সূরা দুখান ডাউনলোড, নামাজের শেষে সুরা দুখান পাঠের গুরুত্ব, ৫ ওয়াক্ত সালাতে দুখান পড়ার গুরুত্ব,৫ ওয়াক্ত নামাজে দুখান আমল ও ফজিলত, ৫০৫ বার সূরা দুখান, ৯৯৯ বার সূরা দুখান

0

 

সূরা দুখান ডাউনলোড, নামাজের শেষে সুরা দুখান পাঠের গুরুত্ব, ৫ ওয়াক্ত সালাতে দুখান পড়ার গুরুত্ব,৫ ওয়াক্ত নামাজে দুখান আমল ও ফজিলত, ৫০৫ বার সূরা দুখান, ৯৯৯ বার সূরা দুখান

৪৪ . আদ-দুখান - ( الدخان ) | ধোঁয়া

মাক্কী, মোট আয়াতঃ ৫৯


بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَـٰنِ الرَّحِيمِ


حٰمٓ ۚۛ


হা-মীম।


Mufti Taqi Usmani

Hā Mīm .


মুফতী তাকী উসমানী

হা-মীম।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

হা-মীম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

হা-মীম।


মাওলানা জহুরুল হক

হা মীম!



وَالۡکِتٰبِ الۡمُبِیۡنِ ۙۛ


ওয়াল কিতা-বিল মুবীন।


Mufti Taqi Usmani

By the manifest Book,


মুফতী তাকী উসমানী

শপথ কিতাবের, যা (সত্যের) সুস্পষ্টকারী।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

শপথ সুস্পষ্ট কিতাবের।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

শপথ সুস্পষ্ট কিতাবের।


মাওলানা জহুরুল হক

সুস্পষ্ট গ্রন্থের কথা ভেবে দেখো --



اِنَّاۤ اَنۡزَلۡنٰہُ فِیۡ لَیۡلَۃٍ مُّبٰرَکَۃٍ اِنَّا کُنَّا مُنۡذِرِیۡنَ


ইন্নাআনঝালনা-হূফী লাইলাতিম মুবা-রাকাতিন ইন্না-কুন্না-মুনযিরীন।


Mufti Taqi Usmani

We have sent it down in a blessed night, (because) We had to warn (people).


মুফতী তাকী উসমানী

আমি এটা নাযিল করেছি এক মুবারক রাতে। ১ (কেননা) আমি মানুষকে সতর্ক করার ছিলাম।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি একে নাযিল করেছি। এক বরকতময় রাতে, নিশ্চয় আমি সতর্ককারী।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি তো এটা অবতীর্ণ করেছি এক মুবারক রজনীতে ; আমি তো সতর্ককারী।


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ আমরা এটি অবতারণ করেছি এক পবিত্র রাত্রিতে, নিঃসন্দেহ আমরা চির-সতর্ককারী।


তাফসীরঃ

১. এর দ্বারা ‘শবে কদর’ বোঝানো উদ্দেশ্য। কেননা এ রাতেই কুরআন মাজীদকে লাওহে মাহফুজ থেকে দুনিয়ার আকাশে নাযিল করা হয়। তারপর সেখান থেকে অল্প-অল্প করে মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহিওয়াসাল্লামের কাছে পাঠানো হতে থাকে।



فِیۡہَا یُفۡرَقُ کُلُّ اَمۡرٍ حَکِیۡمٍ ۙ


ফীহা-ইউফরাকুকুল্লুআমরিন হাকীম।


Mufti Taqi Usmani

In that (night), every wise matter is allocated


মুফতী তাকী উসমানী

এ রাতেই প্রতিটি প্রজ্ঞাজনোচিত বিষয় স্থির করা হয়। ২


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এ রাতে প্রত্যেক প্রজ্ঞাপূর্ণ বিষয় স্থিরীকৃত হয়।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এই রজনীতে প্রত্যেক প্রজ্ঞাপূর্ণ বিষয় স্থিরীকৃত হয়,


মাওলানা জহুরুল হক

এতে প্রত্যেক বিষয় সুস্পষ্ট করা হয় জ্ঞানভান্ডার দিয়ে,


তাফসীরঃ

২. অর্থাৎ প্রতি বছর কোন ব্যক্তি জন্ম নেবে, তাকে কী পরিমাণ রিযক দেওয়া হবে, কার মৃত্যু হবে ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় স্থির করা হয় এবং তা কার্যকর করার জন্য সংশ্লিষ্ট ফেরেশতাদের দায়িত্ব দেওয়া হয়।



اَمۡرًا مِّنۡ عِنۡدِنَا ؕ  اِنَّا کُنَّا مُرۡسِلِیۡنَ ۚ


আমরাম মিন ‘ইনদিনা- ইন্না-কুন্না-মুরছিলীন।


Mufti Taqi Usmani

through a command from Us. We were to send the Messenger


মুফতী তাকী উসমানী

(তাছাড়া) আমার নির্দেশে, আমি (এক) রাসূল পাঠাবার ছিলাম,


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমার পক্ষ থেকে আদেশক্রমে, আমিই প্রেরণকারী।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমার আদেশক্রমে, আমি তো রাসূল প্রেরণ করে থাকি


মাওলানা জহুরুল হক

আমাদের তরফ থেকে এক নির্দেশনামা। নিঃসন্দেহ আমরা সতত প্রেরণকারী, --

(ads1)

(getButton) #text=(আল কোরআন বাংলা অনুবাদ সহ এক সাথে ) #icon=(link) #color=(#f50707)


رَحۡمَۃً مِّنۡ رَّبِّکَ ؕ  اِنَّہٗ ہُوَ السَّمِیۡعُ الۡعَلِیۡمُ ۙ


রাহমাতাম মির রাব্বিকা ইন্নাহূহুওয়াছ ছামী‘উল ‘আলীম।


Mufti Taqi Usmani

as a mercy from your Lord, -Surely, He is the All-Hearing, the All-Knowing-


মুফতী তাকী উসমানী

তোমার প্রতিপালকের পক্ষ হতে রহমত স্বরূপ। নিশ্চয় তিনিই সকল কথা শোনেন, সবকিছু জানেন।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আপনার পালনকর্তার পক্ষ থেকে রহমতস্বরূপ। তিনি সর্বশ্রোতা, সর্বজ্ঞ।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তোমার প্রতিপালকের অনুগ্রহস্বরূপ ; তিনি তো সর্বশ্রোতা, সর্বজ্ঞ-


মাওলানা জহুরুল হক

তোমার প্রভু কাছ থেকে এ এক অনুগ্রহ। নিঃসন্দেহ তিনি, তিনিই সর্বশ্রোতা, সর্বজ্ঞাতা, --



رَبِّ السَّمٰوٰتِ وَالۡاَرۡضِ وَمَا بَیۡنَہُمَا ۘ اِنۡ کُنۡتُمۡ مُّوۡقِنِیۡنَ


রাব্বিছ ছামা-ওয়া-তি ওয়াল আরদিওয়া মা-বাইনাহুমা- । ইন কনতুম মূকিনীন।


Mufti Taqi Usmani

the Lord of the heavens and the earth and of whatever there is between them, if you are to believe.


মুফতী তাকী উসমানী

যিনি আকাশমণ্ডলী, পৃথিবী এবং উভয়ের মধ্যবর্তী সব কিছুর রব্ব যদি বাস্তবিকই তোমরা বিশ্বাসী হও।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যদি তোমাদের বিশ্বাস থাকে দেখতে পাবে। তিনি নভোমন্ডল, ভূমন্ডল ও এতদুভয়ের মধ্যেবর্তী সবকিছুর পালনকর্তা।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

যিনি আকাশমণ্ডলী, পৃথিবী ও এদের মধ্যবর্তী সমস্ত কিছুর প্রতিপালক, যদি তোমরা নিশ্চিত বিশ্বাসী হও।


মাওলানা জহুরুল হক

মহাকাশমন্ডলী ও পৃথিবীর এবং এ দুইয়ের মধ্যে যা আছে তার প্রভু, -- যদি তোমরা সুনিশ্চিত হও।



لَاۤ اِلٰہَ اِلَّا ہُوَ یُحۡیٖ وَیُمِیۡتُ ؕ رَبُّکُمۡ وَرَبُّ اٰبَآئِکُمُ الۡاَوَّلِیۡنَ


লাইলা-হা ইল্লা-হুওয়া ইউহয়ী ওয়া ইউমীতু রাব্বুকুম ওয়া রাব্বুআ-বাইকুমুল আওওয়ালীন।


Mufti Taqi Usmani

There is no god, but He. He gives life and brings death. He is your Lord and the Lord of your forefathers.


