-হি ‘আম্মা-ইয়াসিফূন।


Mufti Taqi Usmani

-Pure is Allah from what they describe-


মুফতী তাকী উসমানী

(কেননা) তারা যা-কিছু বলে আল্লাহ তা থেকে পবিত্র।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা যা বলে তা থেকে আল্লাহ পবিত্র।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা যা বলে তা হতে আল্লাহ্ পবিত্র, মহান-


মাওলানা জহুরুল হক

আল্লাহ্‌রই সব মহিমা! তারা যা আরোপ করে তা থেকে বহু ঊর্ধ্বে, --


১৬০


اِلَّا عِبَادَ اللّٰہِ الۡمُخۡلَصِیۡنَ


ইল্লা-‘ইবাদাল্লা-হিল মুখলাসীন।


Mufti Taqi Usmani

except Allah’s chosen servants.


মুফতী তাকী উসমানী

তবে আল্লাহর মনোনীত বান্দাগণ (নিরাপদ থাকবে)।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তবে যারা আল্লাহর নিষ্ঠাবান বান্দা, তারা গ্রেফতার হয়ে আসবে না।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আল্লাহ্ র একনিষ্ঠ বান্দাগণ ব্যতীত,


মাওলানা জহুরুল হক

আল্লাহ্‌র নিষ্ঠাবান বান্দারা ব্যতীত।


১৬১


فَاِنَّکُمۡ وَمَا تَعۡبُدُوۡنَ ۙ


ফাইন্নাকুম ওয়ামা-তা‘বুদূন।


Mufti Taqi Usmani

So, you and those whom you worship,


মুফতী তাকী উসমানী

কেননা তোমরা এবং তোমরা যাদের ইবাদত কর তারা


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতএব তোমরা এবং তোমরা যাদের উপাসনা কর,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তোমরা এবং তোমরা যাদের ‘ইবাদত কর এরা-


মাওলানা জহুরুল হক

অতএব নিশ্চয়ই তোমরা ও যাদের তোমরা উপাসনা কর তারা --


১৬২


مَاۤ اَنۡتُمۡ عَلَیۡہِ بِفٰتِنِیۡنَ ۙ


মাআনতুম ‘আলাইহি বিফা-তিনীন।


Mufti Taqi Usmani

none of you can make anyone turn away from Him (Allah),


মুফতী তাকী উসমানী

তোমরা কেউ আল্লাহ সম্পর্কে কাউকে বিভ্রান্ত করতে পার না


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাদের কাউকেই তোমরা আল্লাহ সম্পর্কে বিভ্রান্ত করতে পারবে না।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তোমরা কাউকেও আল্লাহ্ সম্বন্ধে বিভ্রান্ত করতে পারবে না-


মাওলানা জহুরুল হক

তোমরা তাঁর বিরুদ্ধে বিভ্রান্তকারী হতে পারবে না, --


১৬৩


اِلَّا مَنۡ ہُوَ صَالِ الۡجَحِیۡمِ


ইল্লা-মান হুওয়া সা-লিল জাহীম।


Mufti Taqi Usmani

except him who is to burn in Jahannam.


মুফতী তাকী উসমানী

সেই ব্যক্তিকে ছাড়া, যে জাহান্নামে প্রবেশ করবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

শুধুমাত্র তাদের ছাড়া যারা জাহান্নামে পৌছাবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

কেবল প্রজ্বলিত অগ্নিতে প্রবেশকারীকে ব্যতীত।


মাওলানা জহুরুল হক

তাকে ব্যতীত যে জ্বলন্ত আগুনে পুড়তে চায়।


১৬৪


وَمَا مِنَّاۤ اِلَّا لَہٗ مَقَامٌ مَّعۡلُوۡمٌ ۙ


ওয়ামা-মিন্নাইল্লা-লাহূমাকা-মুম মা‘লূম।


Mufti Taqi Usmani

And (the angels say,) “There is no one among us who does not have a known station,