মুফতী তাকী উসমানী

তিনি ছাড়া কোন মাবুদ নেই। তিনি জীবন দান করেন এবং মৃত্যুও ঘটান। তিনি তোমাদের প্রতিপালক এবং পূর্বে গত তোমাদের বাপ-দাদাদেরও প্রতিপালক।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তিনি ব্যতীত কোন উপাস্য নেই। তিনি জীবন দান করেন ও মৃত্যু দেন। তিনি তোমাদের পালনকর্তা এবং তোমাদের পূর্ববর্তী পিতৃ-পুরুষদেরও পালনকর্তা।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তিনি ব্যতীত কোন ইলাহ্ নেই, তিনি জীবন দান করেন এবং তিনিই মৃত্যু ঘটান; তিনি তোমাদের প্রতিপালক এবং তোমাদের পূর্বপুরুষদেরও প্রতিপালক।


মাওলানা জহুরুল হক

তিনি ব্যতীত অন্য উপাস্য নেই, তিনি জীবন দান করেন ও মৃত্যু ঘটান। তোমাদের প্রভু এবং পূর্বকালীন তোমাদের পিতৃপুরষদেরও প্রভু।



بَلۡ ہُمۡ فِیۡ شَکٍّ یَّلۡعَبُوۡنَ


বালহুম ফী শাক্কিইঁ ইয়াল‘আবূন।


Mufti Taqi Usmani

But they, being in doubt, are playing around.


মুফতী তাকী উসমানী

(তা সত্ত্বেও কাফেরগণ ঈমান আনে না); বরং তারা সন্দেহে নিপতিত থেকে খেল-তামাশা করছে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এতদসত্ত্বেও এরা সন্দেহে পতিত হয়ে ক্রীড়া-কৌতুক করছে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

বস্তুত এরা সন্দেহের বশবর্তী হয়ে হাসিঠাট্টা করছে।


মাওলানা জহুরুল হক

বস্তুতঃ তারা সন্দেহের মাঝে ছেলেখেলা খেলছে।


১০


فَارۡتَقِبۡ یَوۡمَ تَاۡتِی السَّمَآءُ بِدُخَانٍ مُّبِیۡنٍ ۙ


ফারতাকিব ইয়াওমা তা’তিছ ছামাউ বিদুখা-নিম মুবীন।


Mufti Taqi Usmani

So, wait for a day when the sky will come up with a visible smoke


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং সেই দিনের অপেক্ষা কর, যখন আকাশ স্পষ্ট ধোঁয়াচ্ছন্ন হয়ে দেখা দেবে


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতএব আপনি সেই দিনের অপেক্ষা করুন, যখন আকাশ ধূয়ায় ছেয়ে যাবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

অতএব তুমি অপেক্ষা কর সেই দিনের যেদিন স্পষ্ট ধূম্রাচ্ছন্ন হবে আকাশ,


মাওলানা জহুরুল হক

সুতরাং তুমি অপেক্ষা কর সেই দিনের যখন আকাশ নেমে আসবে প্রকাশ্য ধোঁয়া নিয়ে, --


১১


یَّغۡشَی النَّاسَ ؕ ہٰذَا عَذَابٌ اَلِیۡمٌ


ইয়াগশান্না-ছা হা-যা-‘আযা-বুন আলীম।


Mufti Taqi Usmani

that will envelop people. This is a painful punishment.


মুফতী তাকী উসমানী

যা মানুষকে আচ্ছন্ন করবে। ৩ এটা এক যন্ত্রণাময় শাস্তি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যা মানুষকে ঘিরে ফেলবে। এটা যন্ত্রণাদায়ক শাস্তি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং তা আবৃত করে ফেলবে মানব জাতিকে। এটা হবে মর্মন্তুদ শাস্তি।


মাওলানা জহুরুল হক

মানুষকে জড়িয়ে ফেলে। এ এক মর্মন্তদ শাস্তি।


তাফসীরঃ

৩. হযরত আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রাযি.) থেকে এ আয়াতের তাফসীরে বর্ণিত আছে যে, আল্লাহ তাআলা কাফেরদেরকে সতর্ক করার জন্য তাদেরকে এক কঠিন দুর্ভিক্ষের কবলে ফেলেছিলেন। প্রচণ্ড খাদ্য সংকটে মানুষের মধ্যে হাহাকার পড়ে গিয়েছিল। ক্ষুধার্ত মানুষ যখন আকাশের দিকে তাকাত তখন তার মনে হত সারা আকাশ ধোঁয়ায় ছেয়ে আছে। এ আয়াতে সেই দুর্ভিক্ষের ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছে। বলা হচ্ছে, শাস্তি হিসেবে কাফেরদেরকে এমন দুর্ভিক্ষের কবলে ফেলা হবে যে, ক্ষুধার্ত অবস্থায় তারা আকাশে শুধু ধোঁয়া দেখতে পাবে। তখন তারা ওয়াদা করবে, এই দুর্ভিক্ষ কেটে গেলে আমরা অবশ্যই ঈমান আনব। কিন্তু যখন তাদেরকে দুর্ভিক্ষ থেকে মুক্তি দেওয়া হল, তখন সে ওয়াদার কথা ভুলে পুনরায় শিরকে লিপ্ত হল।


১২


رَبَّنَا اکۡشِفۡ عَنَّا الۡعَذَابَ اِنَّا مُؤۡمِنُوۡنَ


রাব্বানাকশিফ ‘আন্নাল ‘আযা-বা ইন্না-মু’মিনূন।


Mufti Taqi Usmani

(Then they will say,) “O our Lord, remove from us the punishment; we will truly believe.”


মুফতী তাকী উসমানী

(তখন তারা বলবে) হে আমাদের প্রতিপালক! আমাদের থেকে এই শাস্তি অপসারণ করুন। আমরা অবশ্যই ঈমান আনব।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

হে আমাদের পালনকর্তা আমাদের উপর থেকে শাস্তি প্রত্যাহার করুন, আমরা বিশ্বাস স্থাপন করছি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তখন এরা বলবে, ‘হে আমাদের প্রতিপালক ! আমাদের হতে শাস্তি দূর কর, অবশ্যই আমরা ঈমান আনব।’


মাওলানা জহুরুল হক

আমাদের প্রভু! আমাদের থেকে শাস্তি সরিয়ে নাও, নিঃসন্দেহ আমরা বিশ্বাসী হচ্ছি।


১৩


اَنّٰی لَہُمُ الذِّکۡرٰی وَقَدۡ جَآءَہُمۡ رَسُوۡلٌ مُّبِیۡنٌ ۙ


আন্না-লাহুমুযযিকরা-ওয়াকাদ জাআহুম রাছূলুম মুবীন।


Mufti Taqi Usmani

How will they take lesson, while there has already come to them a messenger making things clear?


মুফতী তাকী উসমানী

কোথায় তারা উপদেশ গ্রহণ করে? অথচ তাদের কাছে এসেছে এমন রাসূল, যে সত্য স্পষ্ট করে দেয়।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা কি করে বুঝবে, অথচ তাদের কাছে এসেছিলেন স্পষ্ট বর্ণনাকারী রসূল।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা কী করে উপদেশ গ্রহণ করবে ? এদের নিকট তো এসেছে স্পষ্ট ব্যাখ্যাতা এক রাসূল ;


মাওলানা জহুরুল হক

কেমন ক’রে তাদের জন্য উপদেশ-গ্রন্থ হবে, অথচ তাদের কাছে একজন প্রকাশ্য রসূল এসেই গেছেন?


১৪


ثُمَّ تَوَلَّوۡا عَنۡہُ وَقَالُوۡا مُعَلَّمٌ مَّجۡنُوۡنٌ ۘ


ছু ম্মা তাওয়াল্লাও ‘আনহু ওয়া কা-লূমু‘আল্লামুম মাজনূন।


Mufti Taqi Usmani

Then they turned away from him, and said, “(He is) tutored, crazy.”


মুফতী তাকী উসমানী

তারপরও তারা তা থেকে মুখ ফিরিয়ে রাখল এবং বলল, একে তো শেখানো হয়েছে, সে তো উন্মাদ। ৪


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর তারা তাকে পৃষ্ঠপ্রদর্শন করে এবং বলে, সে তো উম্মাদ-শিখানো কথা বলে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরপর এরা তাকে অমান্য করে বলে, ‘সে শিক্ষাপ্রাপ্ত এক পাগল!’


মাওলানা জহুরুল হক

কিন্ত তারা তখন তাঁর থেকে ফিরে গিয়েছিল আর বলেছিল -- "শেখানো, পাগল।"


তাফসীরঃ

৪. অর্থাৎ তারা তো কুরআনের প্রতি ঈমান আনলই না এবং রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের রিসালাতকেও স্বীকার করল না, উল্টো বলতে লাগল, এ কুরআন আল্লাহ তাআলার পক্ষ হতে পাঠানো নয়; বরং তিনি কোন এক মানুষের কাছ থেকে শিক্ষা গ্রহণ করে তাই আমাদের শোনাচ্ছেন (নাউযুবিল্লাহ)। সেই সঙ্গে তারা তাকে পাগলও বলত -অনুবাদক।


১৫


اِنَّا کَاشِفُوا الۡعَذَابِ قَلِیۡلًا اِنَّکُمۡ عَآئِدُوۡنَ ۘ


ইন্না-কা-শিফুল ‘আযা-বি কালীলান ইন্নাকুম ‘আইদূন।


Mufti Taqi Usmani

(Well,) We are going to remove the punishment for a while, (but) you will certainly go back (to your original position).


মুফতী তাকী উসমানী

আমি কিছু কালের জন্য শাস্তি অপসারণ করছি। এটা নিশ্চিত যে, তোমরা আবার এ অবস্থায়ই ফিরে আসবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি তোমাদের উপর থেকে আযাব কিছুটা প্রত্যাহার করব, কিন্তু তোমরা পুনরায় পুনর্বস্থায় ফিরে যাবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি কিছু কালের জন্যে শাস্তি রহিত করব-তোমরা তো তোমাদের পূর্বাবস্থায় ফিরে যাবে।


মাওলানা জহুরুল হক

আমরা না হয় কিছুকালের জন্য শাস্তি স্থগিতই রাখব, কিন্ত তোমরা তো ফিরে যাবে।


১৬


یَوۡمَ نَبۡطِشُ الۡبَطۡشَۃَ الۡکُبۡرٰی ۚ اِنَّا مُنۡتَقِمُوۡنَ


ইয়াওমা নাবতিশুল বাতশাতাল কুবরা- ইন্না-মুনতাকিমূন।


Mufti Taqi Usmani

(Then,) the day We will seize (you) with the greatest seizure, We will take vengeance.


মুফতী তাকী উসমানী

যে দিন আমি ধরব সর্ববৃহৎ ধরায়, সে দিন আমি অবশ্যই শাস্তি দেব। ৫


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যেদিন আমি প্রবলভাবে ধৃত করব, সেদিন পুরোপুরি প্রতিশোধ গ্রহণ করবই।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

যেদিন আমি তোমাদেরকে প্রবলভাবে পাকড়াও করব, সেদিন নিশ্চয়ই আমি তোমাদেরকে শাস্তি দিবই।


মাওলানা জহুরুল হক

যেদিন আমরা পাকড়াবো বিরাট ধড়পাকড়ে, সেদিন আমরা নিশ্চয়ই শেষ-পরিণতি দেখাব।


তাফসীরঃ

৫. অর্থাৎ এখন তো এ শাস্তি তাদের থেকে দূর করা হবে, কিন্তু কিয়ামতে যখন তাদেরকে ধরা হবে, তখন তাদেরকে পুরোপুরি শাস্তিই ভোগ করতে হবে।


১৭


وَلَقَدۡ فَتَنَّا قَبۡلَہُمۡ قَوۡمَ فِرۡعَوۡنَ وَجَآءَہُمۡ رَسُوۡلٌ کَرِیۡمٌ ۙ


ওয়া লাকাদ ফাতান্না-কাবলাহুম কাওমা ফির‘আওনা ওয়া জাআহুম রাছূলুন কারীম।


Mufti Taqi Usmani

And We tested the people of Fir‘aun (Pharaoh) prior to them, and a noble messenger came to them


মুফতী তাকী উসমানী

তাদের আগে ফির‘আউনের সম্প্রদায়কে আমি পরীক্ষা করেছিলাম এবং তাদের কাছে এসেছিল এক মর্যাদাবান রাসূল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাদের পূর্বে আমি ফেরাউনের সম্প্রদায়কে পরীক্ষা করেছি এবং তাদের কাছে আগমন করেছেন একজন সম্মানিত রসূল,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এদের পূর্বে আমি তো ফির‘আওন সম্প্রদায়কে পরীক্ষা করেছিলাম এবং এদের নিকটও এসেছিল এক সম্মানিত রাসূল,


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাদের আগে আমরা তো ফির'আউনের লোকদলকে পরীক্ষা করেইছিলাম, আর তাদের নিকট এক সম্মানিত রসূল এসেছিলেন,


১৮


اَنۡ اَدُّوۡۤا اِلَیَّ عِبَادَ اللّٰہِ ؕ  اِنِّیۡ لَکُمۡ رَسُوۡلٌ اَمِیۡنٌ ۙ


আন আদ্দূইলাইইয়া ‘ইবা-দাল্লা-হি ইন্নী লাকুম রাছূলুন আমীন।


Mufti Taqi Usmani

saying, “Deliver to me the servants of Allah. I am an honest messenger to you,”


মুফতী তাকী উসমানী

(সে বলেছিল) আল্লাহর বান্দাদেরকে আমার কাছে সমর্পণ কর। ৬ আমি তোমাদের কাছে এক বিশ্বস্ত রাসূল হয়ে এসেছি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এই মর্মে যে, আল্লাহর বান্দাদেরকে আমার কাছে অর্পণ কর। আমি তোমাদের জন্য প্রেরীত বিশ্বস্ত রসূল।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সে বলল, ‘আল্লাহ্ র বান্দাদেরকে আমার নিকট প্রত্যর্পণ কর। আমি তোমাদের জন্যে এক বিশ্বস্ত রাসূল।


মাওলানা জহুরুল হক

এই বলে -- "আল্লাহ্‌র বান্দাদের আমার নিকট ফেরত দাও, নিঃসন্দেহ আমি তোমাদের প্রতি একজন বিশ্বস্ত বাণীবাহক,


তাফসীরঃ

৬. ইশারা বনী ইসরাঈলের প্রতি, ফির‘আউন যাদেরকে দাস বানিয়ে রেখেছিল। বিস্তারিত দেখুন সূরা তোয়াহা (২০ : ৪৭)।


১৯


وَّاَنۡ لَّا تَعۡلُوۡا عَلَی اللّٰہِ ۚ  اِنِّیۡۤ اٰتِیۡکُمۡ بِسُلۡطٰنٍ مُّبِیۡنٍ ۚ


ওয়া আল্লা-তা‘লূ‘আল্লাল্লা-হি ইন্নীআ-তীকুম বিছুলতা-নিম মুবীন।


Mufti Taqi Usmani

and saying, “Do not be haughty against Allah. I bring to you a clear proof.


মুফতী তাকী উসমানী

আরও বলল, আল্লাহর বিরুদ্ধে ঔদ্ধত্য প্রদর্শন করো না। আমি তোমাদের সামনে এক স্পষ্ট প্রমাণ পেশ করছি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আর তোমরা আল্লাহর বিরুদ্ধে ঔদ্ধত্য প্রকাশ করো না। আমি তোমাদের কাছে প্রকাশ্য প্রমাণ উপস্থিত করছি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘এবং তোমরা আল্লাহ্ র বিরুদ্ধে ঔদ্ধত্য প্রকাশ কর না, আমি তোমাদের নিকট উপস্থিত করছি স্পষ্ট প্রমাণ।


মাওলানা জহুরুল হক

"আর যেন তোমরা আল্লাহ্‌র উপরে উঠতে যেও না, নিঃসন্দেহ আমি তোমাদের কাছে নিয়ে এসেছি এক সুস্পষ্ট দলিল।


২০


وَاِنِّیۡ عُذۡتُ بِرَبِّیۡ وَرَبِّکُمۡ اَنۡ تَرۡجُمُوۡنِ ۫


ওয়া ইন্নী ‘উযতুবিরাববী ওয়া রাব্বিকুম আন তার জুমূন।


Mufti Taqi Usmani

And I have sought refuge with my Lord and your Lord, lest you stone me to death.


মুফতী তাকী উসমানী

তোমরা যে আমাকে পাথর মেরে হত্যা করবে, তার থেকে আমি আশ্রয় গ্রহণ করছি আমার ও তোমাদের প্রতিপালকের। ৭


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমরা যাতে আমাকে প্রস্তরবর্ষণে হত্যা না কর, তজ্জন্যে আমি আমার পালনকর্তা ও তোমাদের পালনকর্তার শরনাপন্ন হয়েছি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘তোমরা যাতে আমাকে প্রস্তরাঘাতে হত্যা করতে না পার, তার জন্যে আমি আমার প্রতিপালক ও তোমাদের প্রতিপালকের শরণ নিচ্ছি।

(ads2)

(getButton) #text=(আল কোরআন বাংলা অনুবাদ সহ এক সাথে ) #icon=(link) #color=(#f50707)

মাওলানা জহুরুল হক

"আর আমি আলবৎ আশ্রয় চাইছি আমার প্রভু ও তোমাদের প্রভুর কাছে, পাছে তোমরা আমাকে পাথর মে’রে মেরে ফেল।


তাফসীরঃ

৭. ফির‘আউন হযরত মূসা আলাইহিস সালামকে তাঁর দাওয়াতের জবাবে হত্যা করার হুমকি দিয়েছিল। এটা তারই উত্তর।


২১


وَاِنۡ لَّمۡ تُؤۡمِنُوۡا لِیۡ فَاعۡتَزِلُوۡنِ


ওয়া ইল্লাম তু’মিনূলী ফা‘তাঝিলূন।


Mufti Taqi Usmani

And if you do not believe in me, then keep away from me.”