মুফতী তাকী উসমানী

আর (ফেরেশতাগণ তো বলে) আমাদের প্রত্যেকেরই আছে এক নির্দিষ্ট স্থান।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমাদের প্রত্যেকের জন্য রয়েছে নির্দিষ্ট স্থান।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘আমাদের প্রত্যেকের জন্যেই নির্ধারিত স্থান রয়েছে,


মাওলানা জহুরুল হক

আর "আমাদের মধ্যে এমন কেউ নেই যার জন্যে নির্ধারিত আবাস নেই,


১৬৫


وَّاِنَّا لَنَحۡنُ الصَّآفُّوۡنَ ۚ


ওয়া ইন্না-লানাহনুসসাফফূন।


Mufti Taqi Usmani

and We, surely We, are those who stand in rows


মুফতী তাকী উসমানী

আর আমরা তো (আল্লাহ তাআলার আনুগত্যে) সারিবদ্ধ হয়ে থাকি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং আমরাই সারিবদ্ধভাবে দন্ডায়মান থাকি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘আমরা তো সারিবদ্ধভাবে দণ্ডায়মান


মাওলানা জহুরুল হক

"আর নিশ্চয়ই আমরা, আমরাই তো সারিবদ্ধভাবে দাঁড়াব,


১৬৬


وَاِنَّا لَنَحۡنُ الۡمُسَبِّحُوۡنَ


ওয়া ইন্না-লানাহনুল মুছাব্বিহূন।


Mufti Taqi Usmani

and We, surely We, are those who proclaim Allah’s purity.”


মুফতী তাকী উসমানী

এবং আমরা তো তাঁর পবিত্রতা বর্ণনায় রত থাকি। ৩৩


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং আমরাই আল্লাহর পবিত্রতা ঘোষণা করি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘এবং আমরা অবশ্যই তাঁর পবিত্রতা ও মহিমা ঘোষণাকারী।’


মাওলানা জহুরুল হক

আর অবশ্য আমরা, আলবৎ আমরা জপ করতে থাকব।


তাফসীরঃ

৩৩. অর্থাৎ ফেরেশতাগণ নিজেরা তো নিজেদেরকে আল্লাহ তাআলার কন্যা বলে না; বরং নিজেদের দাসত্বই প্রকাশ করে।


১৬৭


وَاِنۡ کَانُوۡا لَیَقُوۡلُوۡنَ ۙ


ওয়া ইন কা-নূলাইয়াকূলূন।


Mufti Taqi Usmani

And they (the pagans) used to say,


মুফতী তাকী উসমানী

তারা (অর্থাৎ কাফেরগণ) পূর্বে তো বলত


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা তো বলতঃ


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরাই তো বলে এসেছে,


মাওলানা জহুরুল হক

আর নিশ্চয়ই তারা বলতে থাকতো --


১৬৮


لَوۡ اَنَّ عِنۡدَنَا ذِکۡرًا مِّنَ الۡاَوَّلِیۡنَ ۙ


লাও আন্না ‘ইনদানা- যিকরাম মিনাল আওওয়ালীন।


Mufti Taqi Usmani

“Had there been a scripture with us like that of the former people,


মুফতী তাকী উসমানী

আমাদের কাছে যদি পূর্ববর্তী লোকদের মত উপদেশবাণী থাকত


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যদি আমাদের কাছে পূর্ববর্তীদের কোন উপদেশ থাকত,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘পূর্ববর্তীদের কিতাবের মত যদি আমাদের কোন কিতাব থাকত,


মাওলানা জহুরুল হক

"যদি আমাদের কাছে পূর্ববর্তীদের কাছ থেকে কোনো স্মরণীয় গ্রন্থ থাকতো,


১৬৯


لَکُنَّا عِبَادَ اللّٰہِ الۡمُخۡلَصِیۡنَ


লাকুন্না-‘ইবা-দাল্লা-হিল মুখলাসীন।


Mufti Taqi Usmani

we would have certainly been Allah’s chosen servants.”