মুফতী তাকী উসমানী

তোমরা যদি আমার প্রতি ঈমান না আন, তবে তোমরা আমার থেকে দূরে থাক। ৮


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমরা যদি আমার প্রতি বিশ্বাস স্থাপন না কর, তবে আমার কাছ থেকে দূরে থাক।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘যদি তোমরা আমার কথায় বিশ্বাস স্থাপন না কর, তবে তোমরা আমার নিকট হতে দূরে থাক।’


মাওলানা জহুরুল হক

আর যদি তোমরা আমাতে বিশ্বাস না কর তাহলে আমাকে যেতে দাও।


তাফসীরঃ

৮. অর্থাৎ তোমরা যদি আমার উপর ঈমান না আন, তবে অন্ততপক্ষে আমাকে ছেড়ে দাও, যাতে আমি আল্লাহর বান্দাদের কাছে সত্যের বার্তা পৌঁছাতে পারি এবং যাদের ঈমান আনার যোগ্যতা আছে তারা ঈমানের দাওয়াত পেতে পারে। সুতরাং আমাকে কষ্ট দেওয়া ও আমার কাজে বাধা সৃষ্টি করা হতে বিরত থাক।


২২


فَدَعَا رَبَّہٗۤ اَنَّ ہٰۤؤُلَآءِ قَوۡمٌ مُّجۡرِمُوۡنَ ؓ


ফাদা‘আ-রাব্বাহূআন্না হাউলাই কাওমুম মুজরিমূন।


Mufti Taqi Usmani

Then he prayed to his Lord saying, “These are a guilty people.”


মুফতী তাকী উসমানী

তারপর সে নিজ প্রতিপালককে ডাক দিয়ে বলল, এরা তো এক অপরাধী সম্প্রদায়।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর সে তার পালনকর্তার কাছে দোয়া করল যে, এরা অপরাধী সম্প্রদায়।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরপর মূসা তার প্রতিপালকের নিকট নিবেদন করল, ‘এরা তো এক অপরাধী সম্প্রদায়।’


মাওলানা জহুরুল হক

তারপর তিনি তাঁর প্রভুকে ডেকে বললেন -- "এরা হচ্ছে এক অপরাধী জাতি।"


২৩


فَاَسۡرِ بِعِبَادِیۡ لَیۡلًا اِنَّکُمۡ مُّتَّبَعُوۡنَ ۙ


ফাআছরি বি‘ইবা-দী লাইলান ইন্নাকুম মুত্তাবা‘ঊন।


Mufti Taqi Usmani

(So, Allah answered his prayer saying,) “Now, take away my servants at night. You will certainly be chased,


মুফতী তাকী উসমানী

(আল্লাহ তাআলা বললেন,) তা হলে তুমি আমার বান্দাদের নিয়ে রাতের ভেতর রওয়ানা হয়ে যাও। অবশ্যই তোমাদের পশ্চাদ্ধাবন করা হবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাহলে তুমি আমার বান্দাদেরকে নিয়ে রাত্রিবেলায় বের হয়ে পড়। নিশ্চয় তোমাদের পশ্চাদ্ধবন করা হবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি বলেছিলাম, ‘তুমি আমার বান্দাদেরকে নিয়ে রজনীযোগে বের হয়ে পড়, তোমাদের পশ্চাদ্ধাবন করা হবেই।’


মাওলানা জহুরুল হক

"তাহলে আমার বান্দাদের নিয়ে রাত্রিকালে রওয়ানা হও, তোমরা অবশ্যই পশ্চাদ্ধাবিত হবে,


২৪


وَاتۡرُکِ الۡبَحۡرَ رَہۡوًا ؕ اِنَّہُمۡ جُنۡدٌ مُّغۡرَقُوۡنَ


ওয়াতরুকিল বাহরা রাহওয়া- ইন্নাহুম জনদুম মুগরাকূন।


Mufti Taqi Usmani

and leave the sea in the state of stillness; they are an army that is sure to be drowned.”


মুফতী তাকী উসমানী

তুমি সাগরকে স্থির থাকতে দাও। ৯ নিশ্চয়ই তারা এমন এক বাহিনী যা নিমজ্জিত হবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং সমুদ্রকে অচল থাকতে দাও। নিশ্চয় ওরা নিমজ্জত বাহিনী।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সমুদ্রকে স্থির থাকতে দাও, এরা এমন এক বাহিনী যা নিমজ্জিত হবেই।


মাওলানা জহুরুল হক

আর সমুদ্রকে পেছনে রেখে যাও শান্ত অবস্থায়। নিঃসন্দেহ তারা হচ্ছে এমন এক বাহিনী যারা নিমজ্জিত হবে।"


তাফসীরঃ

৯. অর্থাৎ পথে তোমার সামনে যখন সাগর পড়বে, তখন আল্লাহ তাআলা সাগরকে থামিয়ে দেবেন এবং তোমার জন্য তার মধ্য দিয়ে পথ করে দেবেন। সাগর পার হয়ে যাওয়ার পর তোমার আর এই চিন্তা করার দরকার নেই যে, সাগরের সেই পথ তো ফির‘আউনের বাহিনীকেও উপকার দেবে এবং তা দিয়ে পার হয়ে তারা যথারীতি আমাদের পশ্চাদ্ধাবন করতে থাকবে। বরং তুমি সাগরকে সেভাবেই স্থির থাকতে দাও। আল্লাহ তাআলা নিজেই তাদেরকে ডোবানোর জন্য সাগরকে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে দেবেন। ফলে তারা সব ধ্বংস হবে। এ ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ সূরা ইউনুস (১০ : ৯০-৯২) ও সূরা শুআরায় (২৬ : ৫৬-৬৭) গত হয়েছে।


২৫


کَمۡ تَرَکُوۡا مِنۡ جَنّٰتٍ وَّعُیُوۡنٍ ۙ


কাম তারাকূমিন জান্না-তিওঁ ওয়া ‘উইয়ূন।


Mufti Taqi Usmani

How many gardens and fountains have they left behind-


মুফতী তাকী উসমানী

তারা পিছনে রেখে গিয়েছিল কত বাগান ও প্রস্রবণ।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা ছেড়ে গিয়েছিল কত উদ্যান ও প্রস্রবন,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা পশ্চাতে রেখে গিয়েছিল কত উদ্যান ও প্রস্রবণ;


মাওলানা জহুরুল হক

তারা পেছনে ফেলে এসেছে কত যে বাগান ও ঝরনা,


২৬


وَّزُرُوۡعٍ وَّمَقَامٍ کَرِیۡمٍ ۙ


ওয়া ঝুরূ‘ইওঁ ওয়া মাকা-মিন কারীম।


Mufti Taqi Usmani

- and how many fields and noble sites,


মুফতী তাকী উসমানী

কত শস্যক্ষেত্র ও সুরৌম্য বসতবাড়ি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

কত শস্যক্ষেত্র ও সূরম্য স্থান।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

কত শস্যক্ষেত্র ও সুরম্য প্রাসাদ,


মাওলানা জহুরুল হক

আর খেত-খামার ও মনোরম বাসস্থান,


২৭


وَّنَعۡمَۃٍ کَانُوۡا فِیۡہَا فٰکِہِیۡنَ ۙ


ওয়া না‘মাতিন কা-নূফীহা-ফা-কিহীন।


Mufti Taqi Usmani

and how many a luxury they used to rejoice in!


মুফতী তাকী উসমানী

এবং কত বিলাস সামগ্রী, যার ভেতর তারা আনন্দ-ফুর্তিতে ছিল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

কত সুখের উপকরণ, যাতে তারা খোশগল্প করত।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

কত বিলাস-উপকরণ, এতে তারা আনন্দ পেত!


মাওলানা জহুরুল হক

আর ভোগসামগ্রী যাতে তারা অবস্থান করত।


২৮


کَذٰلِکَ ۟ وَاَوۡرَثۡنٰہَا قَوۡمًا اٰخَرِیۡنَ


কাযা-লিকা ওয়া আওরাছনা-হা-কাওমান আ-খারীন।


Mufti Taqi Usmani

This is how it happened. And We made other people inherit all this.