মুফতী তাকী উসমানী

তবে আমরাও আল্লাহর মনোনীত বান্দাদের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যেতাম। ৩৪


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তবে আমরা অবশ্যই আল্লাহর মনোনীত বান্দা হতাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘আমরা অবশ্যই আল্লাহ্ র একনিষ্ঠ বান্দা হতাম।’


মাওলানা জহুরুল হক

তাহলে আমরা আল্লাহ্‌র নিষ্ঠাবান বান্দা হতে পারতাম।


তাফসীরঃ

৩৪. মূর্তিপূজকগণ মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের আবির্ভাবের আগে ইয়াহুদী ও খ্রিস্টানদেরকে বলত, আমাদের উপর যদি কোন আসমানী কিতাব নাযিল হত, তবে আমরা তা তোমাদের অপেক্ষা বেশি বিশ্বাস করতাম এবং তার অনুসরণে তোমাদের চেয়ে অগ্রগামী থাকতাম। এ আয়াতে তারই জবাব দেওয়া হয়েছে। অনুরূপ বিষয়বস্তু সূরা ফাতিরেও (৩৪ : ৪২) গত হয়েছে।


১৭০


فَکَفَرُوۡا بِہٖ فَسَوۡفَ یَعۡلَمُوۡنَ


ফাকাফারূবিহী ফাছাওফা ইয়া‘লামূন।


Mufti Taqi Usmani

Then (once the divine book came to them,) they disbelieved in it. So, very soon they will come to know.


মুফতী তাকী উসমানী

তা সত্ত্বেও তারা তার কুফরীতে লিপ্ত হল। সুতরাং তারা অচিরেই জানতে পারবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

বস্তুতঃ তারা এই কোরআনকে অস্বীকার করেছে। এখন শীঘ্রই তারা জেনে নিতে পারবে,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

কিন্তু এরা কুরআন প্রত্যাখ্যান করল এবং শীঘ্রই এরা জানতে পারবে;


মাওলানা জহুরুল হক

কিন্তু তারা এতে অবিশ্বাস পোষণ করে, কাজেই শীঘ্রই তারা জানতে পারবে।


১৭১


وَلَقَدۡ سَبَقَتۡ کَلِمَتُنَا لِعِبَادِنَا الۡمُرۡسَلِیۡنَ ۚۖ


ওয়া লাকাদ ছাবাকাত কালিমাতুনা-লি‘ইবা-দিনাল মুরছালীন।


Mufti Taqi Usmani

And Our Word has already come to pass in favor of Our servants, the messengers


মুফতী তাকী উসমানী

আমার প্রেরিত বান্দাদের সম্পর্কে পূর্বেই আমার একথা স্থিরীকৃত রয়েছে


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমার রাসূল ও বান্দাগণের ব্যাপারে আমার এই বাক্য সত্য হয়েছে যে,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমার প্রেরিত বান্দাদের সম্পর্কে আমার এই বাক্য পূর্বেই স্থির হয়েছে যে,


মাওলানা জহুরুল হক

আর অবশ্যই আমাদের বক্তব্য আমাদের বান্দাদের -- প্রেরিত পুরুষদের, জন্য সাব্যস্ত হয়েই গেছে, --


১৭২


اِنَّہُمۡ لَہُمُ الۡمَنۡصُوۡرُوۡنَ ۪


ইন্নাহুম লাহুমুল মানসূরূন।


Mufti Taqi Usmani

(that) they are the ones who will be supported,


মুফতী তাকী উসমানী

যে, নিশ্চিতভাবেই তারা সাহায্যপ্রাপ্ত হবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অবশ্যই তারা সাহায্য প্রাপ্ত হয়।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

অবশ্যই তারা সাহায্যপ্রাপ্ত হবে,


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ তাঁরা -- তাঁরাই তো হবে সাহায্যপ্রাপ্ত,


১৭৩


وَاِنَّ جُنۡدَنَا لَہُمُ الۡغٰلِبُوۡنَ


ওয়া ইন্না জুনদানা-লাহুমুল গা-লিবূন।


Mufti Taqi Usmani

and verily it is Our army (of chosen servants) that prevails.