মুফতী তাকী উসমানী

ওই রকমই হল তাদের পরিণাম। আর আমি এসব জিনিসের ওয়ারিশ বানিয়ে দিলাম অপর এক সম্প্রদায়কে। ১০


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এমনিই হয়েছিল এবং আমি ওগুলোর মালিক করেছিলাম ভিন্ন সম্প্রদায়কে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এইরূপই ঘটিয়াছিল এবং আমি এই সমুদয়ের উত্তরাধিকারী করেছিলাম ভিন্ন সম্প্রদায়কে।


মাওলানা জহুরুল হক

এইভাবেই, আর এইসব আমরা অন্য এক জাতিকে উত্তরাধিকার করতে দিয়েছিলাম।


তাফসীরঃ

১০. অর্থাৎ বনী ইসরাঈলকে। এক বর্ণনা অনুযায়ী ফির‘আউন সসৈন্যে নিমজ্জিত হওয়ার পর সমগ্র মিসরে তাদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠিত হয় আর এভাবে আল্লাহ তাআলা নিপীড়িত সম্প্রদায়টিকে তাদের উৎপীড়ক জাতির স্থানে অধিষ্ঠিত করে দেন (দেখুন সূরা আরাফ ৭ : ১৩৭, শুআরা ২৬ : ৫৯)। -অনুবাদক


২৯


فَمَا بَکَتۡ عَلَیۡہِمُ السَّمَآءُ وَالۡاَرۡضُ وَمَا کَانُوۡا مُنۡظَرِیۡنَ ٪


ফামা-বাকাত ‘আলাইহিমুছ ছামাউ ওয়াল আরদুওয়ামা-কা-নূমুনজারীন।


Mufti Taqi Usmani

So, neither the sky and earth wept over them, nor were they given a respite.


মুফতী তাকী উসমানী

অতঃপর তাদের জন্য না আসমান কাঁদল, না যমীন ১১ এবং তাদেরকে কিছুমাত্র অবকাশও দেওয়া হল না।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তাদের জন্যে ক্রন্দন করেনি আকাশ ও পৃথিবী এবং তারা অবকাশও পায়নি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আকাশ এবং পৃথিবী কেউই এদের জন্যে অশ্রুপাত করে নাই এবং এদেরকে অবকাশও দেওয়া হয় নাই।


মাওলানা জহুরুল হক

তারপর মহাকাশ ও পৃথিবী তাদের জন্য কাঁদে নি, আর তারা অবকাশপ্রাপ্তও হয়নি।


তাফসীরঃ

১১. অর্থাৎ তাদের জুলুম-অত্যাচারে গণমানুষ এমনই অতিষ্ঠ ছিল যে, তাদের নিদারুণ উচ্ছেদ কারও অন্তরে করুণা সঞ্চার করল না, তাদের প্রতি কেউ কণামাত্র বিয়োগ বেদনা অনুভব করল না। -অনুবাদক


৩০


وَلَقَدۡ نَجَّیۡنَا بَنِیۡۤ اِسۡرَآءِیۡلَ مِنَ الۡعَذَابِ الۡمُہِیۡنِ ۙ


ওয়ালাকাদ নাজ্জাইনা-বানীইছরাঈলা মিনাল ‘আযা-বিল মুহীন।


Mufti Taqi Usmani

And We delivered the children of Isrā’īl from the humiliating punishment,


মুফতী তাকী উসমানী

আর বনী ইসরাঈলকে উদ্ধার করলাম লাঞ্ছনাকর শাস্তি হতে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি বনী-ইসরাঈলকে অপমানজনক শাস্তি থেকে উদ্ধার করছি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি তো উদ্ধার করেছিলাম বনী ইসরাঈলকে লাঞ্ছনাদায়ক শাস্তি হতে


মাওলানা জহুরুল হক

আর আমরা নিশ্চয়ই ইসরাইলের বংশধরদের উদ্ধার করে দিয়েছিলাম লাঞ্ছনা-দায়ক শাস্তি থেকে --


৩১


مِنۡ فِرۡعَوۡنَ ؕ اِنَّہٗ کَانَ عَالِیًا مِّنَ الۡمُسۡرِفِیۡنَ


মিন ফির‘আওনা ইন্নাহূকা-না ‘আ-লিয়াম্মিনাল মুছরিফীন।


Mufti Taqi Usmani

from Fir‘aun. Indeed, he was haughty, one of the transgressors.


মুফতী তাকী উসমানী

অর্থাৎ ফির‘আউনের থেকে। প্রকৃতপক্ষে সে ছিল সীমালংঘনকারীদের অন্তর্ভুক্ত এক উদ্ধত ব্যক্তি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

ফেরাউন সে ছিল সীমালংঘনকারীদের মধ্যে শীর্ষস্থানীয়।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

ফির‘আওনের; সে তো ছিল পরাক্রান্ত সীমালংঘনকারীদের মধ্যে।


মাওলানা জহুরুল হক

ফির'আউনের থেকে। নিঃসন্দেহ সে ছিল মহাউদ্ধত, সীমালংঘনকারীদের অন্তর্ভুক্ত।


৩২


وَلَقَدِ اخۡتَرۡنٰہُمۡ عَلٰی عِلۡمٍ عَلَی الۡعٰلَمِیۡنَ ۚ


ওয়া লাকাদিখতারনা-হুম ‘আলা-‘ইলমিন ‘আলাল ‘আ-লামীন।


Mufti Taqi Usmani

And We chose them, with knowledge, above all the worlds.


মুফতী তাকী উসমানী

আমি তাদেরকে জেনেশুনেই বিশ্ববাসীর উপর শ্রেষ্ঠত্ব দিয়েছিলাম।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি জেনেশুনে তাদেরকে বিশ্ববাসীদের উপর শ্রেষ্ঠত্ব দিয়েছিলাম।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি তো জেনে-শুনেই এদেরকে বিশ্বে শ্রেষ্ঠত্ব দিয়েছিলাম,


মাওলানা জহুরুল হক

আর আমরা অবশ্য জেনে-শুনেই তাদের নির্বাচন করেছিলাম লোকজনের উপরে,


৩৩


وَاٰتَیۡنٰہُمۡ مِّنَ الۡاٰیٰتِ مَا فِیۡہِ بَلٰٓـؤٌا مُّبِیۡنٌ


ওয়া আ-তাইনা-হুম মিনাল আ-য়া-তি মা-ফীহি বালাউম মুবীন।


Mufti Taqi Usmani

And We gave them the clear signs in which there was a manifest blessing.


মুফতী তাকী উসমানী

এবং তাদেরকে দিয়েছিলাম এমন নিদর্শন, যার ভেতর ছিল সুস্পষ্ট অনুগ্রহ। ১২


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এবং আমি তাদেরকে এমন নিদর্শনাবলী দিয়েছিলাম যাতে ছিল স্পষ্ট সাহায্য।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং এদেরকে দিয়েছিলাম নিদর্শনাবলী, যাতে ছিল সুস্পষ্ট পরীক্ষা;


মাওলানা জহুরুল হক

আর তাদের দিয়েছিলাম কতক নিদর্শনাবলী যার মধ্যে ছিল এক সুস্পষ্ট পরীক্ষা।


তাফসীরঃ

১২. এর দ্বারা সেই সব নি‘আমতের কথা বোঝানো হয়েছে, যা আল্লাহ তাআলা বিশেষভাবে বনী ইসরাঈলকে দান করেছিলেন, যেমন মান্ন ও সালওয়া অবতীর্ণ করা, পাথর থেকে পানির ধারা চালু করা ইত্যাদি। বিস্তারিত দ্রষ্টব্য সূরা বাকারা (২ : ৪৭-৫৮)।


৩৪


اِنَّ ہٰۤؤُلَآءِ لَیَقُوۡلُوۡنَ ۙ


ইন্না হাউলাই লাইয়াকূলূন।


Mufti Taqi Usmani

These people say,


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই তারা বলে থাকে


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

কাফেররা বলেই থাকে,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরা বলেই থাকে,


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ এরা তো বলেই থাকে --


৩৫


اِنۡ ہِیَ اِلَّا مَوۡتَتُنَا الۡاُوۡلٰی وَمَا نَحۡنُ بِمُنۡشَرِیۡنَ


ইন হিয়া ইল্লা-মাওতাতুনাল ঊলা-ওয়ামা-নাহনুবিমুনশারীন।


Mufti Taqi Usmani

“There is nothing more than our first death, and we are not going to be resurrected.


মুফতী তাকী উসমানী

আমাদের প্রথম মৃত্যু ছাড়া আর কিছুই নেই। এবং আমরা পুনরায় জীবিত হওয়ার নই।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

প্রথম মৃত্যুর মাধ্যমেই আমাদের সবকিছুর অবসান হবে এবং আমরা পুনরুত্থিত হব না।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘আমাদের প্রথম মৃত্যু ব্যতীত আর কিছুই নেই এবং আমরা আর উত্থিত হব না।


মাওলানা জহুরুল হক

"এইটি আমাদের প্রথমবারের মৃত্যু বৈ তো নয়, কাজেই আমরা তো আর পুনরুত্থিত হবো না।


৩৬


فَاۡتُوۡا بِاٰبَآئِنَاۤ اِنۡ کُنۡتُمۡ صٰدِقِیۡنَ


ফা’তূবিআ-বাইনাইন কনতুম সা-দিকীন।


Mufti Taqi Usmani

So, (O believers,) bring our fathers, if you are true (in your belief in resurrection.)”


মুফতী তাকী উসমানী

তোমরা সত্যবাদী হলে আমাদের বাপ-দাদাদেরকে তুলে আন।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তোমরা যদি সত্যবাদী হও, তবে আমাদের পূর্বপুরুষদেরকে নিয়ে এস।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘অতএব তোমরা যদি সত্যবাদী হও তবে আমাদের পূর্বপুরুষদেরকে উপস্থিত কর।’


মাওলানা জহুরুল হক

তাহলে আমাদের পিতৃপুরুষদের নিয়ে এস, যদি তোমরা সত্যবাদী হও।


৩৭


اَہُمۡ خَیۡرٌ اَمۡ قَوۡمُ تُبَّعٍ ۙ وَّالَّذِیۡنَ مِنۡ قَبۡلِہِمۡ ؕ اَہۡلَکۡنٰہُمۡ ۫ اِنَّہُمۡ کَانُوۡا مُجۡرِمِیۡنَ


আহুম খাইরুন আম কাওমুতুব্বা‘ইওঁ ওয়াল্লাযীনা মিন কাবলিহিম আহলাকনা-হুম ইন্নাহুম কা-নূমুজরিমীন।


Mufti Taqi Usmani

Are they better or the people of Tubba‘ and those who were before them? We have destroyed them. They were guilty indeed.


মুফতী তাকী উসমানী

তারা শ্রেষ্ঠ, না তুব্বা’র সম্প্রদায় ১৩ ও তাদের পূর্ববর্তীগণ? আমি তাদের সকলকে ধ্বংস করে দিয়েছি। (কেননা) তারা অবশ্যই অপরাধী ছিল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

ওরা শ্রেষ্ঠ, না তুব্বার সম্প্রদায় ও তাদের পূর্ববর্তীরা? আমি ওদেরকে ধ্বংস করে দিয়েছি। ওরা ছিল অপরাধী।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

শ্রেষ্ঠ কি এরা, না তুব্বা সম্প্রদায় ও এদের পূর্ববর্তীরা ? আমি এদেরকে ধ্বংস করেছিলাম, অবশ্যই এরা ছিল অপরাধী।


মাওলানা জহুরুল হক

এরাই কি ভাল, না তুব্বার লোকেরা, এবং যারা এদের পূর্ববর্তী ছিল? আমরা তাদের ধ্বংস করেছিলাম, কারণ তারা ছিল অপরাধী।


তাফসীরঃ

১৩. ‘তুব্বা’ ছিল ইয়ামানের রাজাদের উপাধি। এস্থলে কোন তুব্বা’কে বোঝানো উদ্দেশ্য কুরআন মাজীদ তা স্পষ্ট করেনি। হাফেজ ইবনে কাছীর (রহ.) তাঁর তাফসীর গ্রন্থে বলেন, এস্থলে যে তুব্বা’কে বোঝানো উদ্দেশ্য তার নাম ছিল আসআদ আবু কুরাইব। তাঁর রাজত্বকাল ছিল মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের আবির্ভাবের সাতশ’ বছর আগে। তিনি হযরত মূসা আলাইহিস সালামের দীনের উপর ঈমান এনেছিলেন। তখন সেটাই ছিল সত্য দীন। কিন্তু তাঁর সম্প্রদায় পরবর্তীকালে পৌত্তলিকতা গ্রহণ করেছিল, যার পরিণামে তাদেরকে শাস্তি দেওয়া হয়।


৩৮


وَمَا خَلَقۡنَا السَّمٰوٰتِ وَالۡاَرۡضَ وَمَا بَیۡنَہُمَا لٰعِبِیۡنَ


ওয়ামা-খালাকনাছছামা-ওয়া-তি ওয়াল আরদা ওয়ামা বাইনাহুমা-লা-‘ইবীন।


Mufti Taqi Usmani

And We did not create the heavens and the earth and what is between them just as players.


মুফতী তাকী উসমানী

আমি আকাশমণ্ডলী, পৃথিবী ও তার অন্তর্গত বস্তু নিচয় ক্রীড়াচ্ছলে সৃষ্টি করিনি।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি নভোমন্ডল, ভূমন্ডল ও এতদুভয়ের মধ্যবর্তী সবকিছু ক্রীড়াচ্ছলে সৃষ্টি করিনি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি আকাশমণ্ডলী ও পৃথিবী এবং এদের মধ্যে কোন কিছুই ক্রীড়াচ্ছলে সৃষ্টি করি নাই;


মাওলানা জহুরুল হক

আর আমরা মহাকাশমন্ডলী ও পৃথিবী আর এ দুইয়ের মধ্যে যা-কিছু আছে তা ছেলে-খেলার জন্য সৃষ্টি করি নি।


৩৯


مَا خَلَقۡنٰہُمَاۤ اِلَّا بِالۡحَقِّ وَلٰکِنَّ اَکۡثَرَہُمۡ لَا یَعۡلَمُوۡنَ


মা-খালাকনা-হুমাইল্লা বিলহাক্কিওয়ালা-কিন্না আকছারাহুম লা-ইয়া‘লামূন।


Mufti Taqi Usmani

We did not create them but with true purpose, but most of them do not know.


মুফতী তাকী উসমানী

আমি তা সৃষ্টি করেছি যথার্থ উদ্দেশ্যে। ১৪ কিন্তু তাদের অধিকাংশেই বোঝে না।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি এগুলো যথাযথ উদ্দেশ্যে সৃষ্টি করেছি; কিন্তু তাদের অধিকাংশই বোঝে না।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি এই দুইটি অযথা সৃষ্টি করি নাই, কিন্তু এদের অধিকাংশই এটা জানে না।


মাওলানা জহুরুল হক

আমরা এদুটিকে সত্যের জন্য ভিন্ন সৃষ্টি করি নি, কিন্ত তাদের অধিকাংশই জানে না।


তাফসীরঃ

১৪. আখেরাতকে অস্বীকার করা হলে তার অর্থ দাঁড়ায়, এমন কোনদিন আসবে না, যে দিন সৎকর্মশীলদেরকে তাদের সৎকর্মের পুরস্কার এবং অপরাধীদেরকে তাদের অপরাধের শাস্তি দেওয়া হবে আর তার ফলাফল হয় এই যে, আল্লাহ তাআলা বিশ্ব-জগতকে এমনিই তামাশা স্বরূপ সৃষ্টি করেছেন (নাউযুবিল্লাহ)। [এ আয়াতে তার উত্তর দেওয়া হয়েছে যে, না, আমি বিশ্ব-জগতকে তামাশা করার জন্য সৃষ্টি করিনি; বরং এর যথাযথ এক উদ্দেশ্য আছে। তা হল, মানুষকে পরীক্ষা করা, সে এখানে স্বেচ্ছায় ভালো কাজ করে, না মন্দ কাজ। তারপর একদিন আসবে, যখন তাকে তার ভালো-মন্দ কাজ অনুসারে ফলাফল দেওয়া হবে। ভালো লোক যাবে জান্নাতে এবং মন্দ লোক জাহান্নামে -অনুবাদক]।


৪০


اِنَّ یَوۡمَ الۡفَصۡلِ مِیۡقَاتُہُمۡ اَجۡمَعِیۡنَ ۙ


ইন্না ইয়াওমাল ফাসলি মীকা-তুহুম আজমা‘ঈন।


Mufti Taqi Usmani

The Day of Decision is the appointed time for all of them-


মুফতী তাকী উসমানী

বস্তুত মীমাংসা দিবসই তাদের সকলের জন্য নির্ধারিত কাল।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

নিশ্চয় ফয়সালার দিন তাদের সবারই নির্ধারিত সময়।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

নিশ্চয়ই সকলের জন্যে নির্ধারিত রয়েছে এদের বিচার দিবস।


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ ফয়সালার দিন হচ্ছে তাদের সবার নির্ধারিত দিনকাল,


৪১


یَوۡمَ لَا یُغۡنِیۡ مَوۡلًی عَنۡ مَّوۡلًی شَیۡئًا وَّلَا ہُمۡ یُنۡصَرُوۡنَ ۙ


ইয়াওমা লা-ইউগনী মাওলান ‘আম মাওলান শাইআওঁ ওয়ালা-হুম ইউনসারূন।


Mufti Taqi Usmani

the day when no close relation will be of any use to any close relation, nor will they be helped,


মুফতী তাকী উসমানী

যে দিন এক মিত্র অপর মিত্রের কিছুমাত্র কাজে আসবে না এবং তাদের কারও কোনও সাহায্য করা হবে না,


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যেদিন কোন বন্ধুই কোন বন্ধুর উপকারে আসবে না এবং তারা সাহায্যপ্রাপ্তও হবে না।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সেদিন এক বন্ধু অপর বন্ধুর কোন কাজে আসবে না এবং এরা সাহায্যও পাবে না।


মাওলানা জহুরুল হক

যেদিন এক বন্ধু আরেক বন্ধুর থেকে কোনো প্রকারে লাভবান হবে না, আর তাদের সাহায্যও করা হবে না, --


৪২


اِلَّا مَنۡ رَّحِمَ اللّٰہُ ؕ  اِنَّہٗ ہُوَ الۡعَزِیۡزُ الرَّحِیۡمُ ٪


ইল্লা-মার রাহিমাল্লা-হু ইন্নাহূহুওয়াল ‘আঝীঝুর রাহীম।


Mufti Taqi Usmani

except the One on whom Allah has mercy. Of course, He is the All-Mighty, the Very-Merciful.