মুফতী তাকী উসমানী

এবং নিশ্চয়ই আমার বাহিনীই হবে জয়যুক্ত।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আর আমার বাহিনীই হয় বিজয়ী।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং আমার বাহিনীই হবে বিজয়ী।


মাওলানা জহুরুল হক

আর নিঃসন্দেহ আমাদের সেনাদল -- তারাই তো হবে বিজয়ী।


১৭৪


فَتَوَلَّ عَنۡہُمۡ حَتّٰی حِیۡنٍ ۙ


ফাতাওয়াল্লা ‘আনহুম হাত্তা-হীন।


Mufti Taqi Usmani

So, withdraw your attention from them for some time.


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং (হে রাসূল!) তুমি কিছু কাল পর্যন্ত তাদেরকে উপেক্ষা করে চল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতএব আপনি কিছুকালের জন্যে তাদেরকে উপেক্ষা করুন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

অতএব কিছু কালের জন্যে তুমি এদেরকে উপেক্ষা কর।


মাওলানা জহুরুল হক

অতএব তাদের থেকে ফিরে থেকো কিছুকালের জন্য,


১৭৫


وَّاَبۡصِرۡہُمۡ فَسَوۡفَ یُبۡصِرُوۡنَ


ওয়া আবসিরহুম ফাছাওফা ইউবসিরূন।


Mufti Taqi Usmani

But, watch them. They shall soon see (the reality).


মুফতী তাকী উসমানী

এবং তাদেরকে দেখতে থাক। অচিরেই তারা নিজেরাও দেখতে পাবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং তাদেরকে দেখতে থাকুন। শীঘ্রই তারাও এর পরিণাম দেখে নেবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তুমি এদেরকে পর্যবেক্ষণ কর, শীঘ্রই এরা প্রত্যক্ষ করবে।


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাদের প্রতি লক্ষ্য রাখো, কেননা তারাও শীঘ্রই দেখতে পাবে।


১৭৬


اَفَبِعَذَابِنَا یَسۡتَعۡجِلُوۡنَ


আফাবি‘আযা-বিনা-ইয়াছতা‘জিলূন।


Mufti Taqi Usmani

Are they asking for Our punishment to come sooner?


মুফতী তাকী উসমানী

তবে কি তারা আমার শাস্তির জন্য তাড়াহুড়া করছে? ৩৫


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমার আযাব কি তারা দ্রুত কামনা করে?


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা কি তবে আমার শাস্তি ত্বরান্বিত করতে চায়?


মাওলানা জহুরুল হক

তারা কি তবে আমাদের শাস্তি ত্বরান্বিত করতে চায়?


তাফসীরঃ

৩৫. কাফেরগণ ঠাট্টাচ্ছলে মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলত, আপনি আমাদেরকে যে শাস্তির ভয় দেখাচ্ছেন, তা তাড়াতাড়ি আসছে না কেন? এ আয়াতে তার উত্তর দেওয়া হয়েছে।


১৭৭


فَاِذَا نَزَلَ بِسَاحَتِہِمۡ فَسَآءَ صَبَاحُ الۡمُنۡذَرِیۡنَ


ফাইযা-নাঝালা বিছা-হাতিহিম ফাছাআ সাবাহুল মুনযারীন।


Mufti Taqi Usmani

So, when it will descend in their courtyard, then, evil will be the morning of those warned.


মুফতী তাকী উসমানী

তাদের আঙ্গিনায় যখন শাস্তি নেমে আসবে, তখন যাদেরকে সতর্ক করা হয়েছে, তাদের প্রভাত হবে অতি মন্দ।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর যখন তাদের আঙ্গিনায় আযাব নাযিল হবে, তখন যাদেরকে সতর্ক করা হয়েছিল, তাদের সকাল বেলাটি হবে খুবই মন্দ।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তাদের আঙিনায় যখন শাস্তি নেমে আসবে তখন সতর্কীকৃতদের প্রভাত হবে কত মন্দ!


মাওলানা জহুরুল হক

কিন্তু যখন তা তাদের আঙিনায় অবতরণ করবে তখন সতর্কীকৃতদের প্রভাত হবে কত মন্দ!