মুফতী তাকী উসমানী

আল্লাহ যার প্রতি রহম করেন, সে ব্যতীত। নিশ্চয়ই তিনি পরিপূর্ণ ক্ষমতার মালিক, পরম দয়ালু।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তবে আল্লাহ যার প্রতি দয়া করেন, তার কথা ভিন্ন। নিশ্চয় তিনি পরাক্রমশালী দয়াময়।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তবে আল্লাহ্ যার প্রতি দয়া করেন তার কথা স্বতন্ত্র। তিনি তো পরাক্রমশালী, পরম দয়ালু।


মাওলানা জহুরুল হক

তারা ব্যতীত যাদের প্রতি আল্লাহ্ করুণা করেছেন। নিঃসন্দেহ তিনি, তিনিই তো মহাশক্তিশালী, অফুরন্ত ফলদাতা।


৪৩


اِنَّ شَجَرَتَ الزَّقُّوۡمِ ۙ


ইন্না শাজারাতাঝঝাক্কূম।


Mufti Taqi Usmani

Indeed the tree of zaqqūm


মুফতী তাকী উসমানী

নিশ্চয়ই যাক্কুম গাছ হবে


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

নিশ্চয় যাক্কুম বৃক্ষ


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

নিশ্চয়ই যাক্কুম বৃক্ষ হবে-


মাওলানা জহুরুল হক

নিঃসন্দেহ যিক্কুম বৃক্ষ,


৪৪


طَعَامُ الۡاَثِیۡمِ ۖۛۚ


তা‘আ-মুল আছীম।


Mufti Taqi Usmani

is the food of the sinful,


মুফতী তাকী উসমানী

গুনাহগারদের খাবার


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

পাপীর খাদ্য হবে;


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

পাপীর খাদ্য;


মাওলানা জহুরুল হক

পাপীদের খাদ্য, --


৪৫


کَالۡمُہۡلِ ۚۛ  یَغۡلِیۡ فِی الۡبُطُوۡنِ ۙ


কালমুহলি ইয়াগলী ফিলবুতূন।


Mufti Taqi Usmani

like dregs of oil. It will boil in the bellies


মুফতী তাকী উসমানী

তেলের তলানি-সদৃশ। তা তাদের পেটে উথলাতে থাকবে


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

গলিত তাম্রের মত পেটে ফুটতে থাকবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

গলিত তাম্রের মত, এদের উদরে ফুটতে থাকবে


মাওলানা জহুরুল হক

গলিত পিতলের মতো, -- পেটের ভেতরে,


৪৬


کَغَلۡیِ الۡحَمِیۡمِ


কাগালইল হামীম।


Mufti Taqi Usmani

like the boiling of hot water.


মুফতী তাকী উসমানী

গরম পানির উথলানোর মত।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

যেমন ফুটে পানি।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

ফুটন্ত পানির মত।


মাওলানা জহুরুল হক

ফুটন্ত পানির টগবগ করার মতো।


৪৭


خُذُوۡہُ فَاعۡتِلُوۡہُ اِلٰی سَوَآءِ الۡجَحِیۡمِ ٭ۖ


খুযূহু ফা‘তিলূহু ইলা-ছাওয়াইল জাহীম।


Mufti Taqi Usmani

(It will be said to angels,) “Seize him, and drag him into the midst of the Hell.


মুফতী তাকী উসমানী

(ফেরেশতাদেরকে বলা হবে,) তাকে ধর এবং হেঁচড়াতে হেঁচড়াতে জাহান্নামের মাঝখানে নিয়ে যাও।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

একে ধর এবং টেনে নিয়ে যাও জাহান্নামের মধ্যস্থলে,


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

একে ধর এবং টেনে নিয়ে যাও জাহান্নামের মধ্যস্থলে,


মাওলানা জহুরুল হক

"তাকে পাকড়ো, তারপর তাকে টেনে নিয়ে যাও ভয়ংকর আগুনের মাঝখানে,


৪৮


ثُمَّ صُبُّوۡا فَوۡقَ رَاۡسِہٖ مِنۡ عَذَابِ الۡحَمِیۡمِ ؕ


ছু ম্মা সুববূফাওকা রা’ছিহী মিন ‘আযা-বিল হামীম।


Mufti Taqi Usmani

Then pour on his head some torment of boiling water.”


মুফতী তাকী উসমানী

তারপর তার মাথার উপর উত্তপ্ত পানির শাস্তি ঢেলে দাও।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতঃপর তার মাথার উপর ফুটন্ত পানির আযাব ঢেলে দাও,

(ads1)

(getButton) #text=(আল কোরআন বাংলা অনুবাদ সহ এক সাথে ) #icon=(link) #color=(#f50707)

ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এরপর এর মস্তকের ওপর ফুটন্ত পানি ঢেলে শাস্তি দাও-


মাওলানা জহুরুল হক

"তারপর তার মাথার উপরে ঢেলে দাও ফুটন্ত পানির শাস্তি,


৪৯


ذُقۡ ۚۙ اِنَّکَ اَنۡتَ الۡعَزِیۡزُ الۡکَرِیۡمُ


যুক ইন্নাকা আনতাল ‘আঝীঝুল কারীম।


Mufti Taqi Usmani

“Have a taste! You are the ‘man of might’, the ‘man of honour’.


মুফতী তাকী উসমানী

(বলা হবে,) স্বাদ গ্রহণ কর। তুই-ই তো সেই মহা ক্ষমতাবান, মহা সম্মানী ব্যক্তি। ১৫


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

স্বাদ গ্রহণ কর, তুমি তো সম্মানিত, সম্ভ্রান্ত।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এবং বলা হবে ‘আস্বাদ গ্রহণ কর, তুমি তো ছিলে সম্মানিত, অভিজাত!


মাওলানা জহুরুল হক

"আস্বাদ কর, তুমি তো ছিলে মহাশক্তিশালী, পরম সম্মানিত!’


তাফসীরঃ

১৫. অর্থাৎ তুই দুনিয়ায় নিজেকে বড় ক্ষমতাশালী ও মর্যাদাবান লোক মনে করতি আর সেজন্য তোর অহংকারের সীমা ছিল না। আজ দেখে নে, অহমিকা ও বড়াইয়ের পরিণাম কী এবং সত্য অস্বীকার করার শাস্তি কেমন!


৫০


اِنَّ ہٰذَا مَا کُنۡتُمۡ بِہٖ تَمۡتَرُوۡنَ


ইন্না হা-যা-মা-কুনতুম বিহী তামতারূন।


Mufti Taqi Usmani

This is the thing about which you used to be skeptic.”


মুফতী তাকী উসমানী

এটাই সেই জিনিস, যে সম্পর্কে তোমরা সন্দেহ করতে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এ সম্পর্কে তোমরা সন্দেহে পতিত ছিলে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

‘এটা তো এটাই, যে বিষয়ে তোমরা সন্দেহ করতে।’


মাওলানা জহুরুল হক

আলবৎ এ হচ্ছে সেই যে-সন্বন্ধে তোমরা সন্দেহ করতে।


৫১


اِنَّ الۡمُتَّقِیۡنَ فِیۡ مَقَامٍ اَمِیۡنٍ ۙ


ইন্নাল মুত্তাকীনা ফী মাকা-মিন আমীন।


Mufti Taqi Usmani

Indeed the God-fearing will be in a place free from fear,


মুফতী তাকী উসমানী

(অপর দিকে) মুত্তাকীগণ অবশ্যই নিরাপদ স্থানে থাকবে


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

নিশ্চয় খোদাভীরুরা নিরাপদ স্থানে থাকবে-


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

মুত্তাকীরা তো থাকবে নিরাপদ স্থানে-


মাওলানা জহুরুল হক

অবশ্য ধর্মভীরুরা থাকবে নিরাপদ স্থানে --


৫২


فِیۡ جَنّٰتٍ وَّعُیُوۡنٍ ۚۙ


ফী জান্না-তিওঁ ওয়া ‘উইঊন।


Mufti Taqi Usmani

in gardens and fountains.


মুফতী তাকী উসমানী

উদ্যানরাজিতে ও প্রস্রবণে!