১৭৮


وَتَوَلَّ عَنۡہُمۡ حَتّٰی حِیۡنٍ ۙ


ওয়া তাওয়াল্লা ‘আনহুম হাত্তা-হীন।


Mufti Taqi Usmani

So, withdraw your attention from them for some time,


মুফতী তাকী উসমানী

তুমি কিছু কালের জন্য তাদেরকে উপেক্ষা কর।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আপনি কিছুকালের জন্যে তাদেরকে উপেক্ষা করুন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

অতএব কিছু কালের জন্যে তুমি এদেরকে উপেক্ষা কর।


মাওলানা জহুরুল হক

আর তুমি তাদের থেকে ফিরে থেকো কিছুকালের জন্য,


১৭৯


وَّاَبۡصِرۡ فَسَوۡفَ یُبۡصِرُوۡنَ


ওয়া আবসির ফাছাওফা ইউবসিরূন।


Mufti Taqi Usmani

and watch. They shall soon see (the reality).


মুফতী তাকী উসমানী

এবং দেখতে থাক, অচিরেই তারা নিজেরাও দেখতে পাবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং দেখতে থাকুন, শীঘ্রই তারাও এর পরিণাম দেখে নেবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তুমি এদেরকে পর্যবেক্ষণ কর, শীঘ্রই এরা প্রত্যক্ষ করবে।


মাওলানা জহুরুল হক

আর লক্ষ্য রাখো, কেননা তারাও শীঘ্রই দেখতে পাবে।


১৮০


سُبۡحٰنَ رَبِّکَ رَبِّ الۡعِزَّۃِ عَمَّا یَصِفُوۡنَ ۚ


ছুবহা-না রাব্বিকা রাব্বিল ‘ইঝঝাতি ‘আম্মা-ইয়াসিফূন।


Mufti Taqi Usmani

Pure is your Lord, the Lord of all might and honor, from what they describe


মুফতী তাকী উসমানী

তোমার প্রতিপালক, যিনি ক্ষমতার মালিক, তারা যা বলছে, তা হতে পবিত্র।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

পবিত্র আপনার পরওয়ারদেগারের সত্তা, তিনি সম্মানিত ও পবিত্র যা তারা বর্ণনা করে তা থেকে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা যা আরোপ করে তা হতে পবিত্র ও মহান তোমার প্রতিপালক, যিনি সকল ক্ষমতার অধিকারী।


মাওলানা জহুরুল হক

মহিমা কীর্তিত হোক তোমার প্রভুর -- পরম মর্যাদা সম্পন্ন প্রভুর, তারা যা-কিছু আরোপ করে তা থেকে বহু ঊর্ধ্বে।


১৮১


وَسَلٰمٌ عَلَی الۡمُرۡسَلِیۡنَ ۚ


ওয়া-ছালা-মুন ‘আলাল মুরছালীন।


Mufti Taqi Usmani

and Salām be on the messengers


মুফতী তাকী উসমানী

আর সালাম রাসূলদের প্রতি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

পয়গম্বরগণের প্রতি সালাম বর্ষিত হোক।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

শান্তি বর্ষিত হোক রাসূলদের প্রতি!


মাওলানা জহুরুল হক

আর 'সালাম’ প্রেরিতপুরুষদের উপরে।


১৮২


وَالۡحَمۡدُ لِلّٰہِ رَبِّ الۡعٰلَمِیۡنَ ٪


ওয়াল হামদুলিল্লা-হি রাব্বিল ‘আ-লামীন।


Mufti Taqi Usmani

and praised is Allah, the Lord of all the worlds.


মুফতী তাকী উসমানী

এবং সমস্ত প্রশংসা আল্লাহর, যিনি জগতসমূহের প্রতিপালক।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

সমস্ত প্রশংসা বিশ্বপালক আল্লাহর নিমিত্ত।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আর সকল প্রশংসা জগতসমূহের প্রতিপালক আল্লাহ্ র ই প্রাপ্য।


মাওলানা জহুরুল হক


Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.
Post a Comment (0)

islamicinfohub Top Post Ad1

#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !
To Top