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

উদ্যানরাজি ও নির্ঝরিণীসমূহে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

উদ্যান ও ঝর্ণার মাঝে,


মাওলানা জহুরুল হক

বাগানের ও ঝরনার মধ্যে,


৫৩


یَّلۡبَسُوۡنَ مِنۡ سُنۡدُسٍ وَّاِسۡتَبۡرَقٍ مُّتَقٰبِلِیۡنَ ۚۙ


ইয়ালবাছূনা মিন ছুনদুছিওঁ ওয়া ইছতাবরাকিম মুতাকা-বিলীন।


Mufti Taqi Usmani

They will be dressed in fine silk and thick silk, facing each other.


মুফতী তাকী উসমানী

তারা ‘সুন্দুস’ ও ‘ইসতাবরাক’ ১৬-এর পোশাক পরিহিত অবস্থায় সামনা সামনি বসা থাকবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা পরিধান করবে চিকন ও পুরু রেশমীবস্ত্র, মুখোমুখি হয়ে বসবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তারা পরিধান করবে মিহি ও পুরু রেশমী বস্ত্র এবং মুখোমুখি হয়ে বসবে।


মাওলানা জহুরুল হক

তারা পরিধান করবে মিহি রেশম ও পুরু জরিদার পোশাক, পরস্পরের মুখোমুখি হয়ে।


তাফসীরঃ

১৬. ‘সুন্দুস’ ও ‘ইসতিব্রাক’ দুই ধরনের রেশমি কাপড়। সুনদুস হয় মিহি আর ইস্তাব্রাক মোটা। এটা তো দুনিয়ার হিসেবে, কিন্তু জান্নাতের সুনদুস ও ইস্তাব্রাক যে আসলে কেমন হবে তা আল্লাহ তাআলাই জানেন।


৫৪


کَذٰلِکَ ۟  وَزَوَّجۡنٰہُمۡ بِحُوۡرٍ عِیۡنٍ ؕ


কাযা-লিকা ওয়া ঝাওওয়াজনা-হুম বিহূরিন ‘ঈন।


Mufti Taqi Usmani

Thus (it will happen,) and We will marry them with houris having big dark eyes.


মুফতী তাকী উসমানী

তাদের সাথে এ রকমই ব্যবহার করা হবে। আমি ডাগর-ডাগর চোখের হুরদের সাথে তাদের বিবাহ দেব।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

এরূপই হবে এবং আমি তাদেরকে আনতলোচনা স্ত্রী দেব।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

এইরূপই ঘটবে; আমি এদেরকে সঙ্গিনী দান করব আয়তলোচনা হুর,


মাওলানা জহুরুল হক

এইভাবেই! আমরা তাদের জোড় মিলিয়ে দেব আয়তলোচন হূরদের সাথে।


৫৫


یَدۡعُوۡنَ فِیۡہَا بِکُلِّ فَاکِہَۃٍ اٰمِنِیۡنَ ۙ


ইয়াদ‘ঊনা ফীহা-বিকুল্লি ফা-কিহাতিন আ-মিনীন।


Mufti Taqi Usmani

They will call therein for every fruit peacefully.


মুফতী তাকী উসমানী

সেখানে তারা অত্যন্ত নিশ্চিন্তে সব রকম ফলের ফরমায়েশ করবে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা সেখানে শান্ত মনে বিভিন্ন ফল-মূল আনতে বলবে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সেথায় তারা প্রশান্ত চিত্তে বিবিধ ফলমূল আনতে বলবে।


মাওলানা জহুরুল হক

সেখানে তারা আনতে বলবে বিবিধ ফলফসল, নিরাপত্তার সাথে।


৫৬


لَا یَذُوۡقُوۡنَ فِیۡہَا الۡمَوۡتَ اِلَّا الۡمَوۡتَۃَ الۡاُوۡلٰی ۚ  وَوَقٰہُمۡ عَذَابَ الۡجَحِیۡمِ ۙ


লা-ইয়াযূকূনা ফীহাল মাওতা ইল্লাল মাওতাতাল ঊলা- ওয়া ওয়াকা-হুম ‘আযা-বাল জাহীম।


Mufti Taqi Usmani

They will not taste death therein beyond the first death (they faced in the world). And He (Allah) will save them from the torment of Hell,


মুফতী তাকী উসমানী

(দুনিয়ায়) তাদের যে মৃত্যু প্রথমে এসেছিল, তা ছাড়া সেখানে (অর্থাৎ জান্নাতে) তাদেরকে কোন মৃত্যুর স্বাদ গ্রহণ করতে হবে না এবং আল্লাহ তাদেরকে জাহান্নামের শাস্তি হতে রক্ষা করবেন,


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

তারা সেখানে মৃত্যু আস্বাদন করবে না, প্রথম মৃত্যু ব্যতীত এবং আপনার পালনকর্তা তাদেরকে জাহান্নামের আযাব থেকে রক্ষা করবেন।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

প্রথম মৃত্যুর পর তারা সেখানে আর মৃত্যু আস্বাদন করবে না। আর তাদেরকে জাহান্নামের শাস্তি হতে রক্ষা করবেন-


মাওলানা জহুরুল হক

তারা সেখানে মৃত্যু আস্বাদন করবে না প্রথমবারের মৃত্যু ব্যতীত; আর তিনি তাদের রক্ষা করবেন ভয়ংকর আগুনের শাস্তি থেকে --


৫৭


فَضۡلًا مِّنۡ رَّبِّکَ ؕ ذٰلِکَ ہُوَ الۡفَوۡزُ الۡعَظِیۡمُ


ফাদলাম মির রাব্বিকা যা-লিকা হুওয়াল ফাওঝুল ‘আজীম।


Mufti Taqi Usmani

as a favour from your Lord. That is the great achievement.


মুফতী তাকী উসমানী

তোমার প্রতিপালকের পক্ষ হতে অনুগ্রহ স্বরূপ। (মানুষের জন্য) এটাই মহা সাফল্য।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আপনার পালনকর্তার কৃপায় এটাই মহা সাফল্য।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

তোমার প্রতিপালক নিজ অনুগ্রহে। এটাই তো মহাসাফল্য।


মাওলানা জহুরুল হক

তোমার প্রভুর কাছ থেকে এ এক করুণা। এটি খোদ এক বিরাট সাফল্য।


৫৮


فَاِنَّمَا یَسَّرۡنٰہُ بِلِسَانِکَ لَعَلَّہُمۡ یَتَذَکَّرُوۡنَ


ফাইন্নামা-ইয়াছছারনা-হু বিলিছা-নিকা লা‘আল্লাহুম ইয়াতাযাক্কারূন।


Mufti Taqi Usmani

So, We had made it (the Qur’ān) easy in your tongue, so that they may take lesson.


মুফতী তাকী উসমানী

(হে রাসূল!) আমি এ কুরআনকে তোমার মুখে সহজ করে দিয়েছি, যাতে মানুষ উপদেশ গ্রহণ করে।


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

আমি আপনার ভাষায় কোরআনকে সহজ করে দিয়েছি, যাতে তারা স্মরণ রাখে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

আমি তো তোমার ভাষায় কুরআনকে সহজ করে দিয়েছি, যাতে এরা উপদেশ গ্রহণ করে।


মাওলানা জহুরুল হক

সুতরাং আমরা নিশ্চয় এটিকে তোমার ভাষায় সহজ করে দিয়েছি যেন তারা মনোনিবেশ করতে পারে।


৫৯


فَارۡتَقِبۡ اِنَّہُمۡ مُّرۡتَقِبُوۡنَ ٪


ফারতাকিব ইন্নাহুম মুরতাকিবূন।


Mufti Taqi Usmani

Now wait. They too are waiting.


মুফতী তাকী উসমানী

সুতরাং তুমি অপেক্ষা কর, তারাও অপেক্ষায় আছে। ১৭


মাওলানা মুহিউদ্দিন খান

অতএব, আপনি অপেক্ষা করুন, তারাও অপেক্ষা করছে।


ইসলামিক ফাউন্ডেশন

সুতরাং তুমি প্রতীক্ষা কর, এরাও প্রতীক্ষমাণ।


মাওলানা জহুরুল হক

সুতরাং তুমি প্রতীক্ষা কর, নিঃসন্দেহ তারাও অপেক্ষমাণ রয়েছে।


তাফসীরঃ

১৭. তারা অর্থাৎ কাফেরগণ তো অপেক্ষা করছে এ হিসেবে যে, তারা কিয়ামতকে স্বীকারই করে না। মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে অপেক্ষা করতে বলা হয়েছে তাতে ঈমান ও বিশ্বাসের কারণে। উভয় পক্ষের অপেক্ষার পর সত্যিই যখন কিয়ামত এসে যাবে, তখন প্রকৃত অবস্থা প্রকাশ হয়ে যাবে এবং তখন কাফেরদেরকে তাদের অবিশ্বাসের পরিণামে কঠিন শাস্তির সম্মুখীন হতে হবে।

Post a Comment

0 Comments
* Please Don't Spam Here. All the Comments are Reviewed by Admin.
Post a Comment (0)

islamicinfohub Top Post Ad1

#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !
To Top